বিদেশি খুন, সংসদ সদস্যের গুলি : দেশ কোন পথে ? হায়দার আকবর খান রনো

বাম রাজনীতিকদের মধ্যে এই লোকটিকে আমার খুব পছন্দ হতো । কিন্তু আজ বাংলাদেশ প্রতিদিনে তিনি কি লিখলেন ? দুটি হত্যা কি দেশের গতিপথ ভিন্ন দিকে নিয়ে যায় ?
এই হত্যাকান্ড জামায়াতের ইন্দনে তাদের অনুসারীরাই করেছে । এতে কোন সন্দেহ নাই । এই কথাটি রনো সাহেব নিজেও খুব ভাল জানেন । আর গণতন্ত্র, হা হা হা, উনি তার লেখায় দেশে গণতন্ত্র নাই বলে ফেনা তুলেছেন । আমি উনার কাছে গণতন্ত্রের সংজ্ঞাটা জানতে চাই ।

বাম রাজনীতিকদের মধ্যে এই লোকটিকে আমার খুব পছন্দ হতো । কিন্তু আজ বাংলাদেশ প্রতিদিনে তিনি কি লিখলেন ? দুটি হত্যা কি দেশের গতিপথ ভিন্ন দিকে নিয়ে যায় ?
এই হত্যাকান্ড জামায়াতের ইন্দনে তাদের অনুসারীরাই করেছে । এতে কোন সন্দেহ নাই । এই কথাটি রনো সাহেব নিজেও খুব ভাল জানেন । আর গণতন্ত্র, হা হা হা, উনি তার লেখায় দেশে গণতন্ত্র নাই বলে ফেনা তুলেছেন । আমি উনার কাছে গণতন্ত্রের সংজ্ঞাটা জানতে চাই ।
উনার সমস্ত লেখায় সরকার আর পুলিশের ব্যর্থতার কথায় লিখেছেন । লাল সালাম বলে কথা । বাংলাদেশে লাল সালাম দেউনেওয়ালারা কখনো আওয়ামী লীগের সাফল্য চোখে দেখেন না । তিনি তার লেখায় আওয়ামী লীগকে নিকৃষ্ট লুটেরা পুঁজিবাদের স্বার্থ রক্ষক এবং গণতন্ত্র ও মানবতাবিরোধী বলে উল্লেখ করেছেন । আচ্ছা ভাই, স্বাধীনতার পর থেকে আপনারা এত ভাল ভাল মধু মাখা বুলি নিয়ে জনগনের মাঝে উপন্থিত হলেন,জনগন কেন আপনাদের গ্রহন করলো না ? কেন আপনারা দিনকে দিন নিচিন্থ হয়ে যাচ্ছেন ? মৌলবাদীদের মত কেন আপনারা এক জায়গায় বসতে পারেন না ? যদি আমি বলি আপনারা আর মৌলবাদীরাই এই দেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য দায়ী । এর কি জবাব আছে আপনাদের কাছে ?
আওয়ামী লীগের দয়ায় রব, ইনু, মেননরা মন্ত্রী হয়েছে । মরহুম সাইফুদ্দিন মানিকরা তাদের জীবনে সবোর্চ্চ ভোট পেয়েছে । তাই এত লম্বা কথা না বলে, লাল সালাম ছেড়ে জয় বাংলায় আসুন । বাংলাদেশে যা কিছু উন্নয়ন তা ঐ বাপ-বেটির (বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা) হাত ধরেই এসেছে । আর আপনাদের লম্বা লম্বা কথা জিয়া, এরশাদের আগমনকে উৎসাহিত করেছে । তার পরিনতি এখন বাংলার জনগন ভোগ করছে ।
ইতিহাস আপনাদেরকে কখনোই ক্ষমা করবে না, হায়দার আকবর খান রনো, কখনোই না ।

৫ thoughts on “বিদেশি খুন, সংসদ সদস্যের গুলি : দেশ কোন পথে ? হায়দার আকবর খান রনো

  1. গনতন্ত্র কাকে বলবেন?১৫৪জন
    গনতন্ত্র কাকে বলবেন?১৫৪জন সাংসদ বিনা প্রতিন্দীতায় নির্বাচিত।গনতন্ত্র মানে কি ভোট ডাকাতি?গনতন্ত্র মানে কি একজন সাংসদ বিনা কারনে নির্বিচারে গুলি চালানো?উন্নয়ন তো অনেক দেখলাম কাজ না করে কোটি কোটি টাকা আত্নসাত।প্রশ্নপত্র ফাঁস,জীবন যাত্রার ব্যায় আয়ের তুলনায় বৃদ্ধি,দুর্নিতি স্বজনপ্রিতি এসব কি উন্নয়ন?

  2. বাংলাদেশে তাহলে এখন গণতন্ত্র
    বাংলাদেশে তাহলে এখন গণতন্ত্র আছে বলছেন? গনতন্ত্রের সংঙ্গা পাল্টে গেছে নাকি? ইনু-মেননকে দিয়ে গোটা বাম কমিউনিটিকে বিচার করা কি ঠিক? তাহলে সম্প্রতি এক শিশুর পায়ে গুলি করা এম্পিকে দিয়ে গোটা আওয়ামীলীগের চরিত্র অনুভুব করা কি যায় না? এম্পি লিটনের ভোগ করা গনতন্ত্রই প্রকৃত আওয়ামী গণতন্ত্র।

  3. ১৯৪৭ এরপর থেকে এই অঞ্চলে
    ১৯৪৭ এরপর থেকে এই অঞ্চলে গণতন্ত্র ছিল কখনো ?
    বাংলাদেশে বামদের কেন জনগন গ্রহন করে না । দূনীতি স্বজনপ্রীতি কি ছিলা না এর আগে । ৯০এর পর খেতে তুলনা করেন । তাহলেই পেয়ে যাবেন সব কিছু । যারা গনতন্ত্রে বিশ্বাস করে তারা কখনো ১৫৪ সংসদ বিনা প্রতিন্দীতায় নির্বাচিত হওয়া নিয়ে প্রশ্ন করে না । কারন এটা গনতন্ত্রেই একটা অংশ । হাসান সরদার ভাই এই যে আপনি এখানে মন্তব্য করতে পেরেছেন এটাও শেখ হাসিনার উন্নয়নের কারনে । আমি তো আগেই লেখেছি, শেখ হাসিনার উন্নয়ন বামদের চোখে পড়ে না ।

  4. ভাই ১৫৪জন সাংসদ বিনা
    ভাই ১৫৪জন সাংসদ বিনা প্রতিন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছে এটা যে গনতন্ত্রের অংশ এটা প্রথম আপনার কাছ থেকে জানলাম।এই কারনে চাইছিলাম না আপনার পোষ্টে মন্তব্য করার।দেশের বামরা আছে জন্যই এখনও কিছুটা দেশীয় স্বার্থ রক্ষা হয় এটা বামদের আন্দোলনের ফসল।

  5. এই বিষয়ে ড. কামাল সাহেব রিট
    এই বিষয়ে ড. কামাল সাহেব রিট করে ছিলেন নির্বাচনের পরপরই তা খারিজ হয়ে গেছে । তাছাড়া এই নির্বাচনের কিছুদিন পরেই আমেরিকা নিম্ন কক্ষে নির্বাচনে ১০০ এর উপরে বিনা প্রতিন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছে । ওটা গণতন্ত্র হলে এটা কেন নয় ? আর বামরা আছে বলেই দেশের কিছুটা স্বার্থ রক্ষা হচ্ছে এটা ঠিক তবে তা চিনা বাম দ্বারা নয় । চিনা বাম দ্বারা দেশের নয়, মৌলবাদীদের স্বার্থ রক্ষা হয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *