নাশকতা এড়াতে ধর্মীয় উপাসানালয়ে সিসিটিভি

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্যোগে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করার লক্ষে নগরীর বড় বড় মসজিদ, মন্দির ও মাজারে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু করা হয়েছে।দর্শনার্থী বা সাধারণ মানুষের বেশে এসব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে ঢুকে দুষ্কৃতিকারীরা যেন কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে না পারে এজন্য নগর পুলিশের এ উদ্যোগ।প্রথমে যেসব ধর্মীয় উপাসানালয়ে জনসমাগম বেশি হয় সেখানে ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। পরে পর্যায়ক্রমে নগরীর বড় ধরনের মসজিদ, মন্দির, প্যাগোডা, গীর্জা, মাজারগুলোতে ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।স্রম্পতি দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় এক সপ্তাহের মধ্যে দুইটি মন্দিরে হামলা, বগুড়ায় শিবগঞ্জে শিয়া মসজিদে হামলার ঘটনা,চলতি বছরের ৪ঠা সেপ্টেম্বর বায়েজিদ বোস্তামি থানার বাংলাবাজারে মাজারে ঢুকে ল্যাংটা ফকির ও আবদুল কাদের নামে দু’জনকে নৃশংসভাবে জবাই করে খুন করা হয়।এর প্রেক্ষিতে চট্টগ্রামে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলায় সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত সত্যি প্রশংসার দাবীদার।ক্যামেরা স্থাপনের পুরো কাজটি মনিটরিং করছে নগর পুলিশ। এ কাজে খরচ বহন করছে মসজিদ বা মন্দির কর্তৃপক্ষ। এছাড়া পুলিশ ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে ক্যামেরা মনিটরিংয়ের কাজ করবে।ইতিমধ্যে নগরীর বেশির ভাগ আবাসিক এলাকা সিসিটিভি‘র আওতায় এসেছে।

১ thought on “নাশকতা এড়াতে ধর্মীয় উপাসানালয়ে সিসিটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *