আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম………………………..

আমি তো মানুষই হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ওরা আমাকে হিন্দু, মুসলিম, খ্রিস্টান বানিয়ে দিল।অথচ আমি তো শুধুই মানুষ হতে চেয়েছিলাম। আমি ধার্মিক- ভন্ড কোনটাই হতে চাই নি। মন্দির, মসজিদ, গির্জা কোথাও যেতে চাই নি। আমি কোন পুতুলের সামনে মাথা নত বা কোন কালা পাথরে চুমু খেতে চাই নি। আমি মালাউন -যবন কোনটাই হতে চাই নি। আমি কাউকে ঘৃনা করতে চাই নি। অথচ ওরাই আমাকে বিধর্মীদের ঘৃনা করতে শেখাল। শেখালো তোমার ধর্মই শ্রেষ্ঠ, বাকি সব কিছুই না। তাদের মানুষও মনে করো না। অথচ আমি এসব কিছুই করতে চাই নি। আমি ব্রাক্ষ্মন, বৈষ্ণব, ইমাম ,পাদ্রী কিছুই হতে চাই নি। আস্তিক-নাস্তিক কিছুই হতে চাই নি। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম।

আমি তো মানুষই হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ওরা আমাকে হিন্দু, মুসলিম, খ্রিস্টান বানিয়ে দিল।অথচ আমি তো শুধুই মানুষ হতে চেয়েছিলাম। আমি ধার্মিক- ভন্ড কোনটাই হতে চাই নি। মন্দির, মসজিদ, গির্জা কোথাও যেতে চাই নি। আমি কোন পুতুলের সামনে মাথা নত বা কোন কালা পাথরে চুমু খেতে চাই নি। আমি মালাউন -যবন কোনটাই হতে চাই নি। আমি কাউকে ঘৃনা করতে চাই নি। অথচ ওরাই আমাকে বিধর্মীদের ঘৃনা করতে শেখাল। শেখালো তোমার ধর্মই শ্রেষ্ঠ, বাকি সব কিছুই না। তাদের মানুষও মনে করো না। অথচ আমি এসব কিছুই করতে চাই নি। আমি ব্রাক্ষ্মন, বৈষ্ণব, ইমাম ,পাদ্রী কিছুই হতে চাই নি। আস্তিক-নাস্তিক কিছুই হতে চাই নি। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম।
আমি নিশ্চই জাত পাত কিছু মানতে চাই নি। অথচ ওরাই আমাকে শেখালো আমি নিচু জাত। আমার স্পর্শেই ওদের জাত যায়। আমি অত্যাচারী কিংবা অত্যাচারিত কোনটাই হতে চাই নি। শোষক- শোষিত কোনটাই হতে চাই নি। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম।
আমি ধনী-গরীব ছোটলোক-বড়লোক কোনটাই হতে চাই নি। ওরাই আমার চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলো আমি কি? ওরাই আমাকে শিখিয়ে দিলো কিভাবে শোষন করতে হয়?
আমি নারী-পুরুষ কিছুই হতে চাই নি। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম। ওরাই আমাকে শেখালো নারীদের চেয়ে পুরুষ শ্রেষ্ঠ।
আমি সাদা-কালো, সুদর্শন-কুৎসিত কিছুই হতে চাই নি। আমি হতে চাই নি বাঙালী, ইন্ডিয়ান কিংবা আমেরিকান। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম।
আমি জেলে, নাপিত কিংবা মেথর কিছুই হতে চাই নি। আমি চাই নি কেউ আমাকে ঘৃনা করুক। কারো ঘৃনার পাত্র নয়, মানুষ হতে চেয়েছিলাম। শুধু ভালোবাসতে চেয়েছিলাম।
আমি সাহত্যিক, দার্শনিক, বৈজ্ঞানিক কিছুই হতে চাই নি। আমি প্রকৃতির কোমলতায় কাঠিন্য আনতে চাই নি। আমি শুধু মানুষ হতে চেয়েছিলাম। আমি পৃথিবীর বুকে কষ্টের চিহ্ন নয়, ভালোবাসার চিহ্ন আঁকতে চেয়েছিলাম।
আমি চোর- ডাকাত, খুনী কিংবা ধর্ষক কোনটাই হতে চাই নি। আমি কারাবদ্ধ হয়ে থাকতে চাই নি। আমি থাকতে চাই ইট পাথরে তৈরি ভবনে। আমি শুধু চেয়েছিলাম প্রকৃতির সাথে মিশে থাকতে। আমি ভালোবাসতে চেয়েছিলাম সবাইকে।

মায়ের গর্ভ থেকে কেউ হিন্দু, মুসলিম বা খ্রিস্টান হয়ে জন্মায় না। জন্ম নিয়েই কেউ চিৎকার করে বলে না- আমি হিন্দু, আমি মুসলমান। কারো গায়ে লেখা থাকে না যে- আমি হিন্দু, মুসলিম। এই ধর্ম দিয়ে ভেদাভেদ সৃস্টি করে দেয় আমাদের এই সমাজ।
জন্ম থেকেই কেউ ঘৃনা নিয়ে জন্মায় না। কেউ উচু জাত- নিচু জাত এই মানসিকতাও নিয়ে জন্মায় না। কেউ খুনী, ধর্ষক হয়েও জন্মায় না। আস্তে আস্তে এই সমাাজ পরিবেশই তাকে অপরাধী করে তোলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *