হেফাজতকারী নাকি ছিনতাইকারী?

গত শনিবার ৬ এপ্রিল এ একুশে টেলিভিশনের সাংবাদিক নাদিয়া শারমিন হেফাজতে ইসলামের হেফাজতকারীদের হামলায় গুরুতর অসুস্থ হন। তার একটাই অপরাধ সে একজন “নারী”। এই হেফাজতকারীদেরকে অন্যভাবে আখ্যায়িত করা যায়। এরা হলো ইসলামের “অবমাননাকারী”। ইসলাম নারীদেরকে পূর্ণাঙ্গ মর্যাদা দিয়েছে। নারীদেরকে আঘাত করার অধিকার দেয় নি। কতটা মস্তিষ্কের বিকৃতি ঘটলে এরা এই ধরণের ঘৃণ্য পাশবিক নির্যাতন করতে পারে, এই হিসাবটা মস্তিষ্কের ক্যালকুলেটরে কষতে পারছি না। হেফাজতকারীদের হাতে লাঠি, ককটেল, অস্ত্র থাকবে কেন? এদের হাতে থাকার কথা তো পবিত্র কুরআন শরীফ ! মানুষকে আঘাত ছাড়া ঐ সকল সারঞ্জাম এর তো কোনো ভূমিকা থাকতে পারে না! শুধু তাই নয়, এই সাংবাদিকের মুঠোফোন ও ব্যাগ ও ছিনতাই করে নিয়েছে হেফাজতকারীদের সদস্যরা। আমার ধারণা, ঐ মুঠোফোন বিক্রি করে কোনো পতিতালয়ে গিয়ে ওরা কাম-বাসনা মিটিয়েছে। তাহলে কি দাঁড়ালো? এদের আরো একটা নাম দেওয়া যায়, এরা “ছিনতাইকারী”।

২ thoughts on “হেফাজতকারী নাকি ছিনতাইকারী?

    1. সূত্র: প্রথম আলো, ৮ এপ্রিল,

      সূত্র: প্রথম আলো, ৮ এপ্রিল, প্রথম পাতা (তালেবানি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার চেষ্টা প্রতিহত করতে হবে)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *