‘প্রেম’ সিনেমার শেষ দৃশ্য লাশ অথবা জীবন্ত লাশ

৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্র রাহুল।হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার বরৈউড়ি গ্রামে বসবাস করে।পিতা ফজর আলী ঢাকার বাড্ডায় মুদির দোকানী।
স্কুলে পড়ুয়া অবস্তায় পরিচয় পাশের বাড়ির রিয়ার সাথে।প্রথমে পরিচয় তারপর আলাপন শেষতক গভীর প্রেম।চলতে থাকে দুবছর পর্যন্ত।
এই দু বছরে কত পার্ক,সিনেমা হল,বটের তল একসাথে ঘুরল ওরা,তার কোন হিসেব নোটবুকে লিখার জায়গা পায় নি রাহুল!

রাহুল রিয়ার এতো প্রেমিক ছিলো যে-
ব্লেড দিয়ে নিজের হাতে ‘রিয়া’ খুদাই করে জীবন্ত রাখে প্রেমের তাজমহল।এখনো হাতে ভেসে আছে সে চিত্র।
কিন্তু প্রেম বেশিদিন স্থায়ী থাকে নি।

৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্র রাহুল।হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার বরৈউড়ি গ্রামে বসবাস করে।পিতা ফজর আলী ঢাকার বাড্ডায় মুদির দোকানী।
স্কুলে পড়ুয়া অবস্তায় পরিচয় পাশের বাড়ির রিয়ার সাথে।প্রথমে পরিচয় তারপর আলাপন শেষতক গভীর প্রেম।চলতে থাকে দুবছর পর্যন্ত।
এই দু বছরে কত পার্ক,সিনেমা হল,বটের তল একসাথে ঘুরল ওরা,তার কোন হিসেব নোটবুকে লিখার জায়গা পায় নি রাহুল!

রাহুল রিয়ার এতো প্রেমিক ছিলো যে-
ব্লেড দিয়ে নিজের হাতে ‘রিয়া’ খুদাই করে জীবন্ত রাখে প্রেমের তাজমহল।এখনো হাতে ভেসে আছে সে চিত্র।
কিন্তু প্রেম বেশিদিন স্থায়ী থাকে নি।
জানতে পারে রাহুল রিয়া প্রেম করে হৃদয় নামক অন্যের সাথে…. ভেঙ্গে যায় রাহুলের মন,চুরমার হয়ে যায় বহুদিনের লালিত স্বপ্ন।ধুলিস্যাৎ হয়ে যায় আগত বহু আশা-আখাংকা।জীবিত হয়ে ও পরিনত হয় জীবন্ত লাশে….

প্রেমের শেষ দৃশ্য বানানো জল,চোখের তপ্ত জল,ডুকঢ়ে কাদার আসু দিয়ে।,
প্রেমের শুরু মিষ্ট কিন্তু শেষের দৃশ্য খুবি তিক্ত,বিষণ দুঃখের,খুব কষ্টের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *