বাংলাদেশ অ-১৯ দলের প্লেয়ার সালেহ আহমেদ শাওন গাজী এভাবে বলতে পারেন কি?

“ইন্ডিয়া টিন্ডিয়া যাই আসুক কারোরি কোন টাইম নাই”
-বাণীতে টাইগার স্পিনার সালেহ আহমেদ শাওন গাজী
.

“ইন্ডিয়া টিন্ডিয়া যাই আসুক কারোরি কোন টাইম নাই”
-বাণীতে টাইগার স্পিনার সালেহ আহমেদ শাওন গাজী
.
শাওন যথেস্ট সাহসিকতার সাথে কথাটা বলেছে ভাললাগছে যে ইয়ংদের মধ্যে সেইরাম স্প্রিট কাজ করে এগুলোর দরকার আছে হ্যা যথেস্ট দরকার আছে।তবে কথা কিন্তু থেকেই যায় এতো দল থাকিতে শাওনের মাথায় ইন্ডিয়ার নাম কেনো আসলো? কারন তো অবশ্যই আছে আর সেই কারন টাই হলো শাওনরা জানে বাংলাদেশের যুবাদের কেউ যদি হারানোর ক্ষমতা এই মুহুর্তে রাখে সেটা কেবল ইন্ডিয়ান যুবারাই। আর সবাই শাওওন কে যথেস্ট বাহবা দিচ্ছেন তার সাহসিকতার জন্যে বাট কেউ কি খেয়াল করেছেন যে তার এই ‘ইন্ডিয়া টিন্ডিয়া’ বলার এক্সপ্রেশন এর মধ্যে ইন্ডিয়াকে যথেস্ট ভয়ই পাচ্ছে সে বা তারা সেটা ফুটে উঠেছে।সে একজন ভবিষ্যত স্টার অফ বাংলাদেশ ক্রিকেট তার এভাবে মিডিয়ার সামনে ‘ইন্ডিয়া টিন্ডিয়া’ বলাতে যারা আপ্লুত হচ্ছেন আমি মনে করবো তারা আবেগের বশেই খেই হারিয়ে ফেলতেছেন।যাইহোক ব্যাপার নাহ ধরুন শাওন ই ঠিক পথে আছে।
.
ধরুন বাংলাদেশ হবেই বলছি না ধরেন বাংলাদেশ হেরেই গেলো তারপরে আপনি নিজেই যে এখন শাওওনের কথায় ওকে মাথায় নিচ্ছেন সেই যে ওকে মাথা থেকে আছাড় দিববেন না সেটার গ্যারান্টি কি? বা ওর উপ্রে বিভিন্ন মিডিয়ার আলোচনা গুলা কেমন হবে বা ওই নিজেই বিভিন্ন মাধ্যমে কতটা ট্রলের শিকার হবে, তখন আপনিই যে বলবেন না যে শাওনের পাকনামি করা ঠিক হয় নাই? যাইহোক এইসব পর্যায়ে কাউকে মিডিয়ার সামনে ব্যাঙ্গ না করে স্লেজিং করার ইচ্ছা থাকলে মাঠে নেমে যথার্থতার সাথে করতে হবে।বাট মিডিয়ার সামনে এই বাচ্চা মানুষী হুয়াই?
.
যাইহোক কেউ খারাপ ভেবে কস্ট নিবেন না সবাই তো ওকে মাথায় নিয়ে ডিসকো স্টার্ট করছেন আমি নাহয় সমালোচক হয়ে থাকি পরেই মাথায় উঠাবো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *