ঝিমানি

খালি ঝিমানি আহে।

এক রুম থেইকা আরেক রুমে যাই। এক রুমে এক্কা দোক্কার কোট। সামাজিক গুটি চালাচালি। আরেক রুমে দোলনায় সংসার। দোলনায় দোল খাই, কুশনে পিঠের ভাঁজ আঁইকা রাখি বিহানবৈকালে।

মনডা হয়া রইছে আতরের গুঁড়া। সেই আতর কেউ কিনলো না।

সিঁড়ি দিয়া নামতে গেলে দেখি বুটের আওয়াজ তর্ক করতাছে।

আইচ্ছা, ঘড়িতে কয়টা বাজছে?

ঘড়ির আর হুঁশ নাই। ঘড়ির টুংটাং মিউজিকেরও ঝিমানি আহে।

মাঝেমইধ্যে শুধু শুনি, আমার আত্মা আমারে ছাইড়া হোটেলে বেড়াইতে গেসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *