ধর্ম ও রাষ্ট্র বিরোধী বই ছাপানো বন্ধ হোক।

একজন ক্ষতিকর মানুষ সমাজের যতটা ক্ষতি করতে পারে।
তার চেয়ে এক’শ গুন বেশী ক্ষতি করতে পারে সেই মানুষটির লেখা একটি বই।
হুমায়ূন আহমেদ….

বাংলা একডেমীর মহাপরিচালক ড. শামসুজ্জামান খান প্রকাশকদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন- কোন ধরনের উস্কানিমূলক ও ধর্মীয় বিদ্বেষসূচক বই প্রকাশ করবে না।
রাষ্ট্র ও ধর্মকে কটাক্ষ করা হয় এমন কোন বই বইমেলায় ছাপানো যাবে না।
বইমেলার নীতিমালা ১৩ এর ১৩ অনুচ্ছেদে বলা হচ্ছে- অশ্লীল ও রুচিগর্হিত বই প্রকাশ করলে স্টল বরাদ্দ বাতিল করা হবে।
সেই সঙ্গে আর কোনো সময় সেই স্টলকে বরাদ্দ দেওয়া হবে না।

এদিকে দুঃখের বিষয় এই যে-

একজন ক্ষতিকর মানুষ সমাজের যতটা ক্ষতি করতে পারে।
তার চেয়ে এক’শ গুন বেশী ক্ষতি করতে পারে সেই মানুষটির লেখা একটি বই।
হুমায়ূন আহমেদ….

বাংলা একডেমীর মহাপরিচালক ড. শামসুজ্জামান খান প্রকাশকদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন- কোন ধরনের উস্কানিমূলক ও ধর্মীয় বিদ্বেষসূচক বই প্রকাশ করবে না।
রাষ্ট্র ও ধর্মকে কটাক্ষ করা হয় এমন কোন বই বইমেলায় ছাপানো যাবে না।
বইমেলার নীতিমালা ১৩ এর ১৩ অনুচ্ছেদে বলা হচ্ছে- অশ্লীল ও রুচিগর্হিত বই প্রকাশ করলে স্টল বরাদ্দ বাতিল করা হবে।
সেই সঙ্গে আর কোনো সময় সেই স্টলকে বরাদ্দ দেওয়া হবে না।

এদিকে দুঃখের বিষয় এই যে-
বাংলা একাডেমির মহাপরিচালকের এত সুন্দর উদ্যোগে হিংসে শুরু হয়ে গেছে কিছু নাস্তিক গোষ্ঠীর।
তারা বাংলামেইল পত্রিকায় নিউজ করেছে “‘উসকানিমূলক বই’ বক্তব্যে ফেসবুকে নিন্দার ঝড়।

ঠিক আছে তবে দেখা যাক, কারা কারা আছে বইমেলায় ইসলাম সহ সব ধর্ম বিদ্বেষী বই বন্ধ করার পক্ষে।
আমি আপনাদেরকে বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক ড. শামসুজ্জামান খানের ফেসবুক আইডি দিলাম (আইডি লিঙ্ক- https://goo.gl/rGYfof )।
আপনারা সবাই মেসেজ করুন।
তার বক্তব্যের জন্য তাকে শুভেচ্ছা জানান এবং বলেন- ‘বইমেলায় ইসলাম বিদ্বেষী সহ সকল ধর্ম বিদ্বেষী বই প্রকাশ না হোক’ এটার পক্ষে আপনিও আছেন।

আমার ধর্ম যেমন আমার কাছে বিশ্বাসযোগ্য, তেমই আমার অপাশের ব্যক্তির ধর্মও তার কাছে বিশ্বাসযোগ্য।
কারও ধর্মকে হেয় করা হোক তা আমরা চাইনা।
অর্থাৎ তাকে বুঝিয়ে দিন শামসুজ্জামান খানের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ঝড় উঠেনি, বরং তার বক্তব্যের পক্ষেই ঝড় উঠেছে।
নয়ন দাদা কাটছিট করেছি

১ thought on “ধর্ম ও রাষ্ট্র বিরোধী বই ছাপানো বন্ধ হোক।

  1. আপনার ধর্মগ্রন্থেই অন্য ধর্ম,
    আপনার ধর্মগ্রন্থেই অন্য ধর্ম, বর্ণ, গোষ্টিকে কটাক্ষ করা হয়েছে অসংখ্যবার। কোরান বা ইসলাম অন্য কোন ধর্মকে মেনে নেয়নি। কোরান ও হাদিস হচ্ছে সবচেয়ে বড় উস্কানীমূলক বই। যে বইয়ের উস্কানীতে আজ সমগ্র বিশ্ব সন্ত্রাবাদের চাষাবাদ চলছে। বইমেলা থেকে এই ধরনের উস্কানীশূলক বই প্রত্যাহার করার দাবী করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *