একজন লিওন ও রাবি দর্শন

না,সানি লিওন নন,সাজ্জাদ লিওন।সৌন্দর্যটা সানি নিওনের চেয়ে কোন অংশেই কম নয়।সৌন্দর্যের প্রশংসার ক্ষেত্রে নাকি সবচেয়ে দামি কথা “আমি আপনার বিপরীত লিঙের হলে আপনার সাথে প্রেম করতাম।ভাইয়াকে একথাটা বলা হয়েছে(মনেমনে,প্রকাশ্যে বলার সাহস হয়নি)

উদার মানসিকতা অর্জন, কপটতা বিসর্জন,প্রিয়জন সমৃদ্ধ করার প্রাঙন হলো বিশ্ববিদ্যালয়
(অন্তত আমি মনে করি)

রাবিতে ভর্তি হতে এসে মুগ্ধ হয়েছিলুম তার সৌন্দর্য আর বিশালতা দেখে। মনে প্রশ্ন জেগেছিলো বিশালতায় ভরপুর এই প্রাঙনে ক্ষুদ্রমনাদের আস্ফালনের উৎস কোথায়?


না,সানি লিওন নন,সাজ্জাদ লিওন।সৌন্দর্যটা সানি নিওনের চেয়ে কোন অংশেই কম নয়।সৌন্দর্যের প্রশংসার ক্ষেত্রে নাকি সবচেয়ে দামি কথা “আমি আপনার বিপরীত লিঙের হলে আপনার সাথে প্রেম করতাম।ভাইয়াকে একথাটা বলা হয়েছে(মনেমনে,প্রকাশ্যে বলার সাহস হয়নি)

উদার মানসিকতা অর্জন, কপটতা বিসর্জন,প্রিয়জন সমৃদ্ধ করার প্রাঙন হলো বিশ্ববিদ্যালয়
(অন্তত আমি মনে করি)

রাবিতে ভর্তি হতে এসে মুগ্ধ হয়েছিলুম তার সৌন্দর্য আর বিশালতা দেখে। মনে প্রশ্ন জেগেছিলো বিশালতায় ভরপুর এই প্রাঙনে ক্ষুদ্রমনাদের আস্ফালনের উৎস কোথায়?

রাবিতে প্রথম পরিচয় হয়েছিলো লিওন ভাইয়ার সাথে,একজন সাহসী মানুষ। প্রচলিত ধারাকে যারা ওভারকাম করে পথ চলেন তাদের প্রতি আমার রয়েছে গভীর শ্রদ্ধাবোধ। ভাইয়া আমার দেখা বিপরীত স্রোতের প্রথম মানুষ।

জাতির ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য প্রয়োজন স্রোতের প্রতিকূলে সাতার কাটতে জানা একঝাাক সংঘবদ্ধ তরুণের।

শহীদ রাজিব হায়দার,অভিজিৎদারা বামধারাকে দাড় করাতে চেয়েছিলেন শক্তিশালী একটা ভিতের উপর। যুক্তি ও বুদ্ধিভিত্তিক কর্মকান্ডে এগিয়ে নিয়েছিলেন বামধারাকে অনেকটা পথ। স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন সমৃদ্ধ দেশ গড়ার।

ধর্মের প্রতি রুঢ় মনোভাবের একটি কারন বিভক্ত মতভাদের পাশাপাশি পরস্পর অনমনীয় মনোভাব।বামধারাগুলো এ খুত মুক্ত,ধারণায় ফাটল ধরিয়ে দিয়েছে লিওন ভাইয়ার বুর্জোয়া নাসিক্যতাবাদী সংজ্ঞা।

কল্যাণকর দেশ গড়ায় যেমন প্রয়োজন নিস্কলুষ বামধারা।শক্তিশালী বাম বলয় অসম্ভব লিওন ভাইয়াদের শতভাগ পরিপূর্ণতা ছাড়া।লিওন ভাইয়াদের সংঘবদ্ধতায় রাবি মুক্তি পেতে পারে ক্ষুদ্রমনাদের আস্ফালন থেকে।

ভাইয়া,আপনার বাইরের সৌন্দর্য ভিতরে প্রবাহিত হয়ে এক হয়ে যাক রাবির বিশালতা আর সৌন্দর্যের সাথে।

২ thoughts on “একজন লিওন ও রাবি দর্শন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *