প্রতীক্ষা – হাজার অভিজিৎ ফিরে আসার

অভিজিৎ রায়….
তাঁকে নিয়ে যতই বলি না কেন ততই কম । তাই তেমন কিছু বলি না অভিজিৎ’দাকে নিয়ে । সত্যি কথা বলতে অভিজিৎ রায়কে নিয়ে বিশেষ কিছু বলার মতন যোগ্যতাও আমার নেই ।
আমি একসময় একেশ্বরবাদীটাইপ থেকে সংশয়বাদীটাইপ এ রুপান্তরিত হয়েছিলাম, অনেক বই ঘষা-ঘষির পর । অভিজিৎ রায় না থাকলে হয়তো সেদিন আমি আজকের মতন অন্ধকারকে ভালোবাসতে পারতাম না । জড়িয়ে ধরে অন্ধকারের কোমল গালেও চুমু খেতে পারতাম না ক্ষুনাক্ষরেও ।
যখনই অভিজিৎ রায় কে নিয়ে কিছু বলতে যাই, কোথা থেকে যেন একসাগর জল আমার চোখে ভর করে অস্থিরতায় । তাই বিশেষ কিছু বলা হয় না ।

অভিজিৎ রায়….
তাঁকে নিয়ে যতই বলি না কেন ততই কম । তাই তেমন কিছু বলি না অভিজিৎ’দাকে নিয়ে । সত্যি কথা বলতে অভিজিৎ রায়কে নিয়ে বিশেষ কিছু বলার মতন যোগ্যতাও আমার নেই ।
আমি একসময় একেশ্বরবাদীটাইপ থেকে সংশয়বাদীটাইপ এ রুপান্তরিত হয়েছিলাম, অনেক বই ঘষা-ঘষির পর । অভিজিৎ রায় না থাকলে হয়তো সেদিন আমি আজকের মতন অন্ধকারকে ভালোবাসতে পারতাম না । জড়িয়ে ধরে অন্ধকারের কোমল গালেও চুমু খেতে পারতাম না ক্ষুনাক্ষরেও ।
যখনই অভিজিৎ রায় কে নিয়ে কিছু বলতে যাই, কোথা থেকে যেন একসাগর জল আমার চোখে ভর করে অস্থিরতায় । তাই বিশেষ কিছু বলা হয় না ।
এরম বিজ্ঞানমনস্ক ও সাহিত্য জানা লেখক আগামী শতাব্দী অবধি পৃথিবী দেখবে কিনা সন্দেহ । তবুও বাঙলাদেশের নির্মম রাজনীতি ও আল্লার অনুসারীদের বেহেশতের লোভে, আমার মতন হাজার পাঠক অভিজিৎ রায়ের সেই অসাধারন মহাকাশসম রচনা থেকে বঞ্চিত হলো ।আজ এটা সবচাইতে কঠিন সত্য আমার মতন বইপোকাদের জন্য ।

ব্যাক্তি অভিজিৎ রায় ও লেখক অভিজিৎ রায়কে নিয়ে কিছু বলার মতন দুঃসাহস আমার নেই, সত্যিই । তাই তা করছি না অন্তত ।

১ বছর চলে গেছে অভিজিৎ রায় নেই । ব্যাপারটা আজও সেই প্রথম দিনের মতন খারাপ লাগে, যেদিন শুনেছিলাম “অভিজিৎ’দা নেই ” । বাঙলাদেশের মতন মেরুদন্ডহীন দেশে অভিজিৎ’দারা বেঁচে থাকতে পারেন না, এটা হয়ত আমরা না বুঝলেও অভিজিৎ’দা বুঝেছিলেন ঠিকই ।তারপরও সাহসী হাসি মুখে ফুটিয়ে অন্ধদেরকে আলো দেখাতে চেয়েছিলেন । অত সাবলীল ভাষায়ও যে বিজ্ঞানের কঠিন ব্যাপারগুলো বেশ আনন্দে পাঠক পড়তে পারবে কিংবা পারে , সেটা যারা অভিজিৎ রায়ের বই পড়েছেন তারা বেশ ভালো করেই জানেন । অনেকসময় দেখা যায় জটিল একটা বিষয় সহজ করে লিখতে গিয়ে সেটাকে পানসে করে ফেলছেন লেখক । কিন্তু অভিজিৎ রায়ের লেখা না পড়লে হয়ত কোন বাঙাল বুঝতেই পারবে না যে, জটিল বিষয়গুলোকে সাবলীল ও সরল ভাষায়ও লেখা যায় পানসে না করে । বাংলা সাহিত্যকে দুটো ভাগে ভাগ করলে যেমন সাহিত্যের একটা অংশ শুধুমাত্র রবীন্দ্রনাথ নিজেই এবং বাদবাকি অংশ গোটা বাঙালি লেখক । তেমনি অভিজিৎ রায়ের জীবনকাল আরেকটু দীর্ঘ হলে বাঙলা ভাষার বিজ্ঞানমনস্ক লেখকের এক বিশাল অংশ অভিজিৎ রায়-ই যে নির্ধারিত হতেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না । তবুও এই অল্পমাত্র জীবনকালে তিনি যা লিখেছেন , তাতে বুঝি সৃষ্টিকর্তা নামক মানবসৃষ্ট এক হিংস্র পশুর বসে থাকার স্থানটা কেঁপে উঠেছে বার-বার । তাই তার পবিত্র হত্যাকারী-খুনি অনুসারীরা আমার মতন পাঠকদেরকে বঞ্চিত করল এক বিশাল জ্ঞানভান্ডার থেকে ।

রাজনীতিবিদদের কাছে একেকটা ভোটের মূল্য দেশমাতৃকার সম্মান আর ইজ্জতের চাইতে ঢের বেশি । তাই অভিজিৎ রায়ের খুনিরা ধরা পড়ছে না আইনের অনুভূতিপ্রবন পাতলা জালে । নির্বাচনের কিছুদিন আগে যদি সেই সব মানবসৃষ্ট সৃষ্টিকর্তা নামক পশুর অনুসারী কেঁচোদেরকে ধরতে পারে পুলিশ-প্রশাসন, তবে গলা উঁচু করে নেতারা ভাষণ দিতে পারবেন । আর কিছু নাস্তিক-মুক্তমনাদের ভোটের ছাঁপও হয়ত পড়বে তাদের নির্বাচনী হাতি-ঘোড়া মার্কার ওপর । আর যদি খুনিরা ধরা না পড়ে শাস্তি না পায়, তবুও একেবারে সোনায় সোহাগা রাজনৈতিক মহল । তাতে করে অন্তত ধার্মিকদের ভোটের সংখ্যা বেড়ে যাবে একলাফে । তাই যত খুশি চিল্লাও , যত বড় খুশি ইস্যু বানাও , ফয়দা শেষ অবধি রাজনৈতিক দেবতাদের ।
এইসব ভাবতে গিয়ে বার বার শরীর শিউরে ওঠে কষ্টে । আর নতুন কোন ব্লগ কিংবা বইয়ের ওপর লেখক হিসেবে থাকবে না লেখক অভিজিৎ রায়ে র নামটি । এটা আমার মতন হাজার পাঠকের দীর্ঘশ্বাস ।

তবে যদি বাঙলাদেশের সরকার-প্রশাসন অভিজিৎ রায়ের লেখা বইয়ের পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করে, তবে সেটা কিছুটা হলেও ন্যায় বিচার হবে । জানি, কথাটা শুনতে খাপছাড়া লাগছে । তাছাড়া বাঙলাদেশের মতন কুসংস্কারাচ্ছন্ন দেশে এরম ভাবাটাও বোকামি , কিন্তু অন্দকার দূর করার জন্য আলো হাতে আমরাই হতে পারি একেকজন অভিজিৎ । অভিজিৎ রায়ের বই উপহার দিন প্রিয় মানুষদের । দেখবেন কিছুটা হলেও অন্ধকার পথে আলো হাতে এগিয়ে যাবেন আপনি । বারবার একটা কথা সবাই বলে,
“ব্যাক্তিকে হত্যা করা যায়, আদর্শকে নয় । ”
তাই আসুন অভিজিৎ রায়ের আদর্শ ছড়িয়ে দিই দিকে-দিকে । দেখবেন, একদিন ঠিকই অন্ধত্ব দূর হবে বাঙলাদেশের ।

২ thoughts on “প্রতীক্ষা – হাজার অভিজিৎ ফিরে আসার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *