কৌশল গত ভুলে পঁচছে আ’লিগ, এবং মুখমুখি হিন্দু মুসলিম সম্প্রদায়।

আজ বিবিসির নিউজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন তালেবুল এলেম(মদ্রাসা ছাত্র) কে পুলিশ গুলি করে হত্যা করেছে মর্মে সংবাদ বেরিয়েছে সেখানে। পরে একটি পত্রিকার অনলাইনে সেই থানার দু-জন উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় জানলাম, সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) তাপস রঞ্জন বোস, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকূল চন্দ্র বিশ্বাস।

এই দুজনের বিরুদ্ধে মাদ্রাসার মুয়াল্লিমদের অভিযোগও বেসি।

আজ বিবিসির নিউজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন তালেবুল এলেম(মদ্রাসা ছাত্র) কে পুলিশ গুলি করে হত্যা করেছে মর্মে সংবাদ বেরিয়েছে সেখানে। পরে একটি পত্রিকার অনলাইনে সেই থানার দু-জন উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় জানলাম, সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) তাপস রঞ্জন বোস, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকূল চন্দ্র বিশ্বাস।

এই দুজনের বিরুদ্ধে মাদ্রাসার মুয়াল্লিমদের অভিযোগও বেসি।
এখানে ভাবনার বিষয় এই যে, দেশে হিন্দু জনসংখ্যা ৭% এর কম অথচ থানা গুলোতে খুজলে দেখা যাবে অধিকাংশ পুলিশ কর্মকর্তা হিন্দু ধর্মের অনুসারী। আর দেশের পুলিশের ইমেজ পুর্বেকার সকল অবস্থাকে ছাড়িয়ে চরম সংকটে গিয়ে ঠেকেছে। চাঁদাবাজি থেকে শুরু করে মাদক পাচার টাকার বিনিময়ে মানুষ খুন সহ বিভিন্ন অভিযোগ আসছে। এ ছাড়া টাঙ্গাইলে ধর্ষনের বিচার চেয়ে আন্দোলনে সাধারণ মানুষ কে গুলি করে হত্যা। বিরোধী আন্দোলন ঠ্যাকাতে মিছিলে গুলি করে হত্যা। মিডিয়া কর্মিদের উপর হামলা।

দেশের অনলাইন এক্টিভেটদের বিনি কারনে ধরপাকড় সহ নানান অভিযোগ তাদের বিরিদ্ধে।
এমনত পরিস্থিততে হিন্দু মুসলিম বিরধটা চরমে উঠার মুহুর্তে দাঁড়িয়ে আছে। যদিও সকল অপরাধ হিন্দু পুলিশরাই করছে না, বা একটা দুটি ছাড়া বাকি সব অপরাধেই মুসলিম পুলিশ সদস্যই করছে। কিন্তু দেশের অল্পশিক্ষিত লোকগুলোর কাছে এই হিন্দু পুলিশ বাড়ানোর ব্যাপারটা নেতিবাচক ভাবে প্রচার করতে মোটেই কালক্ষেপণ করছে না বিরোধীরা।
দল হিসেবে আ’লিগ পচার কারণ কি এটাই? না আসলে শুধু একটি কারণ নয়, আমি একটি কারণ বলেছি আর যেটা শক্তিশালী কারণ।
এখানে,
তারা ইচ্ছে করেই দেশে হিন্দু পুলিশ বাড়িয়েছে তারা যানে যে দেশে সাধারণ মানুষ জামাতের মত একটি মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী দলের প্রতি বেস সহানুভুতিশিল। তাদের ব্যার্থতা এটা যে সাধারণ মানূষের কাছে জামাত কে অজনপ্রিয় করার মত কাজ করতে তারা ব্যার্থ হয়েছে। তারা প্রকাশ্য দেশের প্রচলিত সংস্কৃতির বিরোধিতাকারি ও সাধারণ বাঙালীদের বিশ্বাসকে নিয়ে কটাক্ষ কারিদের সমর্থন করেছে। মুলত এই কাজটিই জামাতের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীভুমিকায় থাকা কালো ইমেজ কে সাদা করতে ভুমিকা রেখেছে।
পরিস্থিতি এমন পর্যায় গিয়ে ঠেকেছে যে দেশের মানুষ প্রকাশ্য বলে যে আ’লীগ একটি এন্টি-ইসলামিক পার্টি অথচ বঙ্গবন্ধুর আমলে দেশে সরকারি ভাবে ইসলামী অনেক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।
এ পরিস্থিতিতে আমি আ’লিগ কে প্রশ্ন করতে চাই আপনারা কি বঙ্গবন্ধুর চেয়ে বেসি ধর্মনিরপেক্ষ ? যদি তাই হতেন তবে ৭১ এর মত লোক জন কে কই একতা বদ্ধ তো করতে পারলেন না? তখন হিন্দু মুসলিম বাঙালী অবাঙালী(চাকমা বাদে) সবাইকে নিয়ে তিনি কত সুন্দর একটা ঐক্য গড়েছিলেন। অথচ এখন দেশে ঘুরে দেখুন আপনাদের ইমেজ কোথায়, বুঝে বলুক আর না বুঝে বলুক মানুষ এখন বলে আ’লীগ একটি উগ্র ইসলাম বিরোধী দল!!
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট অনুরধ, দলের ইমেজ ফিরিয়ে আনুন, এটা বঙ্গবন্ধু, ভাসানির দল। আমি যেহেতু বাঙালী আমার এই আ’লিগের প্রতি একটা ভালবাসা থাকলেও থাকতে পারে তবে লোকের কাছে পঁচতে পারি জেনে তা প্রচার করি না।

৪ thoughts on “কৌশল গত ভুলে পঁচছে আ’লিগ, এবং মুখমুখি হিন্দু মুসলিম সম্প্রদায়।

  1. ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনার জন্য
    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনার জন্য দায়ী মাদ্রাসা-কর্তৃপক্ষ। আর পুলিশের ব্যর্থতাও আছে। অন্যকিছু নয়। আপনাকে ধন্যবাদ।

  2. হিন্দু ও ভারত এই ছেলেটির চরম
    হিন্দু ও ভারত এই ছেলেটির চরম শত্রু । ভাই মানুষের সাথে মানুষের বিরোধটা শান্তির বার্তা বহন করে না । এক সময় মানুষ প্রকৃতি ও হিংস্র পশুদের সাথে লড়াই করে এই অবদি এসেছে ,এখন যদি আমরা আমরা কামড়া কামড়ি করি তবে মানুষ রইল কে ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *