৫ জানুয়ারি কর্মসূচির নামে তারা কি করতে চায়……?

বিএনপি রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে কোন ধরনের সন্ত্রাস ও নাশকতা করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সরকার উচিৎ তা কঠোর ভাবে প্রতিহত করা। বিএনপি-জামায়াত গণতন্ত্র হত্যার জন্য অনেক নাশকতা ও সন্ত্রাস করেছে। জনগণ তার সমুচিত জবাব দিয়েছে। জামায়াতের শীর্ষ স্থানীয় এক নেতা প্রায় দেড় কোটি টাকাসহ গ্রেফতার হয়েছে। আর টাকাসহ জামায়াত নেতা গ্রেফতারের মাধ্যমে প্রমাণ হয় বিএনপি-জামায়াত ৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে দেশে আবারো সন্ত্রাস ও নাশকতা করতে চায়। বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে দেশের গণতন্ত্র রক্ষা পেয়েছে। কেননা দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন না হলে অশুভ শক্তি ক্ষমতায় আসত। আর তাই দেশের জনগণ সদ্য সমাপ্ত পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি জামায়াতকে প্রত্যাখান করেছে। বিএনপি নেত্রী ভালো ভালো কথা বললেও বিএনপির আন্দোলন করার মতো ক্ষমতা নেই। কারণ বেগম খালেদা জিয়ার শিরদাড়ায় যেমন শক্তি নেই, তেমনি বিএনপির শিরদাড়াতেও কোন শক্তি নাই। বিএনপি পাকিস্তানের ভাবধারায় বিশ্বাস করে এবং আইএসআইয়ের এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। তাই দেশের জনগণ বিএনপির সাথে নেই। রাজনীতিতে ভুল করে ক্ষমা চাওয়ার অনেক দৃষ্টান্ত আছে। অনেক বড় বড় রাজনীতিবিদ তাদের ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়েছিলেন। তাই আপনাদের প্রতি অনুরোধ- দয়া করে জনগণের কাছে যান, তাদের কাছে আপনাদের ভুল-ত্রুটির জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতির ধারায় ফিরে আসুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *