পাশা খেলায় রাখাল বালকের বিদায় এবং রাবিশদের বিজয় আখ্যান

বাংলাদেশ ব্যাংকে এই চুরির দায় শেষমেষ ড. আতিউর রহমানের উপরেই বর্তায়। তিনি স্বসম্মানে বাংলাদেশের মানুষের প্রতি সম্মান রেখেই পদত্যাগ করেছেন। তাঁকে ধন্যবাদ।

অর্থমন্ত্রী সাহেব কী সরাসরি এক হাত নিলেন? গত আট বছর তাঁদের ভিতর অম্ল-মধুর সম্পর্কের ব্যাপারে মিডিয়ায় অনেক কিছুই চাউর হয়েছে। যারা ধরার তাঁরা ঠিকই দুই লাইনের মাঝখানের কথা বুঝে নিয়েছেন। সময় অসময়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কে তাঁর যে মন্তব্য তাতে অর্থমন্ত্রীর পুঞ্জীভূত ঈর্ষা এবার সুযোগ বুঝে ঝেড়ে দিলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকে এই চুরির দায় শেষমেষ ড. আতিউর রহমানের উপরেই বর্তায়। তিনি স্বসম্মানে বাংলাদেশের মানুষের প্রতি সম্মান রেখেই পদত্যাগ করেছেন। তাঁকে ধন্যবাদ।

অর্থমন্ত্রী সাহেব কী সরাসরি এক হাত নিলেন? গত আট বছর তাঁদের ভিতর অম্ল-মধুর সম্পর্কের ব্যাপারে মিডিয়ায় অনেক কিছুই চাউর হয়েছে। যারা ধরার তাঁরা ঠিকই দুই লাইনের মাঝখানের কথা বুঝে নিয়েছেন। সময় অসময়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কে তাঁর যে মন্তব্য তাতে অর্থমন্ত্রীর পুঞ্জীভূত ঈর্ষা এবার সুযোগ বুঝে ঝেড়ে দিলেন।

দু’জন ডেপুটি গভর্ণরকেও এক ঘণ্টার মাঝে ঝাঁটানো হলো। পুরো টিমকে বিদায় দেয়া হলো (দোজ টু আর গণ- অর্থমন্ত্রী)। গভর্ণরের জায়গায় যাঁকে বসানো হচ্ছে গত ৪০ বছরে তাঁর কোন ব্যুরোক্রেটিক ক্যারিয়ার-ই নাই। জনাব ফজলে কবির বাংলাদেশ রেলওয়ের একজন সহকারি ট্রাফিক সুপারিনটেনডেন্ট ছিলেন। কিন্তু আজও কোন ক্ষেত্রেই তাঁর কোন উল্লেখযোগ্য সাফল্যের খবর মানুষ জানে না। কেন, কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে তিনি গভর্নরের আসনে অধিষ্ঠিত হতে যাচ্ছেন তা জাতিকে জানানো হোক। এটা কি জনাব অন্থমন্ত্রীর ঠুটো জগন্নাথ? আওয়ামিলীগ কে ডুবানোর জন্য বিএনপি-জামাতের দরকার নাই। ইনসাইডার রাবিশেরাই যথেষ্ট।

ভবিষ্যতবাণী ১: ২৮ বিলিয়ন ডলারের রিজার্ভ আগামী ৮ মাসে ২১ বিলিয়নে নেমে আসবে।
ভবিষ্যতবাণী ২: চুরি যাওয়া টাকা ফেরত পাওয়া যাবে না। এই সব কেইসগুলোও উধাও হয়ে যাবে। কারন শোধ যা, তা তো নেয়া হয়ে গেছে।
ভবিষ্যতবাণী ৩: ড. আতিউর দেশ ছেড়ে আন্তর্জাতিক বিশ্বে পোলাপাইন পড়ানো, ডিরেক্টরদের মিটিংএ বকতৃতা এবং গবেষণা করে লোক চক্ষুর অন্তরালে চলে যাবেন।
ভবিষ্যতবাণী ৪: ডেইলি স্টার ও প্রথমআলো’র কপালের ঘোর আরো ঘণীভূত হলো (কারন জানতে চাহিয়া লজ্জা দিবেন না)।
ভবিষ্যতবাণী ৫: জিডিপি গ্রোথের যে রমরমা ভাব, তারল্যের যে মধুর যন্ত্রনা, সেসব এখন শুধুই স্মৃতি হয়ে থাকবে।
ভবিষ্যতবাণী ৬: আওয়ামিলীগ তাঁর মেরুদণ্ড নিয়ে ছিনিমিনি খেলার জন্যে স্বাভাবিক নির্বাচনের সাহসের পায়ে কুড়াল মারলো।
ভবিষ্যতবাণী ৭: জনাব অর্থমন্ত্রী এখন হেসে খেলে বাকী দিনগুলো কাটিয়ে একটা জমপেশ আড়ম্বর জীবনের হাততালি শুনতে শুনতে টায়ার্ড হয়েও হবেন না।

২ thoughts on “পাশা খেলায় রাখাল বালকের বিদায় এবং রাবিশদের বিজয় আখ্যান

  1. গভর্নরের বিদায়ে পাপিষ্ঠরা
    গভর্নরের বিদায়ে পাপিষ্ঠরা খুশি হয়েছে। তারা এবার আরও বেপরোয়া হয়ে উঠার সুযোগ পাবে।
    লেখককে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *