চুম্বনের ১০ তথ্য!

চুম্বন ভালো নাকি মন্দ? সেই উত্তর এক অব্স্থার প্রেক্ষীতে অন্য হয়ে যায়। বিশ্বজুড়ে এর ওপর রীতিমত গবেষণা চলছে, আর প্রকাশ পাচ্ছে ভিন্ন ভিন্ন মতামত। ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে সম্প্রতি চুম্বন নিয়ে ১০টি তথ্য প্রকাশ করা হয়। চলুন এবার জেনে নেয়া যাক।

ডানপন্থী

চুম্বন ভালো নাকি মন্দ? সেই উত্তর এক অব্স্থার প্রেক্ষীতে অন্য হয়ে যায়। বিশ্বজুড়ে এর ওপর রীতিমত গবেষণা চলছে, আর প্রকাশ পাচ্ছে ভিন্ন ভিন্ন মতামত। ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে সম্প্রতি চুম্বন নিয়ে ১০টি তথ্য প্রকাশ করা হয়। চলুন এবার জেনে নেয়া যাক।

ডানপন্থী
মার্কিনি পরিসংখ্যান জানাচ্ছে, আমেরিকান মহিলাদের অধিকাংশই বিয়ের আগে প্রায় ৮০ জন পুরুষকে চুম্বন করে ফেলেন। বিশ্বের দুই তৃতীয়াংশ প্রেমিক, প্রেমিকা চুম্বনের সময় তাদের মাথা ডানদিকে হেলিয়ে থাকে। ৬৬ শতাংশ লোক (নারী-পুরুষ নির্বিশেষে) চুম্বনের সময় নিজেদের চোখ বন্ধ রাখেন। বাকিরা পার্টনারের চোখেমুখের আবেগকে লক্ষ করেন।

চুম্বনে পেশিশক্তি
এক একবারের চুম্বনে মুখের ২৯টি পেশির সঞ্চালন হয়। চুম্বনের সময় ৩৪টি ফেসিয়াল মাসল ও ১১২টি postural মাসেলের ব্যবহার হয়।

নিষিদ্ধ চুম্বন
১৪৩৯ সালে ইংল্যান্ডের রাজা হেনরি সিক্স তার রাজত্বে চুম্বনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। কারণ চুম্বনের ফলে নাকি তার রাজ্যে রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। নিজের প্রেমিকাকে চুম্বনের কারণেও সেসময় জেল হয়েছিল। নাভেদাতে আবার এখনও কোনও পুরুষের গোঁফ থাকলে চুমু খেলে সেটাকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়।

পর্দার চুম্বনে নিষেধাজ্ঞা
বড় পর্দায় প্রথম চুম্বনের দৃশ্য দেখানো হয়১৯২৭ সালে। উইংস নামের এক হলিউডি সিনেমায় প্রথমবার চুমু খান নায়ক-নায়িকা। তবে এরপর থেকে চুম্বনের ওপর নানা নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। পর্দায় প্রেমিক-প্রেমিকা হলে তারা কখনই শুয়ে চুমু করতে পারবে না, স্বামী-স্ত্রী হলে বিছানাতেই করতে হবে, তিন সেকেন্ডের বেশি দৃশ্য থাকা চলবে না। এরকম নানা নিষেধাজ্ঞা জারি করে সেন্সরশিপ রেগুলেশন বোর্ড। ১৯৪৬ সালে নোটোরিয়াস ছবির পর সেসব নিয়ম উঠে যায়। যদিও পরে হলিউডে: টাইটানিক, স্পাইডারম্যান-এর মত সিনেমায় চুম্বনের দৃশ্য তোলাপাড় ফেলে দেয়।

ইতালি সেরা
এক মার্কিন পত্রিকার সমীক্ষায় প্রকাশ চুম্বনের বিষয়ে সবচেয়ে এগিয়ে থাকা দেশ হল ইতালি। তবে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশের প্রেমিক-প্রেমিকাই চুমু খাওয়ার বিষয়ে পারদর্শী নয় বলে সমীক্ষায় প্রকাশ।

ব্যাকটেরিয়া বিনিময়
চুম্বনের সময় দুটো মানুষের মধ্যে ১ কোটি থেকে ১০০ কোটি ব্যাকটেরিয়া বিনিময় হতে পারে।

চুমুতে খরচ সময়
একজন সাধারণ মানুষ তার জীবনের ২টা সপ্তাহ কাটে যায় শুধুমাত্র চুমু খেয়ে।

এই নিয়ে পরামর্শ
চুম্বন বিশেষজ্ঞ-চুম্বনকে নিয়ে বিজ্ঞানকে বলে ‘ফিলেমাটোলজি’। কীভাবে চুমু খাবেন, কেন খাবেন, কতক্ষণ ধরে খাবেন, চুমুর মাধ্যমে প্রেমিক/প্রেমিকার মন কীভাবে জিতবেন এসবই ফিলিমাটোলজি বিশেষজ্ঞরা তাদের ক্লায়েন্টদের পরামর্শ দেন।

আয়ু বাড়াতে চুমু
লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষায় প্রকাশ নিয়মিত চুমু খেলে আয়ু পাঁচ বছর পর্যন্ত বাড়তে পারে। চুম্বন প্রক্রিয়া ক্যালোরি খরচ হয়। চুম্বনের সময় হার্টবিট বেড়ে গিয়ে মস্তিষ্কেও বেশি পরিমাণে অক্সিজেন পৌঁছয়। চুম্বনের ফলে দাঁতেও চট করে প্লাক জমতে পারে না, কারণ মুখগহ্বরে স্যালাইভার পরিমাণ বেড়ে যায়।

চুমুর উপকারিতা
গভীর চুম্বনের সময় প্রায় ৯০ সেকেন্ড ধরে ব্লাড প্রেশার আর পাল্স রেট বেড়ে যায় উত্তেজনায়। এমনকি মিনিটখানেকের জন্য শরীরে কিছু কিছু হরমোনেরও আধিক্য ঘটে। চুমুর ফলে শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, শরীরে ব্যথা কমে, মাথাধরা সেরে যায়, দাঁতের ক্ষয়রোধ করে। [সংগ্রহ : ইন্টারনেট]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *