নেই

বেশ আগেকার কথা।
তখন আমি সদ্য লেকচারার হয়ে ওঠা শুরু করেছি।প্রতিদিন ছাদে যেতাম বিকেলবেলা। গিয়ে মাত্র ক্লাস ওয়ানের একটা পিচ্চি কে প্রায় ঘন্টাখানেক লেকচার দিতাম।আমার প্রথম মুগ্ধ শ্রোতা (এবং খুব সম্ভবত একমাত্র) ছিল সেই-ই,নাম অর্পিতা।
সেই বাড়ি থেকে চলে এসেছি তাও আজ বহুদিন। তবু হঠাৎ হঠাৎ খুব দুপুরে উদাস সময় পার করতে করতে মনে পড়ে এরকম খুঁটিনাটি নীরিহ মানুষগুলোকে,যাদের সাথে ভালবাসার সম্পর্কে কখনো কোন চাওয়া-পাওয়া ছিল না।

বেশ আগেকার কথা।
তখন আমি সদ্য লেকচারার হয়ে ওঠা শুরু করেছি।প্রতিদিন ছাদে যেতাম বিকেলবেলা। গিয়ে মাত্র ক্লাস ওয়ানের একটা পিচ্চি কে প্রায় ঘন্টাখানেক লেকচার দিতাম।আমার প্রথম মুগ্ধ শ্রোতা (এবং খুব সম্ভবত একমাত্র) ছিল সেই-ই,নাম অর্পিতা।
সেই বাড়ি থেকে চলে এসেছি তাও আজ বহুদিন। তবু হঠাৎ হঠাৎ খুব দুপুরে উদাস সময় পার করতে করতে মনে পড়ে এরকম খুঁটিনাটি নীরিহ মানুষগুলোকে,যাদের সাথে ভালবাসার সম্পর্কে কখনো কোন চাওয়া-পাওয়া ছিল না।
আমরা ফেসবুকিং করি,স্ন্যাপচ্যাট করি,ইনস্টাগ্রামে একাউন্ট খুলি।টুইট করি হাজার হাজার বার্তা। নতুন কোন সোশ্যাল সাইট এলেই উইপোকার মত হুমড়ে পড়ি। ভালবাসার মানুষগুলোকে ধরে রাখার কি আপ্রাণ চেষ্টা আমাদের!অথচ খুঁজে ফেরার এই অদ্ভুত শেকলকে ফাঁকি দিয়ে আমরা শুধু হারিয়েই যাই একে অপরের থেকে।
অলস দুপুরের অদৃশ্য সঙ্গই বুঝি আজ মহাকালের সার্থকতা!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *