দুই বোকা বুড়োর গল্প শোনো (!)

দুটো কথা আমার জীবনে বিশাল প্রভাব বিস্তার করেছে। চিন্তাধারা, ভবিষ্যত, বত‍র্মান ও অতীত বিচারের কিংবা সিদ্ধান্ত গ্রহণে ব্যপক পরিবত‍র্ন এনেছে।
(১) একমাত্র আত্মকম‍র্ প্রচেষ্টার দ্বারা মানুষ পারে নিজের সাথে ও জগতের সাথে একাত্মতা আনতে- কাল‍র্ মাক‍র্স
(২) পৃথিবীতে কিছুই অসম্ভব নয়, যদি পাহাড় অতিক্রমের দু:সাহস থাকে- মাও সে তুঙ


দুটো কথা আমার জীবনে বিশাল প্রভাব বিস্তার করেছে। চিন্তাধারা, ভবিষ্যত, বত‍র্মান ও অতীত বিচারের কিংবা সিদ্ধান্ত গ্রহণে ব্যপক পরিবত‍র্ন এনেছে।
(১) একমাত্র আত্মকম‍র্ প্রচেষ্টার দ্বারা মানুষ পারে নিজের সাথে ও জগতের সাথে একাত্মতা আনতে- কাল‍র্ মাক‍র্স
(২) পৃথিবীতে কিছুই অসম্ভব নয়, যদি পাহাড় অতিক্রমের দু:সাহস থাকে- মাও সে তুঙ

বলতে গেলে আমার জীবন জুড়ে আছে এই কথা দুটো। তবে আজ নিজের কথা বলতে আসিনি। বলবো দুজন মানুষের কথা, যারা বিরল দৃষ্টান্ত রেখেছে, যাদের সাথেই কথা দুটো এক হয়ে গেছে। একজনের কথা কমবেশি আমরা জানি, আর অন্যজনের কথা এখন জানবে 🙂

নচিকেতার একটা গান আছে-
এক বোকা বুড়োর গল্প শোনো
হাতে নিয়ে গাঁইতি বেধে কোমর.
ছাড়িয়ে গঞ্জ গ্রাম ছাড়িয়ে শহর
ছেলের হাত ধরে এগিয়ে চলে
দূরের পাহাড়টাকে – একাই গাঁইতি হাতে করে দিতে সাফ
সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দল না কেউ বলল সবাই, কর মাফ।
এমন গল্প কেউ বলবেনা কখনো বইয়েতেও লেখা নেই কোনো।
এক বোকা বুড়োর গল্প শোনো…..

এখন মনে হয় গানের কথাটা কিছুটা পরিবত‍র্ন করতে হবে! বলতে হবে দুই বোকা বুড়োর গল্প শোনো!

(১) দশরথ মাঁঝি :ভারতে বিহারের এক পাহাড়ী গ্রামে তাঁর জন্ম । ১৯৬০ সালের দিকে তার স্ত্রী ফাল্গুনী দেবী অসুস্থ হয়, স্ত্রীর চিকিত্সার জন্য স্ত্রীকে নিয়ে শহরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলেন দশরথ মাঁঝি । কিন্তু গ্রাম আর শহরের মাঝখানে আকাশ চুম্বী এক পাহাড় থাকায় পনের কিলোমিটারের পথ প্রায় ৭০ কিলোমিটার ঘুরে যেতে হলো। ফলে সঠিক সময়ে চিকিত্সার অভাবে তাঁর স্ত্রী মারা গেলেন ।
তারপরের শোকগাথা নয় বরং দশরথ মাঝির মানসিক পরিবত‍র্নটাই আলোচনা করা উচিত । তিনি লক্ষ্য করলেন শুধু তাঁর স্ত্রী ফাল্গুনী নয় অসংখ্য ফাল্গুনী এই সমস্যার শিকার, অসংখ্য দশরথ এই কষ্ট বয়ে বেড়াচ্চে প্রতিনিয়ত । সুতরাং এই সমস্যার, এই দৃশ্যপটের পরিবত‍র্ন দরকার। নেমে পড়লেন কাজে, হাতে গাইতি আর বাটাল । আদম্য প্রত্যয় নিয়ে, কারও কোন সাহায্য ছাড়াই একমাত্র আত্মকম‍র্ প্রচেষ্টায়, মানুষের সকল উপহাসকে তুচ্ছ করে একটানা ২২ বছর পাহাড় কেটে তৈরী করলেন রাস্তা ! তিনি পারলেন অগণিত মানুষের কষ্ট দুর করতে ।

(২) রাজারাম ভাপকর : বোকা বুড়ো নাম্বার দুই! ইনি আরও অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন! নিজের পুরো জীবন, সঞ্চয় সব কিছুই দিয়ে দূর করেছেন মানুষের কষ্ট। ভারতের মহারাষ্ট্রের আহমেদনগরে জন্ম, তাঁর গ্রামের নাম গুন্ডেগাঁও। গ্রাম থেকে শহরে যেতে হলেই গ্রামের লোকদের পরতে হতো বিড়াম্বনায়। ত্রিশ কিলোমিটার পথ ঘুরে শহরে যাও, আর নাহয় পাহাড় ডিঙিয়ে যাও! অথচ পাহাড় না থাকলে মাত্র ১০ কিলোমিটার! সরকারী সহযোগীতার আশা স্বাধীনতার পর থেকেই সবাই করে আসছে কিন্তু না, পায় নি ।
মানুষের কষ্ট দূর করার ব্রত নিয়ে কাজে নেমে পড়লেন আর এক বোকা বুড়ো রাজারাম ভাপকর। জীবনের ৫৭টা বছর পাহাড় কেটে তৈরি করে ফেললেন ৪০ কিলোমিটার রাস্তা। নিজের চাকুরী জীবনের পেনশন, রিটাড‍র্মেন্টের টাকা সব দিয়ে দূর করলেন মানুষের কষ্ট ।
এখন আর গ্রাম থেকে শহর দূরে নয় । এখন মানুষ, গাড়ি সবই চলছে অনায়াসে।

এই বোকা বুড়ো দুটো প্রমাণ করে দিয়েছে যে, একমাত্র আত্মকম‍র্ প্রচেষ্টায় মানুষ নিজের ও জগতের সাথে একাত্মতা আনতে পারে, কারণ পৃথিবীতে কোন কিছুই অসম্ভব নয় যদি পাহাড় অতিক্রমের দু:সাহস থাকে।

(বি: দ্র: কিছু বানান ইচ্চে থাকা স্বত্তেও সংশোধন করতে পারছিনা! তবে চেষ্টা করেই যাচ্ছি )

ছবি : আনন্দবাজার পত্রিকা
তথ্যাদি : ইন্টারনেট ভান্ডার

৬ thoughts on “দুই বোকা বুড়োর গল্প শোনো (!)

  1. নিজের দায়িত্ব পালন না করে
    নিজের দায়িত্ব পালন না করে করছেন ভাবালুতা। দ্বিতীয় বুড়োর আলাপটা সংস্কারবাদী। আর প্রথম বুড়োর আলাপটা বিপ্লবী। একজন বিদ্যমান ব্যবস্থা যত শক্তিশালী হোক, তা পরিবর্তন সম্ভব, এই বার্তা দেন। কমরেড মাও সেতুং এই গল্পটি জনপ্রিয় করেন, ‘যে বোকা বুড়ো পাহাড় সরিয়েছিল’ শিরোনামের প্রবন্ধ লিখে। আর দ্বিতীয় বুড়ো বিদ্যমান ব্যবস্থার মধ্যেই একটা জোড়াতালির ব্যবস্থা করছেন, যা সংগ্রামকে ম্লান করে বুর্জোয়া মানবতাবাদকে প্রতিষ্ঠিত করে। এ ধরণের লোক ছিলেন মাদার তেরেসা, দেখবেন বুর্জোয়ারা তার পক্ষে কীরকম প্রচার চালায়!

    আত্মকর্মপ্রচেষ্টা বলতে মার্কস কী বুঝিয়েছেন? নিজেকে পাল্টাতে হবে অনুশীলনের মাধ্যমে। আপনার বর্তমান অনুশীলন অবশ্যই আপনাকে পাল্টাতে সাহায্য করবে, কিন্তু সেটা প্রোলেতারিয়েতের অভিমুখে নয়, বরং আপনাকে করবে বুর্জোয়াদের অধীন। তাই সতর্ক হোন। কী করছেন তা পূনর্মূল্যায়ন করুন।

    1. আনিস ভাই#
      দ্বিতীয় জন কি করে

      আনিস ভাই#
      দ্বিতীয় জন কি করে সংস্কারবাদী হয় বুঝলাম না! উনিতো বুজে‍র্ায়া শ্রেণীর বাইরে থেকেই, কোনরূপ লাভের চিন্তা ছাড়াই এই কাজ করেছেন এখন যদি বুজে‍র্ায়ারা এটা নিজেদের ধান্দায় প্রচার চালায় তাতে তাঁর দোষ কোথায়?

      1. বুর্জোয়াদের জন্মের আগে কি
        বুর্জোয়াদের জন্মের আগে কি সমাজে বিপ্লব ও সংস্কার ছিল না? প্রথমজন যে কোনো বাধাকে উপড়ানো শিখায়, আর দ্বিতীয়জন বা মাদার তেরেসারা শিখায়, এই ব্যবস্থার মধ্যেই একটু এদিক ওদিক করে নিলে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *