কর্পোরেট দেশপ্রেম

সোভিয়েত রাশিয়া ভাঙ্গার পর এককেন্দ্রিক বিশ্বে “বিশ্বায়ন”এর নামে শুরু হয়েছে শোষণ-লুন্ঠন। কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান মুক্তবাজারের নামে তৃতীয় বিশ্বের দেশ থেকে লুট করছে মুনাফা। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে শোষণের এই দিকটিকে আড়াল করে রাখতে তারা মধ্যবিত্ত মননে ঢুকিয়ে দিচ্ছে তাদের তৈরী কর্পোরেট দেশপ্রেম। আর তাদের দেশীয় দালাল হচ্ছে এদেশের পুঁজিপতি শ্রেণি।এবং গণমানুষের বুদ্ধিজীবীর বদলে “কর্পোরেট বুদ্ধিজীবীরা” মানুষকে দেশপ্রেমের শিক্ষা দিচ্ছেন। সব থেকে ভয়ের ব্যাপার হলো পুঁজিপতি শ্রেণির এজেন্ট রাজনৈতিক দলগুলোর বিরাজনীতিকরণের পাশাপাশি জনগণের দেশপ্রেমের মানসিকতাকে এই কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর দেশপ্রেম মানুষকে কথাসর্বস্ব দেশপ্রেমিক হতে শেখাচ্ছে। ফলে রাষ্ট্রব্যবস্থার শোষণের দিকটি মানুষ ভুলে গিয়ে তারা নিজেরাও “কর্পোরেট মানুষে” পরিণত হচ্ছে। ক্যারিয়ার গঠনের জন্য ছুটছে সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা ভুলে গিয়ে। ফলে একটি সুন্দরবন ধ্বংসের পরিকল্পনায় আমাদের দেশপ্রেম জাগে না,জাগে সেই বিষয়গুলোয় যেগুলো কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান মানুষকে শেখায়। ফলে জিপি,রবি,প্রথমালোর রমরমা ব্যবসা হয় আর মানুষেরা হয়ে ওঠে “কর্পোরেট দেশপ্রেমিক জনগণ”।

১ thought on “কর্পোরেট দেশপ্রেম

  1. রাশিয়া ভেঙ্গেছে আমেরিকা আর
    রাশিয়া ভেঙ্গেছে আমেরিকা আর তার দালাল মোল্লারা। এরাই পাপের ডিপো। এরাই মানুষকে পণ্য বানাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *