তোমরা নারী !!!

***নারী, তোমার শরীর দেখানো ছাড়া কিভাবে পণ্য বিক্রি হবে বলো?!***

নারী তুমি যদি গাড়ির মেলায় স্বল্পবসনে নূতন গাড়ির উপর না বসো তখন গাড়ির কোয়ালিটি বুঝা যায় না।

পুরুষ ক্রিকেটারের জার্সি প্রদর্শনের সময় যদি তুমি অর্ধউলঙ্গ হয়ে পুরুষের সামনে না হাট তখন জার্সির সৌন্দর্য ফুটে উঠেনা।

পিঠা উৎসবে তোমার খোলামেলা নাচ না দেখলে পিঠার মজা জমে উঠেনা।

আরো জানতে চাও?

মোবাইল বলো, জুতা বলো, ল্যাপটপ বলো নূতন প্রোডাক্ট প্রদর্শনের সময় তুমি অর্ধউলঙ্গ হয়ে তোমার শরীর না দেখালে পুরুষের সেই প্রোডাক্ট পছন্দ হয় না।


***নারী, তোমার শরীর দেখানো ছাড়া কিভাবে পণ্য বিক্রি হবে বলো?!***

নারী তুমি যদি গাড়ির মেলায় স্বল্পবসনে নূতন গাড়ির উপর না বসো তখন গাড়ির কোয়ালিটি বুঝা যায় না।

পুরুষ ক্রিকেটারের জার্সি প্রদর্শনের সময় যদি তুমি অর্ধউলঙ্গ হয়ে পুরুষের সামনে না হাট তখন জার্সির সৌন্দর্য ফুটে উঠেনা।

পিঠা উৎসবে তোমার খোলামেলা নাচ না দেখলে পিঠার মজা জমে উঠেনা।

আরো জানতে চাও?

মোবাইল বলো, জুতা বলো, ল্যাপটপ বলো নূতন প্রোডাক্ট প্রদর্শনের সময় তুমি অর্ধউলঙ্গ হয়ে তোমার শরীর না দেখালে পুরুষের সেই প্রোডাক্ট পছন্দ হয় না।

তুমি শ্লোগান না দিলে, সারা রাত পুরুষকে সঙ্গ না দিলে শাহবাগ জমে না, বিজ্ঞাপনে তুমি না থাকলে পুরুষের সেভিং ব্লেডে ধার আসেনা, তোমার শরীরকে মাছের মতো না বানালে এমনকি মৎস্য উৎসবও জমে না!

চিন্তা করে কি দেখেছ কখনো?! তুমি কি দামী?! তোমার শরীরের আকঁবাঁক দেখা পুরুষের প্রতিটি কাজের জন্য কতো প্রয়োজন?!

কি দারুণ এক অনুভূতি?! তাই না?!

এত আনন্দ যে নারী তুমি দিচ্ছ পুরুষকে, সেই পুরুষের নষ্ট লালসা থেকে তোমাকে মুক্ত রাখার প্রস্তাব দিয়েছে মোল্লারা এভাবে, “বেহায়াপনা, অনাচার, ব্যভিচার, প্রকাশ্যে নারী-পুরুষের অবাধ বিচরণ, মোমবাতি প্রজ্বালনসহ সব বিজাতীয় সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে হবে।”

হায় হায়, এটা কি হলো. এটা কি হলো?!

নষ্ট পুরুষের লালসা থেকে নারীকে মুক্ত রাখার প্রস্তাব?! অসম্ভব, অসম্ভব, হতে পারে না, হতে দেয়া হবে না!

নারীর শরীর ছাড়া নষ্টরা চলবে কিভাবে?! ওরা কি তাহলে সেভিং ক্রিম, গাড়ি, ব্লেড, ল্যাপটপ, মোবাইল সহ সব কিছু কিনা বা ব্যবহার করা ছেড়ে দিবে?! ওমা, তাহলে ওদের কি হবে? কারণ প্রতিটি প্রোডাক্টের সাথে যে ওদের নারীর অর্ধ বা পূর্ণ উলঙ্গ ছবি বা ভিডিও লাগে! এখন মোল্লাদের ওই দাবী মানলে নারীকে পণ্য বানাবে কি করে?

না না, এটা মধ্যযুগীয় বর্বর দাবী! এই দাবী মানা যায় না, মানতে দেয়া হবে না! প্রতিহত করা হবে! মোল্লাদের এই দেশ ছাড়া করা হবে! নষ্টদের লালসায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা সরাসরি স্বাধীনতার চেতনার বিরোধী! ত্রিশলক্ষ শহীদের বিনিময়ে পাওয়া এই স্বাধীন দেশে নারীর শরীর না দেখে পণ্য কিনা হবে, উৎসব করা হবে, তা হতেই পারে না!

মোল্লাদের ওই ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এবার তৃতীয় মুক্তিযুদ্ধ শুরু হবে! কি দুঃসাহস! যে নারীর শরীর কামনা তৈরি করে, পণ্যের গুণাগুণ বাড়িয়ে দেয়, উৎসবের আনন্দের পূর্ণতা দেয় সেই নারীকে এসব থেকে মুক্ত রাখার দাবী, কখনোই মানা যায় না! প্রগতিশীল পুরুষের লালসা পুরণে বাঁধা, রাষ্ট্র কখনোই মানতে পারে না!!

৪ thoughts on “তোমরা নারী !!!

  1. এইরকম নারীকে পণ্য বানানো
    এইরকম নারীকে পণ্য বানানো এগুলা তোদের মতো থার্ড ক্লাস পাব্লিকের চিন্তা-ভাবনা। পর্দার তলে বউ আছে না বইন আছে কেমনে বুঝুম? খুলা থাকলে তো বউরেই ধরা যাইব অন্যকাউরে না। তাই পর্দার পড়াইলে ইচ্ছা কইরা অন্যকাউরে ধরলেও পর্দার উছিলায় মাফ পাওন যাইবো।

      1. তাই নাকি? তাইলে বেইখানে না
        তাই নাকি? তাইলে বেইখানে না ল্যাদাইয়া পারলে এইসব কথাগুলান শাহবাগের মোড় কিনবা ঢাবি’র সামনে ক।

        1. কেন কইলে কি করবি?তোদের অগ্লি
          কেন কইলে কি করবি?তোদের অগ্লি কন্নার ইতিহাস শুনলিনা কি কইল।
          আস্তে আস্তে আরও বের হইব।কারা কয়েকটা দিন সময়দে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *