চরিত্রের দোষ মেয়েদের একচেটিয়া, পুরুষের ক্ষেত্রে গৌরবের!

একই রকম লেখাপড়া শিখে, একই রকম চাকরি পেয়ে বর এবং বউ যখন দু জায়গায় পোষ্টেড হয়, একজনকে চাকরি ছাড়তে হলে ছাড়বে কে? মেয়েটি।
ধরুন কেউই চাকরি ছাড়লো না, দুজনে দুজায়গায় থাকলো, সপ্তাহান্তে বা মাসাহান্তে দেখা হলো। দুজনের মনেই দুঃখ, সন্তান হলে সে একজনকে মিস করবে। সমাজ বন্ধুবান্ধব, মা বাবা, শশুর শাশুড়ি এই পরিস্থিতির জন্য কাকে দুষবে? মেয়েটিকে।
কার মনে অপরাধবোধ জাগবে? মেয়েটির।
দুজনে এক জায়গায় চাকরি পেলো। চাকরি শেষে সংসার সামলাবে কে? মেয়েটি। সামলাতে না পারলে দোষ হবে কার? মেয়েটির।

একই রকম লেখাপড়া শিখে, একই রকম চাকরি পেয়ে বর এবং বউ যখন দু জায়গায় পোষ্টেড হয়, একজনকে চাকরি ছাড়তে হলে ছাড়বে কে? মেয়েটি।
ধরুন কেউই চাকরি ছাড়লো না, দুজনে দুজায়গায় থাকলো, সপ্তাহান্তে বা মাসাহান্তে দেখা হলো। দুজনের মনেই দুঃখ, সন্তান হলে সে একজনকে মিস করবে। সমাজ বন্ধুবান্ধব, মা বাবা, শশুর শাশুড়ি এই পরিস্থিতির জন্য কাকে দুষবে? মেয়েটিকে।
কার মনে অপরাধবোধ জাগবে? মেয়েটির।
দুজনে এক জায়গায় চাকরি পেলো। চাকরি শেষে সংসার সামলাবে কে? মেয়েটি। সামলাতে না পারলে দোষ হবে কার? মেয়েটির।
চাকরি ক্ষেত্রে কোনো পুরুষ যদি ফষ্টিনষ্টি করে, বস যদি যৌন হেনস্থা করে, মেয়েটির কী করবে? আইনের আশ্রয় নিয়ে সে যদি যৌন হয়রানির অভিযোগ করে, সারা অফিস কার বিরুদ্ধে যাবে? মেয়েটির। কাকে চরিত্রহীন বলবে? মেয়েটিকে।
বিয়ে ভাঙ্গলে দোষ কার? মেয়েটির। বিয়ে না হলে দোষ কার? মেয়েটির।
সমাজের যে মুষ্টিমেয় মেয়ে বাধা অতিক্রম করে বেরিয়ে আসতে চাইছে, রাজনীতি করছে, ইঞ্জিনিয়ার হচ্ছে, পাহাড় চড়ছে, কবিতা লিখছে, নাটক করছে তাদের সামনে এসে দাঁড়ায় নিষেধের তর্জনী। মেয়েটি কী কাজ করছে তার চেয়েও বেশি আলোচ্য হয়ে দাঁড়ায় তার চরিত্র ও চেহারা।
ধর্ষনের শিকার হলে দোষ কার? মেয়েটির।
লাঞ্চিত হলে দোষ কার? মেয়েটির।
খুন হলে দোষ কার? মেয়েটির।
দেশকে স্বাধীন করতে মহান মুক্তিযুদ্ধে যে সকল বীরাঙ্গনা নারী পাকিস্তানী হানাদারদের হাতে পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন, স্বাধীন দেশে সেই সকল নারীকে শুনতে হয়েছিল- ‘মাগি, একাত্তরে তো পাকসেনাদের সাথে শুইছিলি!’ চরিত্রে দাগ তাই অনেকের স্বামীর ঘরেও জায়গা হয়নি।
জন্ম নিয়ন্ত্রনের জন্য ওষুধ না অপারেশন? প্রয়গ হবে স্ত্রীর শরীরে না স্বামীর শরীরে? সিদ্ধান্ত নেবে স্বামী, মেনে নেবে স্ত্রী। না মানলে দোষ কার? মেয়েটির।
সন্তানধারন এবং পালনের যাবতীয় ঝক্কি সহ্য করবে মা, কিন্তু সন্তানের স্বাভাবিক অভিভাবকত্ত্ব পিতার। কিন্তু প্রসব করতে যেয়ে সন্তান মারা গেলে দোষ কার? মেয়েটির।
সফল নারীদের নিয়ে অনেক মানুষের মুখে এমন কুরুচিকর বক্তব্য শোনা যায়, শাড়ীর ফাক দিয়ে কতটা শরীর দেখা যায় তার উপর নির্ভর করে প্রতিষ্ঠানের নেক নজরে পড়া। কোনো এক ব্যাংকার পুরুষ তার নারী কলিগ সম্পর্কেই এমন একটা মন্তব্য করেছিল।
পুরুষ কবি স্তন, যোনী নিয়ে পড়ে থাকলে সেটা শিল্প, আর কোনো নারী যদি লিখে ফেলে সঙ্গম তাহলেই গেল গেল রব উঠবে। পুরুষ সাহিত্যিকদের বহুগামিতা, বেশ্যাগমন, মাদকাশক্তি, ভন্ডামী আমরা দেখেছি, মেনেও নিয়েছি। ও কবিরা এমন একটু আধটু তো করবেই। মেয়েদের বেলাতেই চুন থেকে পান খসলেই বিপদ!

৭ thoughts on “চরিত্রের দোষ মেয়েদের একচেটিয়া, পুরুষের ক্ষেত্রে গৌরবের!

  1. অনেক কিছুই তো লিখলেন আপু।
    অনেক কিছুই তো লিখলেন আপু। কিন্তু মেয়েরা যে ফিল্ম আর মিডিয়াতে নিজেদের সবকিছু বিকিয়ে দিয়ে উপরে উঠে, সেই ব্যাপারে তো কিছুই কইলেন না ?!?

    1. আপনি জানলেন কেমনে এই খবর।
      আপনি জানলেন কেমনে এই খবর। নাকি আপনার কাছে বিকোতে আসেনি বলে জ্বলে মরে মেয়েদের চরিত্র নিয়ে টান দিচ্ছেন

      1. আপনি জানলেন কেমনে এই খবর।

        আপনি জানলেন কেমনে এই খবর।

        এইসব ব্যাপার তো স্কুলের বাচ্চা ছেলেরাও জানে। আপনি না জানার ভান করেন কেন?

        নাকি আপনার কাছে বিকোতে আসেনি বলে জ্বলে মরে মেয়েদের চরিত্র নিয়ে টান দিচ্ছেন

        আমি কি সিনেমার পরিচালক নাকি যে আমার কাছে বিকোতে আসবে? আর ফিল্মের মেয়েদের চরিত্র বলে কিছু থাকলে তো টান দিবো, তাই না? সেইটা না থাকলে টান দিয়াম ক্যামনে।
        মিডিয়ায় নষ্ট হওয়া মেয়েটা আমার নিজের বোনও হতে পারত, সেইভাবেই আমি চিন্তা করি। অবশ্য এসব আপনারে বলে লাভ নেই। আপনার কাছে এসব মানবিক আবেগের কোন মূল্য নেই বলেই মনে হয়।

    2. শেহজাদ আমান…….ভাই… ঠিক
      শেহজাদ আমান…….ভাই… ঠিক বলেছেন.. মেয়েরা বিকিয়ে দেয়…..খুব ভালো একটা মন্তব্য করেছেন………মেয়েরা বিকিয়ে দেয় কার কাছে?…………আর একটি মেয়ের কাছে… নাকি পুরুষ নামক প্রাণীটির কাছে.. যে কি না একটি মেয়ের স্বপ্ন দেখাকে কেন্দ্র করে নিজের কামনা বাসনা চরিতার্থ করে….?… দেখলেন তো… আপনি নিজেও বললেন মেয়েরা সব কিছু বিকিয়ে দেয় উপরে উঠার জন্য… এখানে ও দোষ মেয়েটির… কিন্তু নারীলোলুপ পুরুষ নামক প্রাণীটির কোন দোষ নেই…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *