দৃশ্যপট ফটিকছড়ি ও তার ব্যাবচ্ছেদ

ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানায় ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে কিছু না লিখে থাকতে পারছি না।
প্রথমেই বলি ভূজপুর ইউনিয়নটি হল জামায়াত শিবির নিয়ন্ত্রিত একটি এলাকা । এই অঞ্চলের অধিকাংশ জনগনই জামায়াত সমর্থক । বিগত দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐ অঞ্চলের ফলাফলই যার প্রমান ।


ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানায় ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে কিছু না লিখে থাকতে পারছি না।
প্রথমেই বলি ভূজপুর ইউনিয়নটি হল জামায়াত শিবির নিয়ন্ত্রিত একটি এলাকা । এই অঞ্চলের অধিকাংশ জনগনই জামায়াত সমর্থক । বিগত দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐ অঞ্চলের ফলাফলই যার প্রমান ।

যেই স্থানটিতে মূল জ্বালাও পোড়াও হইছে সেটি একটি তিন রাস্তার মোড়। যদি মসজিদের মাইকের ঘোষনা শুনে এলাকার মানুষ চারদিকে ব্যারিকেড দেয় তাহলে তাতে অন্তত কিছুটা সময় পাওয়া যেত । যেই সময়ের মধ্যে মিছিলকারীরা ঐ স্থান দ্রুত ত্যাগ করতে পারত । কারন, তারা প্রায় সকলেই মোটর বাইক ব্যাবহার করছিল বাকীরা চাদের গাড়ী, কার ইত্যাদি যানবাহনে ছিল। এছাড়াও ঐ এলাকার একপাশে ছিল হিন্দু পাড়া । ঐ পাশ থেকে ঐ এলাকার এলাকাবাসী আসার সম্ভাবনা কতটুকু তা আশা করি সকলেই বুঝতে পারবেন ।

বাংলাদেশে প্রায় সকল থানায় সরকারদলীয় লোকজন বিশেষ সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকলেও ভূজপুর থানা হতে সদ্য প্রত্যাহার হওয়া ওসি র কাছে বিরোধীদলীয় লোকজন বিশেষ সুবিধা পেতেন বলে জানা যায় । মিছিলের ব্যাপারে পুলিশকে আগে থেকে জানানো হলেও পুলিশের ভূমিকা ছিল প্রশ্নবিদ্ধ । এছাড়াও মসজিদের মাইকে যখন ঘোষনা দেয়া হচ্ছিল তখন পুলিশকে জনগনের বন্ধু আখ্যা দিয়ে কোন প্রকার আঘাত না করতে বলা হয়!

গনপিটুনিতে অনেকেই মারা যায় । সাধারন মানুষ পিটিয়ে মারতে পারে কিন্তু কুপিয়ে মারা একজন সাধারন মানুষের পক্ষে বেশ দুঃসাধ্য একটি ব্যাপার।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য মতে মূল মিছিলে শুধু মোটর বাইক ছিল ৩০০ টি , যার প্রতিটিতে ৩ জন করে যাত্রী ছিল । এছাড়াও বিছিন্ন ভাবে প্রায় অর্ধ শতাধিক মোটর বাইক, চাদের গাড়িতে ৩০০ অধিক কর্মী সমর্থক ছিল । এটা একটা অদ্ভুদ ব্যাপার ১০০০ অধিক কর্মী থাকার পরও তারা কোন প্রকার প্রতিরোধ করতে পারলো না?

ঐ ঘটনার যে ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে তাতে দুই এক জনকে চেনা যাচ্ছে যারা মারামারি এবং হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়েছে এবং তাদের সকলেই ভুজপুর এলাকার বাসিন্দা নয় ।

পরিশেষে , একটি কথাই বলতে হয় আসল ঘটনা যাই হোক না কেন এ ধরনের ঘটনা সত্যিই অত্যন্ত দুঃখজনক । এ ধরনের অসুস্থ রাজনীতি একদিন বন্ধ হবে এ প্রার্থনা করা ছাড়া আর কিই বা করতে পারি ?

১ thought on “দৃশ্যপট ফটিকছড়ি ও তার ব্যাবচ্ছেদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *