জঙ্গি হামলার ভয়ে এবারের বই মেলা সন্ধ্যে বেলাতেই বন্ধ হবার আশংকা

৫৭ ধরার পেছনে আসলে কি কাজ করছে একবার কেউ ভেবে দেখেছেন কি ? যেটা এখন বাস্তব ও সত্য, ফেইস বুকে লেখা পড়তে গেলে বা লিখতে গেলেই সরকারের কাছে পরিচয় পত্র দাখিল করতে হবে আর সেই ভাবেই ফেইস বুক নিয়ন্ত্রণের জন্যে সরকার ফেইস বুক কর্তৃপক্ষের কাছে আবদার জানিয়েছেন, তেমনি হয়তো কিছুদিন পর বাজার থেকে বই কিনতে গেলে সাথে পুলিশ প্রহরার প্রয়োজন হবে, এমন দিনও আসতে পারে যেদিন পরিচয় পত্র দাখিল করে সরকারকে জানাতে হবে কে কোন বই কিনছে বা পড়ছে, কবি দাউদ হায়দার, তসলিমা নাসরিন, এক গাদা ব্লগার আজ নির্বাসনে, দেশ থেকে সৃজনশীল পাঠক ও লেখক সমাজকে হয়তো কিছুদিন পর নির্বাসনে পাঠানো হবে | সন্ধ্যে বেলা বই মেলাতে বই কিনতে যাওয়া একদিন ইতিহাসের পাতা থেকে জানতে হবে |
সন্ধ্যে বেলাতেই আমাদের দেশে ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলো জমে উঠে, ধর্মীয় উপাসনালয় গুলোতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা যুগের পর যুগ পূজা পর্বন, মুসলমানরা ওয়াজ মাহফিল, জিকির অনুষ্ঠান ও ওরস শরীফের আয়োজন করে থাকে তখন কিন্তু জঙ্গি হামলার আশংকা করে এসব বন্ধ করে দেবার জন্যে আদেশ নির্দেশ দেয়া হয় না |
বাংলাদেশের পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বাবুরা, মন্ত্রী পরিষদের ব্যক্তিবর্গ, রাজনীতিবিদ অনেকেই মাঝে মাঝে চিৎকার চেঁচামেচি করে বলে থাকেন বাংলাদেশে কোন জঙ্গি নেই, কিন্তু তাই বলে মানুষের মাঝে জঙ্গি হামলার ভয় ভীতি নিরসনের কোনই লক্ষণ পরিলক্ষিত হচ্ছে না |
বই মানুষকে শিক্ষার আলো দেয়, সৃজনশীল সমাজ গঠন করে, বই হচ্ছে পৃথিবীর সব চাইতে মূল্যবান জিনিস আর আজ কিনা সেই বই মেলাকেই সন্ধেবেলাতেই বন্ধ করে দেবার গুঞ্জন চলছে |

জঙ্গি হামলার ভয়ে তো সন্ধেবেলা মন্দির মসজিদে যাবার জন্যে বাধা দয়া হচ্চ্ছে না ? সন্ধেবেলা পূজা পর্বন আর ওয়াজ মাহফিল বা ওরসের অনুষ্ঠান আয়োজনে বাধা দেয়া হচ্ছে না ? শুধু মাত্র বই, যা নাকি মানুষকে বিকশিত করবে আজ সেই বই মেলাকেই সন্ধ্যে বেলা বন্ধ করে দেবার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে |
সন্ধেবেলা বই মেলা বন্ধ হবার আশংকা মানেই এটি জাতির জন্যে চরম দুর্ভাগ্যের বিষয়, সরকার আজ কতটা নিরুপায় সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না | বইমেলা সন্ধেবেলা বন্ধ করে দেয়ার মানেই হচ্ছে, বাংলাদেশ দেশ হিসাবে কোন কালেই এগিয়ে যাচ্ছে না, বলতে হবে এই দেশ এই সমাজ উন্নয়নের ধ্বজা উড়িয়ে একটি দেশ ও সমাজ কে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছে, সৃজনশীল সমাজ গঠনে সরকার হেরে যাচ্ছে, ধর্মীয় সাম্প্রদায়িকতার কাছে একটি দেশ একটি জাতি অপমানিত হচ্ছে, আত্মসমর্পণ করছে | বই প্রকাশকরা রাস্তার উপর চাপাতির আঘাতে মৃত্যুর কলে ঢোলে পরার মানেই হচ্ছে একটি জাতি আজ অন্ধকারের গহীনে হারিয়ে যাচ্ছে | সব্বাইকে ৫৭ ধারাতে মুখ বন্ধ করে ঠায় দাড়িয়ে থাকতে হবে |
==কিন্তু==

১ thought on “জঙ্গি হামলার ভয়ে এবারের বই মেলা সন্ধ্যে বেলাতেই বন্ধ হবার আশংকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *