দুর্নীতিমুক্ত ও উন্নয়ন কাজ তরান্বিত করতে তথ্য প্রযুক্তির বিকল্প নেই

বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে,নতুন নতুন প্রযুক্তি আসছে। বাংলাদেশও কোনোমতেই পিছিয়ে থাকতে পারে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গতকাল নিজের কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ১২৫টি উপজেলায় ‘আইসিটি ট্রেনিং অ্যান্ড রিসোর্স সেন্টার ফর এডুকেশন’ এর উদ্বোধন করেন। তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষতার মাধ্যমে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত ও উন্নয়ন কাজ তরান্বিত হবে। সমাজকে দুর্নীতিমুক্ত করা, উন্নয়ন প্রকল্পগুলো দ্রুত বাসত্মবায়ন করা, আরও ব্যাপকভাবে নিরীক্ষা কার্যক্রম চালানো এবং উন্নয়নের গতিকে তরান্বিত করা এই কাজগুলি খুব সহজ হয় শুধুমাত্র প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ব্যুরো ও পরিসংখ্যানের (বেনবেইস) উদ্যোগে এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সহযোগিতায় প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। সারাদেশের সকল উপজেলায় আইসিটি ট্রেনিং সেন্টার ফর এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার গড়ে তোলার অংশ হিসেবে ১ম পর্যায়ে এদিন সারাদেশে ১২৫টি ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন করা হল। এর মাধ্যমে ২০১৭ সালের মধ্যে সারাদেশের ১ লাখ শিক্ষককে আইসিটিতে মাস্টার ট্রেনিং প্রদান করা সম্বব হবে। পর্যায়ক্রমে সমগ্র দেশের ৪৮৯টি উপজেলাতেই এই কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে। বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তথ্য-প্রযুক্তির কোন বিকল্প নেই। তথ্য প্রযুক্তি সেবা সবার দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে পারলে সমাজ থেকে দুর্নীতি দূর হবে। একই সঙ্গে উন্নয়ন কাজ ত্বরান্বিত করাও সহজ হবে। এ লক্ষ্যে সারাদেশে ৫ হাজার ২৬৫ ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে, ডিজিটাল কেন্দ্র করে দেয়া হয়েছে ৮ হাজার পোস্ট অফিসকে। এতে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তির দক্ষতা বেড়েছে। বর্তমান সরকার যখনই ক্ষমতায় এসেছে, দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছে, দেশের উন্নয়ন করেছে। আজ বিশ্বে বাংলাদেশ একটা মর্যাদাপূর্ণ রাষ্ট্র।

১ thought on “দুর্নীতিমুক্ত ও উন্নয়ন কাজ তরান্বিত করতে তথ্য প্রযুক্তির বিকল্প নেই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *