জ্বলে ওঠো শতগুনে

সর্বদাই কিছু কিছু লোক থাকবে যারা যুক্তিযুক্ত সমালোচনা দ্বারা ধর্মের বিভিন্ন অসঙ্গতি ধরিয়ে দেবে। এমন কিছু লোক থাকবে যারা মোহাম্মদ, যিশু এবং আরো যারা ধর্ম প্রচারক আছে তাদের গালিগালাজ করবে। আবার এমন কিছু লোকও থাকবে যাদের ধর্মানুভুতি দিনে হাজারবার আঘাতপ্রাপ্ত হবে। কিন্তু এখানে লক্ষনীয় ব্যাপার হল আমাদের চেতনায় শত রকম অনুভূতি বিদ্যমান থাকলেও ধার্মিকরা তাদের তথাকথিত ধর্মানুভুতিকে দুনিয়ার সব অনুভূতির উর্ধ্বে স্থান দেয়। আর বর্তমানে এই সকল উম্মাদ ধর্মানুভুতি ধারনকারী লোকদের সাথে ঢোল পিটিয়ে যোগ দিয়েছে রাষ্ট্রযন্ত্র। ব্লগারদের বাক স্বাধীনতা হরন যেন তাদের উপর অর্পিত মহান দায়িত্ব। অনেক দিন ধরেই বিভিন্ন ব্লগে আস্তিক নাস্তিক বিতর্ক একটা কমন এফেয়ার। উভয় পক্ষ হতেই নানা রকম তর্ক বিতর্ক হত। অনেক সময় সেরা গালাগালির পর্যায়েও যেত। কিন্তু ব্লগের এডমিন যারা আছেন তারা সহজেই সেসব কুরুচীপূর্ণ, আপত্তিকর মন্তব্য মুছে দিতে পারতেন। দরকার হত না কোন সরকারি হস্তক্ষেপের। কিন্তু শাহবাগ আন্দোলনকে দ্বিখণ্ডিত করতে, একে স্তিমিত করার লক্ষ্যে জামায়াত যে বিশাল নীল নকশা তৈরি করেছে সরকার তারই ফাদে পা দিয়েছে। এতদিনের আন্দোলনে সরকার কৌশলগতভাবে উপকৃত হলেও আসলে ব্লগাররা যে একটা শক্তি এটা সরকার বুঝে গেছে। প্রয়োজনে তারা যে সরকারের বিরুদ্ধেও তীব্র জনমত গড়ে তুলতে পারে সরকার তা উপলব্ধি করতে পেরে শঙ্কিত। সে জন্যই ধর্মনিরপেক্ষতার খোলসধারী আওয়ামী লীগ সরকার আজ নেমেছে ব্লগার নিধন অভিযানে। তবে যারা দীর্ঘদিন ধরে ব্লগে লেখালেখি করেন ধর্ম, সমাজ, বিজ্ঞান, দর্শন, ধর্মীয় মৌলবাদের বিরুদ্ধে, তারা ভাল করেই জানেন এ পথে মোটেও মসৃণ নয়। যে ধর্মান্ধতা, কুসংস্কার দীর্ঘদিন ধরে বেড়ে উঠতে উঠতে আজ বিশাল মহিরূহে পরিণত হয়েছে তাকে এত সহজে দূর করা যাবে না। তাই হতাশ না হয়ে আমরা লিখে যাই, আমরা প্রতিবাদ করি। কাজী নজরুল ইসলাম বলেছেন, “জ্ঞান যেখানে সীমাবদ্ধ, যুক্তি যেখানে আড়ষ্ট, মুক্তি সেখানে অসম্ভব। “তাই যুক্তির গলায় লাগাম পরিয়ে কেবল শুদ্ধ জ্ঞানের পথই রুদ্ধ করে দেওয়া হবে। আর তাতে আরও শানিত হয়ে উঠবে আমাদের প্রতিবাদ। আমরা অনায়াসে কিছু মেনে নেব না। কারণ, সকল কথা যারা অনায়াসে মেনে নেয়, তারা কেবল আত্নবিনাশের পথ পরিস্কার করে।

২ thoughts on “জ্বলে ওঠো শতগুনে

Leave a Reply to পৃথু স্যন্যাল Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *