এই গণভোটে কারও জয় পরাজয় হয়নি- এলেক্সিস সিপ্রাস


এই গণভোটে কারও জয় পরাজয় হয়নি- এলেক্সিস সিপ্রাস
(গণভোটের ফলাফলের প্রেক্ষিতে ৬জুলাই গ্রীক প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক বিবৃতি)
ভাষান্তর: জাহিদুল ইসলাম সজীব

প্রিয় গ্রীকবাসী,

এই গণভোটে কারও জয় পরাজয় হয়নি।
এটি নিজেই নিজের মধ্যে এক মহান বিজয়।
আধুনিক ইউরোপের ইতিহাসে আজ আমরা সকলে মিলে এক উজ্জ্বল অধ্যায়ের সূচনা করলাম।


এই গণভোটে কারও জয় পরাজয় হয়নি- এলেক্সিস সিপ্রাস
(গণভোটের ফলাফলের প্রেক্ষিতে ৬জুলাই গ্রীক প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক বিবৃতি)
ভাষান্তর: জাহিদুল ইসলাম সজীব

প্রিয় গ্রীকবাসী,

এই গণভোটে কারও জয় পরাজয় হয়নি।
এটি নিজেই নিজের মধ্যে এক মহান বিজয়।
আধুনিক ইউরোপের ইতিহাসে আজ আমরা সকলে মিলে এক উজ্জ্বল অধ্যায়ের সূচনা করলাম।
আমরা প্রমাণ করেছি সবচেয়ে দূরহ সময়েও গণতন্ত্র অপ্রতিরোধ্য, একটি শক্তিশালী মূল্যবোধের নাম এবং এগিয়ে যাবার পথ।
আমরা আরো প্রমাণ করেছি, বিশ্বাস ও ঐক্যবদ্ধ শক্তির বলে জনগণ প্রতিরোধ গড়তে এবং সবচেয়ে কঠিন বাধাও মোকাবেলা করতে সক্ষম।
আমি মনেপ্রাণে আপনাদের প্রত্যেককে আলাদা আলাদাভাবে ধন্যবাদ জানাতে চাই।
কে কোন পক্ষে ভোট দিয়েছেন তা ভুলে গিয়ে আজ থেকে আমরা সকলেই এক।
আমাদের সকলের দায়িত্ব হচ্ছে এই সংকট মোকাবেলায় সর্বশক্তি নিয়োগ করা যাতে গ্রীস আবারও ঘুরে দাঁড়াতে পারে।
সেইসাথে আমাদের উচিত জাতীয় ঐক্য সমুন্নত রাখা, সামাজিক বন্ধন ও অর্থনৈতিক স্থিতাবস্থা পুনু:রুদ্ধার করা।
আমি আরো ধন্যবাদ জানাতে চাই সেইসব হাজারো ইউরোপীয় নাগরিকদের যাঁরা গ্রীক জনগণের প্রতি সংহতি জানিয়ে ইউরোপের বৃহৎ শহরগুলোর রাস্তায় রাস্তায় নেমে এসেছেন।

গত সপ্তাহজুড়ে বিদ্যমান বৈরি পরিস্থিতির মধ্যেও আপনারা আজ অত্যন্ত সাহসী এক সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন।

প্রিয় গ্রীকবাসী,
গত সপ্তাহজুড়ে বিদ্যমান বৈরি পরিস্থিতির মধ্যেও আপনারা আজ অত্যন্ত সাহসী এক সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন। যাইহোক, আমাকে দেয়া আপনাদের রায়ের ব্যাপারে আমি যথেষ্ট সচেতন আছি। আপনারা আমাকে যে রায় দিয়েছেন তা ইউরোপকে খণ্ডিত করার জন্য নয়, বরং টেকসই একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে আমাদের দরকষাকষির ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য। যাতে করে আমরা সামাজিক ন্যায় বিচার ও আমাদের ভবিষ্যৎ সমৃদ্ধি নিশ্চিত এবং কৃচ্ছসাধনের কুচক্র থেকে মুক্তিলাভ করতে পারি।
এবং কোন রকম কালক্ষেপণ না করেই আমি এই রায় বাস্তবায়নের জন্য কাজ শুরু করব।
আমরা সকলেই জানি এক্ষেত্রে সহজ সমাধানের কোনো পথ নেই।
কিন্তু সমাধান অবশ্যই আছে।
যতক্ষণ পর্যন্ত দু’পক্ষই সদিচ্ছা দেখাবে ততক্ষণ টেকসই সমাধানের পথ খোলা আছে।
এটি বলে রাখা জরুরি যে, আজকের এই ঐতিহাসিক এবং সাহসী সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে গ্রীকের জনগণ সঠিক প্রশ্নটিরই উত্তর দিতে পেরেছে এবং যার ফলে ইউরোপের আলোচনার বিষয়বস্তুই বদলে গেছে।
ইউরোতে থাকবে না ত্যাগ করবে- তারা এই প্রশ্নের উত্তর দেয়নি। এই প্রশ্নকে ঘিরে তৈরি হওয়া আলোচনাগুলোরও চির যবনিকা হল। ইউরোপ কেবলমাত্র চুক্তি আর কৃচ্ছসাধনের একমুখী রাস্তা হতে পারে না।
আপনি কোন ইউরোপকে দেখতে চান?- গ্রীসের জনগণ এই প্রশ্নটির উত্তর বলে দিয়েছে।
তাঁরা যথেষ্ট সাহসিকতার সাথে ঘোষণা করেছে: আমরা চাই সংহতি ও গণতন্ত্রের ইউরোপ।
কাল থেকে গ্রীস আলোচনার টেবিলে বসতে যাচ্ছে।
আমাদের আশু গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে আমাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম ও অর্থনৈতিক স্থিতাবস্থার পুন:রুদ্ধার নিশ্চিত করা।
আমি বিশ্বাস করি ইসিবি(ইউরোপের কেন্দ্রীয় ব্যাংক)সম্পূর্ণভাবে কেবল আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থাই নয়, বরং আমাদের দেশের মানবিক বিপর্যয়ের মাত্রা সম্পর্কেও সম্পূর্ণ সজাগ আছে।
যদি একটি বিশ্বাসযোগ্য অর্থায়ন পরিকল্পনা ও গ্রীক সমাজের সমর্থন পেতে সক্ষম এমন একটি সংস্কার পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়, সামাজিক ন্যায়বিচার নিশ্চিত এবং আর্থিকভাবে দুর্বলদের থেকে করের বোঝা হ্রাস করে সবলদের উপর স্থানান্তর করা হয় তবে আমরা আলোচনা অব্যাহত রাখতে প্রস্তুত। এবং সেইসাথে একটি বিশ্বাসযোগ্য পরিকল্পনা হাজির করতে হবে যা ইউরোপীয় কমিশনের সাথে সহযোগিতা বাজায় রেখে প্রবৃদ্ধি ও বিনিয়োগকে বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।
এ মুহূর্তে ঋণ-গ্রহণযোগ্যতার মাপকাঠিতে আইএমএফ’র সাম্প্রতিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতেও ঋণের বিষয়টি আলোচনার টেবিলে উঠে আসবে। এই প্রতিবেদনটি পূর্বে হাজির করা হয়নি; গতকালের আগের দিন পর্যন্ত আলোচনার টেবিলে এটির কোন হদিসই ছিলনা। গ্রীস ও সমগ্র ইউরোপের সংকটের একটি স্থায়ী সমাধানে উপনীত হতে হলে পুন:গঠন জরুরি- গ্রীসের এই দাবিটি প্রতিবেদনটিতে ঠাঁই পেয়েছে।

প্রিয় গ্রীকবাসী,
ঠিক এসময়ে সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ঐকান্তিক বোঝাপড়া নিশ্চিত করার জন্য আমাদের দেশকে ঐক্যবদ্ধভাবে দাঁড়াতে হবে।
শীঘ্রই আমি রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করে আগামী কাল সকালে রাজনৈতিক নেতাদের কাউন্সিলের একটি সভা আহ্বান করার জন্য অনুরোধ জানাব। আমি তাঁদেরকে সরকারের পরিকল্পনাগুলোর বিষয়ে পরামর্শ দিব এবং তাঁদের কথাও শুনব।
আজ আমরা গণতন্ত্রের বিজয় উদযাপন করছি। কাল থেকে আমাদের জাতীয় প্রচেষ্টা হবে কিভাবে একটি সমঝোতায় পৌঁছানো যায়।
আর আমাদের প্রচেষ্টায় শক্তিশালী মিত্র হিসেবে আমাদের সাথে থাকবে আমাদের জনগণের বিশ্বাস। আমাদের সাথে থাকবে গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচারের শক্তি।
আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আমরা সফল হবই।

মূল পোস্টের লিংক: http://www.primeminister.gov.gr/english/2015/07/06/prime-minister-alexis-tsipras-statement-on-the-outcome-of-the-referendum/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *