দেশে গত ৫০ বছরে কোন দাঙ্গা হয় নি…………………..

পক্ষকাল আগে মাননীয় প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা বলেছেন- বিগত ৫০ বছরে দেশে কোন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ঘটে নি। আমি উনার সাথে সম্পূর্ন একমত। সত্যিই তো বাংলাদেশে কোন দাঙ্গা হয় নি। বাংলাদেশে যা হয়েছে সেটাকে আমরা বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলতে পারি। কোথাও প্রতিমা ভাংচুর, ধর্ষন অথবা নির্যাতনের মতো ঘটনা তো বিচ্ছিন্ন ঘটনাই। যেসব উপাদান থাকলে আমরা একটা ঘটনাকে দাঙ্গা বলতে পারি, তা কখনোই উপস্থিত ছিল না। দুটি পৃথক গোষ্ঠীর নির্মমতা, নৃশংসতার রুপ যখন পরস্পরের বিরুদ্ধে চরম পর্যায়ে পৌছায়, তখনই এটাকে দাঙ্গা বলা হয়। উপমহাদেশের ইতিহাস অনেক দাঙ্গার স্বাক্ষী। হিন্দু মুসলমানের রক্তে লেখা দাঙ্গার ইতিহাস। মানুষকে কচুকাটা করা, জীবন্ত পোড়ানো, ত্রিশুলে গেঁথে নৃত্য, ধর্ষন এসব বীভৎস্য ঘটনার স্বাক্ষি প্রতিটি দাঙ্গা। বাংলাদেশে এরকম কোন ঘটনাই ঘটে নি। যেটা ঘটেছে সেটাকে আমরা নির্যাতন বলি। যা পত্রিকার ভাষায় ‘সংখ্যালঘু নির্যাতন’ বলা হয়। বাংলাদেশের হিন্দুরা হয় অনেক ভালো নয়তো ইঁদুর সমগোত্রীয়। কারন একের পর এক মার খেয়ে চুপ করে থাকা নিতান্তই গোবেচারা বা কাপুরুষের দ্বারাই সম্ভব। স্বাধীনতার পর এদেশে প্রায় ১৫% হিন্দু থাকলেও বর্তমানে তা ৫% এ এসে ঠেকেছে। কিছুদিন পরে হয়তো অনুবীক্ষন যন্ত্র দিয়ে খুঁজতে হবে। প্রতিটি নির্বাচনের সময় সংখ্যালঘু নির্যাতন ঐতিহ্য হয়ে দাড়িয়েছে। যেই ক্ষমতায় আসুক হিন্দুরা মার খায়, এটাই তাদের নিয়তি। পুর্নিমাদের আর্তনাদে বাতাস ভারী হয়ে উঠে। মন্দির প্রাঙ্গনে পড়ে থাকা নিষ্প্রান মুর্তিগুলো দিকে তাকিয়ে থাকা পুরোহিতের অসহায় ভয়ার্ত মুখখানি প্রতিটি সংখ্যালঘুর ভিতরের প্রতিচ্ছবি।
তিনি আরো বলেছেন- বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। মাননীয় প্রধান বিচারপতি এটা একটু বেশি হয়ে গেল না? সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কাকে বলে? যে মানুষগুলো ৪৭ এর দেশভাগ কিংবা ৭১ এর যুদ্ধের সময় ভিটেমাটি কামড়ে পড়ে ছিল, আজকে তারাই সবকিছু ছেড়ে অনিশ্চিতের পথে পা বাড়াচ্ছে। আপনার কি মনে হয় এটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য? তাদের চোখের কোনে টলমল করা জলের ভাষা কখনো বুঝতে পেরেছেন কি? ওহ্ আপনারা তো উচু তলার মানুষ। এই নিচুতলার গৌরাঙ্গ কিংবা পুর্নিমাদের চিৎকার কখনো আপনাদের কানে পৌছায় না। ভারতে বাবরি মসজিদ ভাঙ্গার পর এদেশের হিন্দুদের উপড় দিয়ে স্টীম রোলার চালানো হয়েছিল। রামুর বৌদ্ধ মন্দির ও বৌদ্ধ পল্লীতে সাম্প্রদায়িকতার আগুনের লেলীহান শিখা এখনো আতঙ্ক ছড়ায়। এগুলো কি সাম্প্রদায়িক সম্প্রিতীর জন্য? মাননীয় বিচারপতি আপনাকে মনে হয় মালাউন ডাকটা শুনতে হয় নি? কিংবা কোন বন্ধুর মুখে উপহাসমূলক ‘শালা হেন্দু’ও শুনতে হয় নি? কিন্তু আপনি জানেন কি এদেশের অধিকাংশ হিন্দু এসব শুনতে শুনতে বড় হয়। এসবই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নিকৃষ্ট উদাহরন।
এদেশের অধিকাংশ হিন্দুর দিনকাটে আতঙ্কের মধ্যে। পান থেকে চুন খসলেই তারা ভয় পেয়ে যায়। কোন সরকার কোন প্রশাসন তাদের কোন নিরাপত্তা দিতে পারে নি। তারপরেও কি আপনি বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ বলবেন?
বিগত ৫০ বছরে দেশে কোন দাঙ্গা হয় নি, এটা সত্য। আবার এটাও সত্য, দেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন চরম মাত্রায় হয়েছে, হচ্ছে এবং এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতেও হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *