জ্যোতিষী হইতে সাবধান ,কুকুর হইতে নয়

হ্যাঁ , ভারতীয় হিসেবে গর্ব হয় যখন দেখি চীন মিশর গ্রীস সকল সভ্যতায় জ্যোতিষী’র কথাবার্তা থাকলেও ভারতীয় সভ্যতায় তার ছায়া মাত্র নেই । গ্রীক সভ্যতা বাদ দিলে বাকি সব সভ্যতায় এই জ্যোতিষচর্চা রাজ রাজরাদের বাড়ির বিষয় ছিল । সব রাজায় একজন বা একের অধিক রাজজ্যোতিষী রাখতেন ।

কখন যুদ্ধে যেতে পারলে জয় হবে , কখন সিংহাসনে রাজপুত্রের অভিষেক হবে,কখন রাজকন্যাকে বিবাহ দিলে ভাল হয় -এসব কথা রাজজ্যোতিষীদের গোনা-গোনি করে বলতে হয় । সাধারণ মানুষ ‘রাজাউজির’দের নিয়ে মাথা ঘামাতেন না ।


হ্যাঁ , ভারতীয় হিসেবে গর্ব হয় যখন দেখি চীন মিশর গ্রীস সকল সভ্যতায় জ্যোতিষী’র কথাবার্তা থাকলেও ভারতীয় সভ্যতায় তার ছায়া মাত্র নেই । গ্রীক সভ্যতা বাদ দিলে বাকি সব সভ্যতায় এই জ্যোতিষচর্চা রাজ রাজরাদের বাড়ির বিষয় ছিল । সব রাজায় একজন বা একের অধিক রাজজ্যোতিষী রাখতেন ।

কখন যুদ্ধে যেতে পারলে জয় হবে , কখন সিংহাসনে রাজপুত্রের অভিষেক হবে,কখন রাজকন্যাকে বিবাহ দিলে ভাল হয় -এসব কথা রাজজ্যোতিষীদের গোনা-গোনি করে বলতে হয় । সাধারণ মানুষ ‘রাজাউজির’দের নিয়ে মাথা ঘামাতেন না ।

গ্রীক সভ্যতায় এসে আমরা দেখতে পেলাম জ্যোতিষ বিষয়টা আটপৌরে চরিত্র ধারণ করছে ।সাদামাটা মানুষরাও জ্যোতিষ নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে । ভালমন্দ জানতে তারা জ্যোতিষীর কাছে যাচ্ছে । নিশ্চয়ই সেই যুগে কোন কারসাজি ছিল । রাজার বাড়ির আচার বাইরে ছড়াতে পারলে ব্যবসা বাড়ে অনেক । বুদ্ধি খাটিয়ে একদল মানুষকে এই কাজ করতে হয়েছে । যেখানে মানুষেরবসতি সেখানেই জ্যোতিষীর আলোচনা করতে হয়েছে ।

বিজ্ঞানের ইতিহাস পড়লে আমরা দেখি , গ্রীস দেশের পণ্ডিতেরা একটা বিষয়ে খুব অহংকার করতেন । কি বিষয়? গ্রীক আগে নাকি পৃথিবীতে কোথাও ‘বিজ্ঞান’ ছিল না । কি ছিল তবে ? ওঁর বলেন-‘জ্ঞন’ ছিল , বিজ্ঞান ছিল না । আমরা জানি কথা দুটির মানে আলাদা । জ্ঞান বলতে কত কি হতে পারে । বিজ্ঞান বলতে যা খুশি হয় না । নিয়মকানুন মেনে কথা বলতে হয় ।

তবে বলতে চাইছি ,গ্রীক সভ্যতার শেষের দিকে ছিল ব্যাবিলন সভ্যতা ব্যাবিলন শহরকে মাঝে রেখে গড়ে উঠেছিল ।সেই সভ্যতার একজন রাজাছিলেন আলেকজাণ্ডার । আলেকজণ্ডার খ্রীষ্টপূর্ব ৪০০ সালের কাছাকাছি আমাদের দেশ আক্রমন করেন । তখনই ওঁদের দেশ থেকে এইদেশে জ্যোতিষবিদ্যা’র আমদানি ঘটে ।আগে বলেছি আমরা, গ্রীক সভ্যতার আমলে জ্যোতিষচর্চা ঘরেঘরে ঢুকে পড়ে । কোষ্ঠি তৈরি শুরু হয় ।

৩ thoughts on “জ্যোতিষী হইতে সাবধান ,কুকুর হইতে নয়

  1. স্যার ধন্যবাদ আপনাকে । লেখাটা
    স্যার ধন্যবাদ আপনাকে । লেখাটা ছোট কিন্তু ভাল লেগেছে ।

    কি বিষয়? গ্রীক আগে নাকি পৃথিবীতে কোথাও ‘বিজ্ঞান’ ছিল না । কি ছিল তবে ? ওঁর বলেন-‘জ্ঞন’ ছিল , বিজ্ঞান ছিল না

    হ্যা স্যার এ বিষয়ে সম্পূর্ণ একমত না হলেও একেবারেই ফেলে দেয়া যায় না ।গ্রীকরা সেই আমলে বিজ্ঞানে সবচেয়ে এগিয়ে ছিল ।আমি প্রায় খান দুয়েক বই পড়েছি যাতে ফুটে উঠেছে ,তাদের বিজ্ঞানের জ্ঞানের চেয়েও কুসংস্কারে বিশ্বাস ছিল বেশি ।আর এ বিষয়ে ও একমত যে ,গ্রিকদের থেকেই ভারতবর্ষে জ্যোতিষবিদ্যা প্রবেশ করেছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *