সে যাই হোক খেলা কিন্তু জমজমাটের দিকে, মাঠ ইরাক সিরিয়া। হয়ত এই খেলার নাম হতে পারে থার্ড ওয়ার্ল্ড ওয়ার

১৯১৪ সালের ২৮শে জুন, গাভরিলো প্রিন্সিপ নামক একজন বসনীয় সার্ব বিপ্লবী, অস্ট্রো-হাঙ্গেরীয় সাম্রাজ্যের ক্রাউন প্রিন্স আর্চডিউক ফ্রাঞ্জ ফার্দিনান্দ কে ভোগে পাঠায়।

এইত খেলা শুরু
জার্মানি, অস্ট্রিয়া-হাঙ্গেরি সাম্রাজ্য, উসমানীয় খেলাফাত ও বুলগেরিয়া
এক পক্ষ তাদের বলা হয় কেন্দ্রীয় শক্তি।

১৯১৪ সালের ২৮শে জুন, গাভরিলো প্রিন্সিপ নামক একজন বসনীয় সার্ব বিপ্লবী, অস্ট্রো-হাঙ্গেরীয় সাম্রাজ্যের ক্রাউন প্রিন্স আর্চডিউক ফ্রাঞ্জ ফার্দিনান্দ কে ভোগে পাঠায়।

এইত খেলা শুরু
জার্মানি, অস্ট্রিয়া-হাঙ্গেরি সাম্রাজ্য, উসমানীয় খেলাফাত ও বুলগেরিয়া
এক পক্ষ তাদের বলা হয় কেন্দ্রীয় শক্তি।
অপর দিকে ফরাসী সাম্রাজ্য, বৃটিশ সাম্রাজ্য, রুশ সাম্রাজ্য, ইটালি,গ্রীস,রোমানিয়া,জাপান সম্রাজ্য, চীন দিয়ে আর এক পক্ষ এদের বলা হয় মিত্র শক্তি।
খেলা জমেছিল অন্যরকম এক খেলা। ক জন মরেছিল, নিখোঁজ হয়েছিল এই তথ্যটা না হয় নাই দিলাম, কারন আমি জানি ওটা সত্যি তথ্য নয়, যা লেখা হয় তার চেয়ে অনেক অনেক অনেক বেশি লোক মারা গিয়েছিল ঐ খেলায়।

এই হল মানব জাতির ভয়ংকর ইতিহাসের একটি ক্ষুদ্রাংশ, কিন্তু ভবিষ্যৎ কি এই কু-পথেই যাচ্ছে?
ইরাক সিরিয়াতে আইএস নামক এক ভূত কে বধ করতে জোট বেধেছে
৩৫ টি মুসলিম আধ্যুষিত দেশ।
সৌদি রাজ পরিবার বলছে আমরা মার্কিন ঈশ্বরের অপেক্ষায় আছি কখন তারা অনুমতি দিবেন তখনেই ঝাঁপিয়ে পড়ব। ইয়েমেনে হামলা চালাতে তো ইতিমধ্যেই মনে হয় সৌদদের খোদা, মহান মার্কিন সরকার অনুমতি দিয়ে দিয়েছেন, আর সৌদ পরিবারেরও ক্ষোভ আছে ইয়েমেনিদের উপর সে ইতিহাস পুরাণ ঘটনা। আলী আর মুয়াবিয়া ক্ষমতার যুদ্ধ, আলী হত্যা আলির ছেলেদের হত্যা, শিয়া সুন্নি উদ্ভব।
এখন খালি মারার পালা।
এই আইএস কে বধ করতে পরাক্রমশালী ইউরোপীয় ইউনিয়ন যুদ্ধ করতে পারে সৌদের পক্ষে, এছাড়াও রয়েছে চিপ এইডস ভাইরাস(থুক্কু) এডভাইজার ইসরায়েল তারাই হলো ইইউ,ইউএসএ, সৌদ-তুর্কি-মুসলিম বিশ্ব জোট এই সব পক্ষের বুদ্ধি দাতা ও প্রযুক্তি দাতা।

ঠিক একই জিনিস মানে আইএস ভূত দমন করতে ইতিমধ্যেই মাঠে নেমে গেছে শিয়া ইরান ও কম্যুনিষ্ট রুশ ঐক্য। ধমা ধম বোম পড়ছে, পটা পট স্কুল,কলেজ,আইএস,হাস্পাতাল সবেই ধ্বংস হচ্ছে। সে যেন এক ধ্বংসের মহাযজ্ঞ।

এত আলোচনার মাঝে একটা ব্যাপার আনতেই ভুলেগেছি। তিনি হলেন সিরিয়ার স্বৈরাচারী রাষ্ট্রপতি বাসার আল আসাদ এই লোকটাই হল বালুর পিরামিড যাকে কেউ দাড় করাতে মরিয়া কেউ আবার গুড়িয়ে দিতে প্রস্তুত।

সে যাই হোক খেলা কিন্তু জমজমাটের দিকে, মাঠ ইরাক সিরিয়া।
হয়ত এই খেলার নাম হতে পারে থার্ড ওয়ার্ল্ড ওয়ার।

১ thought on “সে যাই হোক খেলা কিন্তু জমজমাটের দিকে, মাঠ ইরাক সিরিয়া। হয়ত এই খেলার নাম হতে পারে থার্ড ওয়ার্ল্ড ওয়ার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *