ভোগবাদী বিজ্ঞাপন ও সমাজের বিবর্তন ৷

টিভির পর্দায় চোখ রাখলেই বিজ্ঞাপনের বাহার!! কোম্পানি তার প্রোডাক্ট বিক্রির জন্য বিজ্ঞাপন দেবে সেটাই স্বাভাবিক ৷ কিন্তু কিন্তু সে বিজ্ঞাপন আপনাকে অসম্ভব রকমের ভোগবিলাসী করে তুলবে সেটা কাম্য নয় ৷
প্রথমত শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপন দিয়েই শুরু করি..
একটা সময় ছিলো যখন বাংলার মা বোনেরা এটেল মাটি কিংবা খৈল দিয়ে চুল পরিষ্কার করতো ৷ পরবর্তীতে সাবানের ব্যবহার শুরু হলো ৷ তারপর বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু বাজারে এলো ৷ এ পর্যন্তও ঠিক আছে ৷ কিন্তু যখন বাচ্চার জন্য, মহিলার জন্য এবং পুরুষের জন্য আলাদা আলাদা শ্যাম্পু কিনতে হয় তখন আমাদের দেশের মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্তদের জন্য কষ্টকরই হয় বটে ৷

টিভির পর্দায় চোখ রাখলেই বিজ্ঞাপনের বাহার!! কোম্পানি তার প্রোডাক্ট বিক্রির জন্য বিজ্ঞাপন দেবে সেটাই স্বাভাবিক ৷ কিন্তু কিন্তু সে বিজ্ঞাপন আপনাকে অসম্ভব রকমের ভোগবিলাসী করে তুলবে সেটা কাম্য নয় ৷
প্রথমত শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপন দিয়েই শুরু করি..
একটা সময় ছিলো যখন বাংলার মা বোনেরা এটেল মাটি কিংবা খৈল দিয়ে চুল পরিষ্কার করতো ৷ পরবর্তীতে সাবানের ব্যবহার শুরু হলো ৷ তারপর বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু বাজারে এলো ৷ এ পর্যন্তও ঠিক আছে ৷ কিন্তু যখন বাচ্চার জন্য, মহিলার জন্য এবং পুরুষের জন্য আলাদা আলাদা শ্যাম্পু কিনতে হয় তখন আমাদের দেশের মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্তদের জন্য কষ্টকরই হয় বটে ৷
আপনার সংসারে যখন প্রতিমাসে প্রসাধনী বাজেট ছিলো বড়জোর ১ হাজার টাকা এখন আপনি দুহাজার টাকায়ও কূল পাচ্ছেন না ৷
বিজ্ঞাপন খুব সযত্নে আপনার মাথায় ভোগবাদিতা ঢুকিয়ে দিচ্ছে কিন্তু আপনি টেরও পাচ্ছেন না!!

আগের দিনে বউকে যখন দু টাকার আলতা আর চুল বাধার ফিতা এনে দেওয়া হতো তখন সে তাই নিয়ে খুশি থাকতো ৷ কিন্তু এখন ৫০০টাকার প্রসাধনী দিলেও মুখ গোমরা করে থাকে ৷ তখন এতো প্রসাধনী ছিলোনা এটা ঠিক ৷ কিন্তু তাই বলে তারা কী সুন্দরী ছিলোনা!!!
ফেয়ার এন্ড লাভলীর কথাই ধরুন, এরা নিচুমানের কুৎসিত ধারনা আপনার মনে ঢুকিয়ে দিচ্ছে আপনি কালো এ সমাজে আপনার জায়গা নেই ৷ নিজের জায়গা করে নিতে চাইলে ফর্সা হউন ৷
এবার আসি ইলেট্রনিক পণ্যে ৷ টিভির কথাই ধরুন, সিআরটি মনিটরের দিন শেষ!! এখন এলসিডি এলইডি টিভি না হলে আপনি ব্যাকডেটেড ৷ গ্রামাঞ্চলেও এখন ঘরে ঘরে ফ্রিজ না হলেই নয় ৷ প্রয়োজন নেই কিংবা কেনার সামর্থ্য নেই তবুও কিনতে হবে ৷ পাশের বাড়ির অমুক কিনেছে তাই আমাকেও কিনতে হবে ৷
আমরা যে কতটা বিকৃত অসুস্থ প্রতিযোগীতায় নেমে পড়েছি সেটা কল্পনাও করছিনা ৷

আগে একটা ছেলে বিয়ে করতে চাইলে একটা চাকরী আর পঞ্চাশ কিংবা এক লাখ টাকা হলেই হতো কিন্তু এখন আর তা হয় না ৷ বিয়ে করতে হবে বলিউড ষ্টাইলে নয়ত ষ্টাটাস থাকবেনা!! দেখা যায় বিয়ের টাকা যোগার করতেই ছেলে বুড়ো হয়ে যায় ৷
মেয়ে বিয়ে দিতে গেলেও পাত্র পক্ষের দাবী মেটাতে হয়,তাদের কিচ্ছু চাইনা শুধু ছেলেকে একটা বাইক টিভি ফ্রিজ আর ঘর সাজিয়ে দিতে হবে ৷ এগুলো মাথার ভিতর কিভাবে ঢুকেছে? বিজ্ঞাপন ছাড়া অন্যভাবে? অবশ্যই না ৷

সবশেষে একটা বাস্তব ঘটনা বলি, আমার আমার প্রেমিকার আমার সাথেই বিয়ে হবে সেরকমই কথা ছিলো কিন্তু তার বান্ধবীদের যখন বিত্তবান পুরুষদের সাথে বিয়ে হতে লাগলো তখন তারও ভোল পাল্টাতে লাগলো,কথায় কথায় বলতো ওর স্বামীর R15 বাইক আছে ৷ অমুক আজ ফ্লাট কিনেছে,অমুককে আজ গ্যালাক্সি নোট ২ গিফট করেছে ৷ ওরা মালয়েশিয়া হানিমুনে গেছে ৷ আর আমি গরীবের ছেলে ও তখনও ছাত্র ৷
কিছুদিন পর প্রেমিকার মেরিন ইন্জিনিয়ারের সাথে বিয়ে হলো যার শহরে দুটো বাড়ি আছে ৷
সে সুখে আছে কিনা জানিনা, তবে মাঝেমাঝে লোকমুখে শুনি সে নাকি ভূল করেছে বিয়েটা করে ৷ আগে ছেলেমেয়েরা প্রেম করে সাদামাটা একটা সুখের সংসারের স্বপ্ন দেখতো আর এখন প্রেমও করে কর্পোরেট সংসারের স্বপ্নটাও থাকে ভোগবিলাসীর ৷
তবে সবাই যে এমন তা নয়,এর ব্যাতিক্রমও আছে তবে সেটা খুবই নগন্য ৷৷

১ thought on “ভোগবাদী বিজ্ঞাপন ও সমাজের বিবর্তন ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *