ফলোআপঃ জনপ্রশাসন বিষয়ক; সংসদীয় স্থায়ী কমিটির দৃষ্টি আকর্ষণ

মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন অভিযোগকারীর সমস্যা সমাধানে এ পর্যন্ত কোন উদ্যোগ নেয়নি!
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম-দূর্নীতি ও সাংবাদিক হয়রানির অভিযোগ শীর্ষক প্রতিবেদনটি অনলাইনে প্রকাশিত হওয়ার পরও এ পর্যন্ত কার্যকর কোন ব্যবস্থা না নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন অভিযোগকারীর সমস্যা সমাধানে এ পর্যন্ত কোন উদ্যোগ নেয়নি!
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম-দূর্নীতি ও সাংবাদিক হয়রানির অভিযোগ শীর্ষক প্রতিবেদনটি অনলাইনে প্রকাশিত হওয়ার পরও এ পর্যন্ত কার্যকর কোন ব্যবস্থা না নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
দেশে চলমান ঘুণেধরা ক্ষয়িষ্ণু সমাজ ব্যবস্থা, অপরাজনীতি, অপশাসনের ভয়াবহ আগ্রাসন, আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, প্রচলিত আইনের অপপ্রয়োগের কারণে সচেতন মানুষজন সহ সাধারণেরা প্রতারিত নিগৃহিত হয়ে অসহায় দিন-যাপন করছেন। অভিযোগকারী মহান মুক্তিযুদ্ধে সাতজন শহীদ পরিবারের সদস্য, দৈনিক জনকণ্ঠের শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি, দৈনিক যুগভেরী ও জাতীয় সাপ্তাহিক নতুন বাংলার মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, হাওর রক্ষা সংগ্রাম কমিটির জেলা যুগ্ম আহ্বায়ক নীহারেন্দু হোম চৌধুরী নীহার সজল-এর বর্ণনা অনুযায়ী সাবেক জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান গত ২৭ ডিসেম্বর ২০১২ বদলী হলে তাঁর স্থলে জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে জনৈক সাংবাদিক ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়ে মারাত্মক ক্ষতির সম্মূখিন হয়েছেন। কারণ হিসেবে বলেন, জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান-এর অধীনস্থ দুর্নীতিবাজ, অসাধু কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সাথে তাঁর যোগাযোগিমূলে গভীর সম্পর্ক রয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে তারা না যাওয়ার জন্য তাদেরকে রক্ষা করা একমাত্র কাজ বিবেচনায় রেখে, রাষ্ট্রের মালিকানার অংশীদার নীহারেন্দু হোম চৌধুরীকে ন্যায় সংগত অধিকার থেকে প্রতারণার মাধ্যমে বঞ্চিত করেছেন। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উক্ত সমস্যা সমাধানে কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। তারা কামনা, বাসনার উর্ধ্বে আজো উঠে আসতে পারেনি। তাঁদের কাছে দেশ, জাতি, রাষ্ট্র বা রাষ্ট্রের মালিক জনসাধারণ কিই বা সেবা পাওয়ার আশা করতে পারে। ওরা সেবক নয়, শাসক। তাঁরা আপনারে লয়ে বিব্রত রহিতে, আসিয়াছে অবনী পরে। নিজের তরে নিজেই তাঁরা, কেহই নহে ওরা পরের তরে। এর একটা আমূল পরিবর্তন আবশ্যক।
এ ব্যাপারে জনপ্রশাসন বিষয়ক; দশম জাতীয় সংসদের স্থায়ী কমিটির সম্মানীত চেয়ারপার্সন সহ সদস্যবৃন্দ বিষয়টি বিবেচনা নিয়ে জনগুরুত্বপূর্ণ সেবা খাতের মান উন্নয়নে উদ্যোগী হলে, দেশবাসী উপকৃত হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *