Happy Ending

ছেলেটা ছোট্ট করে একটা মেসেজ পাঠিয়ে
মেয়েটাকে
বললোঃ
“আমাদের মনে হয় ব্রেক আপ করে ফেলা
উচিত !!”
অমনি মেয়েটা ভেঙ্গে পড়লো … তার ৩ বছর
ধরে একটু
একটু করে বুনতে থাকা স্বপ্নের নকশিকাঁথার মাঝে
মুখ
গুজে সে কাঁদতে থাকলো … তার রঙ্গিন
স্বপ্নের সুতো
দিয়ে বানানো ঐ নকশিকাঁথাটা হুট করে রং হারিয়ে
বিবর্ণ হয়ে গেলো … চোখের জলের
কোন রং নাই !!
আমার ছোট্ট এক ভাই সেদিন আমাকে জড়ায়ে
ধরে কেঁদে
ফেললো … তার স্কুল লাইফ থেকে চলতে থাকা
রিলেশন
ভেঙ্গে গেছে … মেয়েটা নাকি তারই বন্ধুর হাত
ধরে
চলে গেছে … ছেলেটার চোখের নিচে কালি,
বিধ্বস্ত
অবস্থা … ভীষণ মায়া হলো দেখে … সামনে তার
ভর্তি

ছেলেটা ছোট্ট করে একটা মেসেজ পাঠিয়ে
মেয়েটাকে
বললোঃ
“আমাদের মনে হয় ব্রেক আপ করে ফেলা
উচিত !!”
অমনি মেয়েটা ভেঙ্গে পড়লো … তার ৩ বছর
ধরে একটু
একটু করে বুনতে থাকা স্বপ্নের নকশিকাঁথার মাঝে
মুখ
গুজে সে কাঁদতে থাকলো … তার রঙ্গিন
স্বপ্নের সুতো
দিয়ে বানানো ঐ নকশিকাঁথাটা হুট করে রং হারিয়ে
বিবর্ণ হয়ে গেলো … চোখের জলের
কোন রং নাই !!
আমার ছোট্ট এক ভাই সেদিন আমাকে জড়ায়ে
ধরে কেঁদে
ফেললো … তার স্কুল লাইফ থেকে চলতে থাকা
রিলেশন
ভেঙ্গে গেছে … মেয়েটা নাকি তারই বন্ধুর হাত
ধরে
চলে গেছে … ছেলেটার চোখের নিচে কালি,
বিধ্বস্ত
অবস্থা … ভীষণ মায়া হলো দেখে … সামনে তার
ভর্তি
পরীক্ষা … সে কোথাও চান্স পাবে না, মোটামুটি
নিশ্চিত সে !!
চারপাশে হাজারটা ভাঙ্গার গল্প শুনি … সম্পর্ক
ভাঙ্গে, স্বপ্ন ভাঙ্গে এবং ভাঙ্গে মানুষগুলাও …
পৃথিবীর যে কোন বাক্যই ভেঙ্গে পড়া
মানুষগুলার
কাছে “সান্ত্বনাবাক্য” বলে মনে হবে, এইটাই সত্যি
… যত যাই বলা হোক, তারা বলেঃ
“ভাইয়া, আমি ওকে ছাড়া থাকতে পারবো না !!”
“জানেন, ওর জায়গায় আমি কখনোই কাউকে বসাতে
পারবো না !!”
“আমি আর বিয়েই করবো না !!”
“ওকে ছাড়া আমার বেঁচে থাকার অর্থ নাই !!”
কথাগুলা এখনের জন্য খুবই সত্য … কেউ যখন
জীবনের
কোন একটা পর্যায়ে কাউকে নিয়ে স্বপ্ন
দেখে, সে ঐ
জায়গায় আর কাউকেই কল্পনা করতে পারে না …
সে
কখনো কল্পনাও করতে পারে না যে ঐ মানুষটা
কখনো
চলে যেতে পারে … কিন্তু মানুষ চলে যায়
একদিন !!
এই চলে যাওয়াটা সহ্য হয় না কারো … কেউ কেউ
জীবনটা শেষ করে দেয় … কেউ কেউ
বেঁচে থাকে কষ্ট
নিয়ে … কেউ কেউ বিয়ে না করার সিদ্ধান্ত নেয়

কেউ কেউ পাগল হয়ে যায় !!
আচ্ছা, ধরো তুমি একটা বই পড়ছো … গল্প … খুব
সুন্দর
একটা গল্প … ২০ পৃষ্ঠা পড়ার পর একটা দুর্ঘটনা ঘটে
গেলো গল্পের মাঝে … তুমি ভয়াবহ কষ্ট
পেলে … টপ
টপ করে বইয়ের পাতা ভিজতে লাগলো …
তারপর ?? …
তুমি কি বইটা বন্ধ করে রেখে দাও ?? … বইটা
ফেলে
দাও ?? … পুড়িয়ে দাও ??
না তো … তুমি চোখের পানি মুছে বইটা পড়তে
থাকো …
তোমার বাকি গল্পটুকু জানতে ইচ্ছে করে …
তারপর
হয়তোবা গল্পের শেষে গিয়ে তোমার মুখে
মুচকি একটা
হাসি ফুটে উঠে … হয়তোবা খুব চমৎকার একটা
“হ্যাপি
এন্ডিং” তোমার গল্পের মাঝের কষ্টটুকু ভুলিয়ে
দেয় !!
জীবনটা একটা গল্প … সৃষ্টিকর্তা খুব যত্ন নিয়ে
সবার জীবনের গল্প লিখেছেন … মাঝে একটু
ধাক্কা
খেয়েই গল্পটা শেষ করে দিতে হয় না … দাঁতে
দাঁত
চেপে এগিয়ে যেতে হয় … গল্পের শেষ
পর্যন্ত দেখতে
হয় … সৃষ্টিকর্তা তোমার জন্য “হ্যাপি এন্ডিং”
রাখতেই পারেন … অবশ্যই রাখতে পারেন !!
তুমি একটুখানি কাঁদো, একটুখানি কষ্ট পাও, দুইটা
কষ্টের গান শুনে একটুখানি দুঃখবিলাস করো … তুমি
কয়েকটা রাত না ঘুমিয়ে কাটাও কিংবা কয়েকদিনের
জন্য চুপচাপ হয়ে যাও … কিন্তু তারপর চোখটা মুছে
আবার ঠিকঠাক হয়ে যাও … আর কারো জন্য না,
নিজের
জন্যই ঠিক হয়ে যাও … গল্পের শেষটা দেখতে
হবে
তোমার … মাঝপথেই গল্প শেষ করলে হবে না
… শেষের
হাসিটুকুর জন্য তোমাকে ধৈর্য্য ধরতেই হবে …
কারণঃ
“There is Always a Happy Ending … If it’s Not
Happy, Then it’s Not The End !!”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *