বিনোদনের খেলা না কি রাজনীতির খেলা ???

গত কয়েক বছরে সংখ্যালঘু, আদিবাসী নির্যাতন আর দেশপ্রেমী জাতীয়তাবাদী নামক হুজুগ তিনটিই বরাবরই উস্কে দিয়েছে নেওয়াজ,মোদী ও হাসিনার সরকার,, বেলুচ-কাশ্মীর, মণিপুর-আসাম, দিনাজপুর – রাঙ্গামাটি সংখ্যালঘু নির্যাতন,জাতীয়তাবাদী দেশপ্রেমের ঝান্ডা উড়িয়ে কেবল লুট আর লুট চলছে,,
সেই হরিলুটের পতাকা তখনই ভারী হয়- যখন সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ আর নকল দেশপূজ্যকদের দলভারী হয়–
আর সেই বিদ্বেষ রাজনীতি নিয়ে কূটচাল আর উন্মাদনার অন্যতম মাধ্যম হল খেলা ও তাতে মিডিয়ার পাবলিক গেলানো রাজনীতি,,,

গত কয়েক বছরে সংখ্যালঘু, আদিবাসী নির্যাতন আর দেশপ্রেমী জাতীয়তাবাদী নামক হুজুগ তিনটিই বরাবরই উস্কে দিয়েছে নেওয়াজ,মোদী ও হাসিনার সরকার,, বেলুচ-কাশ্মীর, মণিপুর-আসাম, দিনাজপুর – রাঙ্গামাটি সংখ্যালঘু নির্যাতন,জাতীয়তাবাদী দেশপ্রেমের ঝান্ডা উড়িয়ে কেবল লুট আর লুট চলছে,,
সেই হরিলুটের পতাকা তখনই ভারী হয়- যখন সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ আর নকল দেশপূজ্যকদের দলভারী হয়–
আর সেই বিদ্বেষ রাজনীতি নিয়ে কূটচাল আর উন্মাদনার অন্যতম মাধ্যম হল খেলা ও তাতে মিডিয়ার পাবলিক গেলানো রাজনীতি,,,
সেই খেলায় ৮০% সফল তিনদেশ সরকাররাই,, খেলা এখন রাজনীতির ব্যপক অংশ হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি,মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু করে কর্পোরেট ডিমান্ডদাররা পর্যন্ত বিনিয়োগে ব্যস্ত,,
যেমন- রাষ্ট্র করছে উন্মাদ জনতা বিনিয়োগ, ব্যবসায়ীরা টাকা, মিডিয়ারা স্ট্যাইল আর জনগণ করছে মগজ বিনিয়োগ,,
খেলা বিনোদনের মাধ্যম ছিলো,,
হ্যা, ছিলোই বলছি, কারণ, সেটা পাস্ট টেনস্,,
আচ্ছা, একবার ভাবুন তো – যে চাকমা ছেলেটির বোনকে চোখের সামনে র্যাপ করা হয়, যে হাজংদের দেশছাড়া করা হয়, যে মণিপুরী মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়,, যে কাশ্মীরিদের নিয়ে দু’টি দেশ ছিনিমিনি আর কুতকুত খেলা হয়, যে বেলুচ যুবকটি চোখের সামনে মায়ের মরা লাশ দেখে,
তারা কোন দেশের ফাইনাল কাপ নিয়ে চিৎকার করবে???
যে রাষ্ট্রগুলো নিজেই সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ উস্কে দিয়ে আবার তাদেরই সন্ত্রাসবাহিনী নিয়ে হত্যাযজ্ঞে নামে,,,
সে রাষ্ট্রগুলোর জনগণ কোন বাঘ-গরু-ছাগলের জন্যে মাঠে নাচানাচি করতে পারে???
বাঘ-গরু-ছাগলই বলতে হচ্ছে-
কারণ, সুন্দরবনের বাঘ ভারত-বাংলাদেশের সরকারদের খপ্পড়ে পড়ে হয়ে গেছে ডানাবিহীন মশা,, আর,, প্রতিনিয়ত যত না গরু-ছাগল মরে,, তার চেয়ে দ্বিগুণ বলি হয় তিন রাষ্ট্রের সাম্প্রদায়িক হানাহানিতে ব্যস্ত গরু – ছাগলগুলো,,
কোন চায়ের কাপের জন্য বসে আছেন বলুন তো???
যে চায়ের কাপ জেতার পর সরকার আপনাদের মস্তিকহীন মাথায় ভাঙ্গবে,, সেই কাপ???
আর,, আইসিসির কথা ভাবছেন???
ওটা বধির জাতিসংঘের ২য় কার্যালয়,,
যেটা কোম্পানী আইন – ১৯৪৭ এর মাধ্যমে সৃষ্টি,,,

ওরে, পেয়ারীলাল- দেশভাগের কাহিনী জানিস তো??
– হাম, গরীব আদমি আছি হুজুর, কে জানে সে সব।!!

আর সেই সুযোগে হাসিনিন্দ্রনাথ বলেছেন —
“” হে মোদী,
তোমার কুড়াল যারে দাও,
তারে কাটিবারে দাও শকতি।
“”

১ thought on “বিনোদনের খেলা না কি রাজনীতির খেলা ???

  1. খেলাধুলা পুঁজিবাদের একটা
    খেলাধুলা পুঁজিবাদের একটা উল্লেখযোগ্য অংশ। বিশ্ব পুঁজিবাদ বিকাশ হচ্ছে অর্থনীতি ও রাজনীতির সাথে সমানতালে। স্বাভাবিকভাবেই খেলার মধ্যে রাজনীতি ও অর্থনীতির সংযোগ থাকবেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *