হারিয়ে যাওয়া সেই শহর ও তুমি

আজ আমি আমার সেই চিরচেনা শহরে ফিরে এসেছি।
স্কুল জীবনের বন্ধুদের সাথে দেখা করার জন্য। আসলে ছাত্র জীবনের বন্ধুদের ভুলা অসম্ভব। অনেকদিন পর ওদের সাথে দেখা হবে, তাই খুব আনন্দ লাগছে।
সেই পুরানো প্রাইমারি স্কুলের সামনে দাড়িয়ে আছি।
ঝালমুড়িওলা কাকার দোকান টা এখনো আছে, এই দোকানটার অনেক স্মৃতি বিজারিত।
আজ শুক্রবার তাই দোকান টা বন্ধ।
আমিই একটু আগে এসেছি, পুরানো চিরচেনা শহরটা কতখানি বদলে গেছে দেখার জন্য।
আমি দোকানের দিক থেকে ফিরে তাকাতেই একটা মেয়েকে দেখতে পেলাম।
মেয়েটা কে আমি চিনি, তাই ডাক দিয়ে কাছে গেলাম
এই শাম্মী!
আরে রবিন না!
কেমন আছিস?
এইতো ভাল। তুই?
হুমম ভাল।

আজ আমি আমার সেই চিরচেনা শহরে ফিরে এসেছি।
স্কুল জীবনের বন্ধুদের সাথে দেখা করার জন্য। আসলে ছাত্র জীবনের বন্ধুদের ভুলা অসম্ভব। অনেকদিন পর ওদের সাথে দেখা হবে, তাই খুব আনন্দ লাগছে।
সেই পুরানো প্রাইমারি স্কুলের সামনে দাড়িয়ে আছি।
ঝালমুড়িওলা কাকার দোকান টা এখনো আছে, এই দোকানটার অনেক স্মৃতি বিজারিত।
আজ শুক্রবার তাই দোকান টা বন্ধ।
আমিই একটু আগে এসেছি, পুরানো চিরচেনা শহরটা কতখানি বদলে গেছে দেখার জন্য।
আমি দোকানের দিক থেকে ফিরে তাকাতেই একটা মেয়েকে দেখতে পেলাম।
মেয়েটা কে আমি চিনি, তাই ডাক দিয়ে কাছে গেলাম
এই শাম্মী!
আরে রবিন না!
কেমন আছিস?
এইতো ভাল। তুই?
হুমম ভাল।
তোর তো বিকেলে আসার কথা ছিল!
একটু আগেই এলাম।
এই দুপুরে রাস্তাই না দাড়িয়ে বাসাই চল।
না রে। শহরটাতো এখনো দেখাই হলনা!
পরে দেখবি! আগে আমার সংঙ্গে চল।

জানি,জোর করে লাভ হবেনা, তাই ওর পিছু নিলাম।
হুমম।
শাম্মী ও আমার বন্ধু। তবে এখন আমি জানি ও আমার বন্ধুর থেকেও বেশি কিছু।
শাম্মী একটু শ্যামলা। কিন্তু ওর মায়াবি চেহারা আমায় সব সময় পাগল করেছে।
স্কুল জীবনে ওর চোখের দিকে তাকালে আমি হারিয়ে যেতাম।
এই সম্পর্ক কে কি নাম দেওয়া যায়, তখন আমি জানতাম না, কিন্তু এখন জানি।
তারপর কলেজ উঠলাম। কলেজ এ ওঠার পর সব কিছু কেমন যানি এলোমেলো হয়ে গেল। কলেজের সুন্দরি মেয়ে তিশা’র কাছ থেকে প্রপোজ পেলাম।
যা আমি কল্পনাও করতে পারিনি।
হুট করে হ্যা বলে ফেল্লাম।
হ্যা তখন আমি মোহে পরে গিয়েছিলাম।
হয়তো ভেবেছিলাম শাম্মী’র মত কাল মেয়ের জন্য তিশা’র মত সুন্দরি কে হাত ছাড়া করে কি লাভ!.
গতকাল আমার আর তিশার ডিভোর্স হয়ে গেছে, আমার সমস্ত মোহ ভেঙে গেছে।
ফিরে এসেছি আমি আমার ভুলের প্রায়চিত্ত করতে।
ভাবতে ভাবতে কখন যে শাম্মী র বাসায়
চলে এসেছি খেয়ালই করিনি।
শাম্মীর ডাকে হঠাৎ হুশ ফিরল আমার।
কিরে কি ভাবিস?
না, আসলে পুরানো কথা মনে পরছিল।
_____(এমন সময় বাসার ভিতর থেকে একটা আওয়াজ এল। মা। মা)
পুরানো কথা ভেবে লাভ নাই রবিন!
ওটা কি তোর ছেলে শাম্মী!
হুমম।
শাম্মী! আমি আসি রে বিকেলে দেখা হবে।
,
এই বলেই চলে আসলাম, প্রায় পালিয়ে এলাম।
জীবনের শেষ আশা টুকু আজ হারিয়ে গেল!
এখন রাস্তায় আমি একা।
আর রাস্তাও আজ বড় একা!
ভুলের চকে বাধা জীবন, চলছে এখন যেমন তেমন….?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *