পরিবর্তন আসছে টেলিযোগাযোগশিল্পে

ব্যাপক পরিবর্তন ঘটতে যাচ্ছে টেলিযোগাযোগশিল্পে। এ বছরই ফোর-জি তরঙ্গ নিলাম ও সারা দেশকে থ্রি-জি নেটওয়ার্কে নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। পরিকল্পনা রয়েছে মোবাইল অপারেটরদের প্রায় সাড়ে ২৬ হাজার টাওয়ারের ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব দেওয়া হবে তৃতীয় পক্ষকে। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি চালু হতে যাচ্ছে বাংলা ডোমেইন (আইডিএন) ডট বাংলা (.বাংলা)। বাংলাদেশে অ্যাডমিন প্যানেল চালুর বিষয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতা হতে পারে এ বছর। এপ্রিলের মধ্যে আঙুলের ছাপ নিয়ে সিম নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ হতে পারে। সরকারের সিদ্ধান্তের বাইরেও বৈশ্বিক প্রযুক্তিগত উন্নয়নের সঙ্গে সংগতি রেখে পাল্টে যাচ্ছে অনেক কিছু। ভয়েস কলের পরিমাণ কমছে; বাড়ছে ডাটার পরিমাণ। সরকারেরপরিকল্পনা রয়েছে ২০১৬ সালে ফোর-জি ও এলটিইর জন্য তরঙ্গ নিলামের ব্যবস্থা করা এবং সরকারের চলতি মেয়াদে এ সেবা চালু করা। সরকারের সিদ্ধান্ত এ বছরই ফোর-জি চালু করা। তার আগে সারা দেশকে ২.৫-জি ও থ্রি-জি নেটওয়ার্কে আনার কাজ শেষ করা হবে। গ্রাহকপর্যায়ে ইন্টারনেট-সংযোগ খরচ আরো কমানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় ওয়্যারলেস কানেক্টিভিটি, দুর্যোগের পূর্বাভাস দেওয়া, সাইবার সিকিউরিটি এবং থ্রিজি সম্প্রসারণের প্রচুর কাজ করা হবে। বিটিআরসি গত বছরের প্রথমার্ধে সিদ্ধান্ত নেয়, মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ারগুলোর ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব তৃতীয় পক্ষের কাছে দেওয়া হবে। সমঝোতার ভিত্তিতে অপারেটররা একই টাওয়ার ব্যবহার করলে এত টাওয়ারের প্রয়োজন হতো না। টাওয়ার ব্যবস্থাপনার বিষয়টিও এ বছরই চূড়ান্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। গত আগস্টে রবি ও এয়ারটেল বাংলাদেশের মালিকরা এক হওয়ার বিষয়ে আলোচনা শুরু করে। গত ৯ সেপ্টেম্বর তারা যৌথ বিবৃতি দেয়। বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী গত নভেম্বর পর্যন্ত রবির গ্রাহক দুই কোটি ৮২ লাখ এবং এয়ারটেলের গ্রাহক এক কোটি তিন লাখের বেশি। এক হওয়ার পর প্রায় চার কোটি গ্রাহক নিয়ে এটি হবে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর। পাঁচ কোটি ৬৪ লাখ গ্রাহক নিয়ে শীর্ষে রয়েছে গ্রামীণফোন। আর তিন কোটি ২৯ লাখ গ্রাহক নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলালিংক। কিছু বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অনুমোদনের পর প্রতিষ্ঠান দুটির একীভূত হওয়ার কাজ সম্পন্ন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *