ভাবনার অহেতুক-হেতু

দেশ নাকি অস্থিতিশীলতার – সংঘাতের দিকে যাচ্ছে? তবে বেশ তো, যাক না। আপনার কোন আপত্তি? একটু বলবেন কি- কি করলে দেশ এই অনিবার্য সংঘাত এড়াতে পারে?
অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও……
দেশের পরিস্থিতি নাকি যেকোন সময়ের চেয়েও শোচনীয়? হ্যাঁ তাইতো। কিন্তু এর জন্য দায়ী কে?
অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও……
কি হইল কমন পড়ে নাই? ব্যাপার না, পরের বার মুখস্ত করে আসবেন।

দেশ নাকি অস্থিতিশীলতার – সংঘাতের দিকে যাচ্ছে? তবে বেশ তো, যাক না। আপনার কোন আপত্তি? একটু বলবেন কি- কি করলে দেশ এই অনিবার্য সংঘাত এড়াতে পারে?
অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও……
দেশের পরিস্থিতি নাকি যেকোন সময়ের চেয়েও শোচনীয়? হ্যাঁ তাইতো। কিন্তু এর জন্য দায়ী কে?
অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও অ্যাঁও……
কি হইল কমন পড়ে নাই? ব্যাপার না, পরের বার মুখস্ত করে আসবেন।
মহান মহান বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিদের মহাজাগতিক উদারতায় মুগ্ধ না হয়ে উপায় নাই। অন্যদিকে আওয়ামীলীগ আওয়ামীলীগ করে হাম্বা কলরবে কান উজাড় করা হেফাজতিরও অভাব নাই। ইদানীং ব্যাপারটা ঘটছে- কোন কিছু শুরু করার আগেই নিজেকে আওয়ামীলীগ বলে দাবি করাটা বেশ নিয়ম করেই চলছে। শাহবাগ নিয়ে নঞর্থক কিছু বলার আগেই নিজের অবস্থান পরিষ্কার করার ভঙ্গিতেই নিজেকে আওয়ামীলীগ বলে পরিচয় করানো! তবে কি এটা হেফাজতি জামাতের নতুন কোন কায়দা? একবার-দুবার হলে কথা ছিলনা, ইদানীং ব্যাপারটা বেশ কয়েকবার ঘটে গেল! প্রথমে ভাবলাম আওয়ামীলীগ যেহেতু- অন্তত শাহবাগ নিয়ে নেতিবাচক কিছু বলবে না কিন্তু একি কান্ড! এ-তো হেফাজতি আওয়ামীলীগ! একটু সাবধানে আলাপ জরুরী। হেফাজতি জমাত- হিযবুত নতুন কোন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে কিনা কে জানে??

মহাজ্ঞানীদের কথায় ফিরে আসি- অনেকের মতে আমাদের আরো কিছু ব্যাপার নাকি ভাবতে হবে। প্রশ্ন করলাম- কি কি ব্যাপার ভাই?
এই ধরেন- এই যে ছেলেগুলো শাপলা চত্বরে এল এরা কিন্তু খুবই নিরীহ গোবেচারা টাইপের! এরা কিছুই বুঝে না, হুজুর বলছে তাই চলে এল। এদেরকে নিয়ে আমাদের ভাবা উচিত। এদের জন্য কখনো কি আমরা কিছু করেছি।
হুম, ভাল কথা কিন্তু তাই বলে যুদ্ধ ময়দানে নেমে স্বঘোষিত প্রতিপক্ষ নিয়ে ভাবাভাবি? আর এরা বুঝে না ব্যাপারটা ঠিক না, এরা যা বুঝে আমি-আপনি কিংবা আমাদের চৌদ্দ গোষ্ঠী বুঝালেও এরা বুঝবে না। যদি বলেন শিক্ষার অভাব তাহলে বলব- পিয়াস করিম, ফরহাদ মযহার এদেরও কি শিক্ষার অভাব? তাছাড়া শিবিরের পান্ডাদের তো শিক্ষার কোন অভাব নাই বলেই শুনি-জানি। ওরা রেটিনা চালায়, অমুক চালায়-তমুক চালায়। ওরা খুবই শিক্ষিত বলে প্রচার আছে কিন্তু কোন ধারার শিক্ষা সেটা বুঝতে পারি না, এই-যা। তাহলে ওরা নিরীহ-গোবেচারা কোন অর্থে? দাড়ি-টুপি লাগায় বলে? পান চাবায় বলে?

আমি বলি কি- এত ভাবাভাবির দরকার কি? ভাবতে হয় তাদেরই যারা মুক্তিযুদ্ধকে দুই কুকুরের লড়াই বলে দাবি করে আর ৭১ কে গন্ডগোলের সময় বলে এখনো বুলি কপচায়। ভাবতে হয় তাদেরই যারা প্যাপার কাটিং দিয়া ইতিহাসবিদ হয়, জাতির জনক’কে আওয়ামীলীগের সম্পত্তি বানিয়ে আঁকড়ে রাখতে চায়। সেই তারাই এখন মুক্তিযুদ্ধের বীর-সেনানী, সুশীল-বুদ্ধিজীবী। হ্যাঁ আমাদেরকে এখন জমাত-হেফাজতের পাশাপাশি সেইসব সুশীলদেরকে নিয়েও ভাবতে হবে, যদি ভাবতেই হয়। এটা ভাবার বিষয় হতে পারে কিন্তু হেফাজতের নিরীহ-গোবেচারা টাইটেল পাওয়া হায়েনাদের প্রতি সমবেদনা কিংবা করুণা কিছুতেই ভাবার বিষয় হতে পারে না। ওদেরকে শুধুই ঘৃনা করা যায়- যেকোন যুক্তিতেই।

যারা একাত্তরে কোন কিছুই ভাবে নাই তারাই এই দেশ স্বাধীন করেছিল। জনযুদ্ধের গনযোদ্ধারাই কোন কিছু না ভেবে ঝাপিয়ে পড়েছিল হায়েনা নিধনে, অকাতরে প্রাণ বিলিয়েছে- দিয়েছে আমাদেরকে একটি দেশ – অপার স্বাধীনতা। সেই স্বাধীনতা রক্ষার্থে এত ভাবাভাবি কেন, কিসের এত আপোষ-রফা? কার সাথে, কার স্বার্থে দর কষাকষি?

আপোষ-মীমাংসা নয় মুক্ত স্বদেশ চাই, যদি রক্ত ঝরে – ঝরুক না।।

৩ thoughts on “ভাবনার অহেতুক-হেতু

  1. সহমত। অনেক তথাকথিত শিক্ষিত
    সহমত। অনেক তথাকথিত শিক্ষিত মানুষের সাথে এদের ভাবনার কোন পার্থক্য দেখি না। তবে এদের বেশীর ভাগই নাচছে না বুঝেই। কে বুঝাবে এদের? বুঝালে হয়ত ১০-১২% ছেলেরা বুঝতেও পারে। কিন্তু বুঝাবে কে?

  2. শফি কিংবা হাবিবুর রহমানের মতো
    শফি কিংবা হাবিবুর রহমানের মতো লোকরে যদি কেউ বুঝাতে যায় তবে নিঃসন্দেহে তাকে মুরতাদ ঘোষণা করা হবে এতে কোন সন্দেহ নাই।
    ধন্যবাদ আতিক ভাই।

  3. হেফাজতী বা জামাতকে বুঝানোর
    হেফাজতী বা জামাতকে বুঝানোর ক্ষমতা কেবল ঐ জাতীয় লোকদের দ্বারাই সম্ভব। আমাদের মত মানুষ বুঝাতে গেলে নাস্তিক আর মুরতাদ উপাধি পাওয়া ছাড়া কিছু পাওয়া যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *