রাষ্ট্রের কাছে গণজাগরণ মঞ্চের ছয়টি প্রশ্ন।।??????????????

রাষ্ট্রের কাছে গণজাগরণ মঞ্চের ছয়টি প্রশ্ন।

আমরা উত্তর চাই??????

১. জামায়াত-শিবির চক্র ব্লগে এবং ফেইসবুকে মওদুদীবাদ প্রচারের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মকে নানাভাবে যখন প্রশ্নবিদ্ধ করে, তখন কোথায় থাকে রাষ্ট্রীয় বিজ্ঞপ্তির ধর্মানুভূতি?

২. যখন জামায়াত জাতীয় মসজিদে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ করে তখন কী রাষ্ট্রের ধর্মানুভূতি শীতনিদ্রায় থাকে?

৩. যখন চট্রগ্রামে আলেম সমাজকে হত্যার হুমকি দেয় জামায়াত-শিবিরের শ্বাপদরা, তখন কি রাষ্ট্রের অভিধানে ধর্মানুভূতি শব্দটি অনুপস্থিত থাকে?


রাষ্ট্রের কাছে গণজাগরণ মঞ্চের ছয়টি প্রশ্ন।

আমরা উত্তর চাই??????

১. জামায়াত-শিবির চক্র ব্লগে এবং ফেইসবুকে মওদুদীবাদ প্রচারের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মকে নানাভাবে যখন প্রশ্নবিদ্ধ করে, তখন কোথায় থাকে রাষ্ট্রীয় বিজ্ঞপ্তির ধর্মানুভূতি?

২. যখন জামায়াত জাতীয় মসজিদে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ করে তখন কী রাষ্ট্রের ধর্মানুভূতি শীতনিদ্রায় থাকে?

৩. যখন চট্রগ্রামে আলেম সমাজকে হত্যার হুমকি দেয় জামায়াত-শিবিরের শ্বাপদরা, তখন কি রাষ্ট্রের অভিধানে ধর্মানুভূতি শব্দটি অনুপস্থিত থাকে?

৪. যখন জামায়াত-শিবির পুলিশের উপরে নির্বিচারে হামলা চালায়, তাদের হত্যা করে, চিকিৎসককে আগুনে পুড়িয়ে মারে, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে গৃহযুদ্ধের হুমকি দেয়, রাষ্ট্র তখন কেন তদন্ত কমিশন বানায় না? তখন কি রাষ্ট্র আঘাতপ্রাপ্ত হয় না?

৫. হরতালের নৈরাজ্য সৃষ্টি করে জামায়াত-শিবির যখন দেশকে অস্থিতিশীলতার দিকে ঠেলে দেয়, ব্লগের ক্ষুদ্র গণ্ডি থেকে যে সব গণমাধ্যম ধর্মীয় অবমাননাকর বিষয়গুলো সামনে নিয়ে আসে, তখন রাষ্ট্র কেন কমিশন করে ‍উদ্যোগ নেয় না?

৬. যখন অনলাইন এবং ব্লগে জামায়াত-শিবির বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে অপপ্রচার চালায়, তখন কেন মহাজোট সরকার তার বিরুদ্ধে উদ্যোগ নেয় না? আজ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু এবং জাতীয় চার নেতা, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করার বিরুদ্ধে সরকার কি কোনো উদ্যোগ নিয়েছে?

৭ thoughts on “রাষ্ট্রের কাছে গণজাগরণ মঞ্চের ছয়টি প্রশ্ন।।??????????????

  1. মহান মুক্তিযুদ্ধের
    মহান মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী বর্তমান সরকারি দলের কাছ থেকে প্রশ্নগুলোর উত্তর পাওয়া জরুরী !

  2. রাজনৈতিক স্বার্থে প্রয়োজনে
    রাজনৈতিক স্বার্থে প্রয়োজনে বর্তমান আওয়ামীলীগ নিজেদের নাম পরিবর্তন করে আওয়ামী ইসলামীলীগ করতে দ্বিধা করবে বলে মনে হয় না। তাই আপনার এই প্রশ্নগুলোর উত্তর খোঁজা বৃথা।

  3. এইসব নাস্তিকীয় প্রশ্ন করা
    এইসব নাস্তিকীয় প্রশ্ন করা থেকে বিরত থাকুন। জামাত-শিবির, হেফাজতীরা যাই করুক সেসব কিছুই জায়েজ

  4. যেই রাষ্ট্র একদল ধর্মান্ধের
    যেই রাষ্ট্র একদল ধর্মান্ধের কাছে মাথা নোয়াতে পারে, সেই রাষ্ট্রের কাছে প্রশ্ন রেখে লাভ কি? অসভ্যতা ছাড়া কোন আওয়াজ এই রাষ্ট্রের কানে ঢুকবে না। জামাত-শিবির-হেফাজতের মতন হিংস্র কিংবা অসভ্য হলে ঠিকই আপনার-আমার কথাও পই পই করে শুনবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *