সেই শুকরের হাসি আজো থামেনি।।

এক লোক আসিল রাম ভোদাই ।তো সেই
আকামা এর আসিল এক বউ। বউ
জানতো না যে জামাই আকামা।
সারাটা জীবন লাত্থি গুতা খাইলেও সুখ
এর আশায় কুদ্দুস রে বিয়া করসিল
আক্লিমা ।

আকামা কুদ্দুস বেক্কল
বইলা অভাবেই থাকে।আক্লিমার
গয়না বেইচা চলতে হয়। ত একবার তার
ঘরে চুরি হইল। সেই গ্রাম এ সবাই
জানে চোর কে।তো কুদ্দুস দুই দিন পর
গিয়া চোর রে বাইর কইরা কইল- “চোর ভাই আমার
বউ এর গয়না ফেরত দাও”। চোর কইল “রোসো – গয়না আমি ত বেইচা দিসি। দেও তোমার হালের
বলদ টা -অইটা বেইচা অই টেকায়
গয়না ছুটাইয়া কিছু পরিমান ফিরত
দিমু।” কুদ্দুস দিল ; চোর আর আসিল না।
গয়না ও গেল বলদ ও গেল।

তো আরেকবার তার

এক লোক আসিল রাম ভোদাই ।তো সেই
আকামা এর আসিল এক বউ। বউ
জানতো না যে জামাই আকামা।
সারাটা জীবন লাত্থি গুতা খাইলেও সুখ
এর আশায় কুদ্দুস রে বিয়া করসিল
আক্লিমা ।

আকামা কুদ্দুস বেক্কল
বইলা অভাবেই থাকে।আক্লিমার
গয়না বেইচা চলতে হয়। ত একবার তার
ঘরে চুরি হইল। সেই গ্রাম এ সবাই
জানে চোর কে।তো কুদ্দুস দুই দিন পর
গিয়া চোর রে বাইর কইরা কইল- “চোর ভাই আমার
বউ এর গয়না ফেরত দাও”। চোর কইল “রোসো – গয়না আমি ত বেইচা দিসি। দেও তোমার হালের
বলদ টা -অইটা বেইচা অই টেকায়
গয়না ছুটাইয়া কিছু পরিমান ফিরত
দিমু।” কুদ্দুস দিল ; চোর আর আসিল না।
গয়না ও গেল বলদ ও গেল।

তো আরেকবার তার
ক্ষেত এ হইল শুকরের উপদ্রব।ফসল সব
খায়া যায়গা ।পুরাই বেরাছেরা অবস্থা ।
কুদ্দুস কি করে? মাঠের মাঝে খড়ের
পুতুল বসাইল। মাগার শুকর দিল
লাত্থি মাইরা ফালায়া।বার বার এক
অবস্থা। এর পর সে নতুন লাইন নিল-
শুকর এর হাতে পায়ে ধরিল,বারংবার
ডাকিল – “শুকর -আমার ফসল খেও না।” তো
কে শোনে কার কথা। শুকর পুরা ক্ষেত
লণ্ডভণ্ড করতাসে ।বউ এইবার গেল
খেইপা। কইল- “বেটা গাবর, শুকর ও তুই
মস্তিস্কে কাছা কাছি হইলেও ভাষা ত
ভিন্ন। এখন সময় হইয়াছে বেড়া দিবার।
প্রয়োজন এ বাড়া বাড়ি করিলে বরাহ
নিধনের। তো কুদ্দুস বেকুব হইলেও
স্বামি বটে । স্বামীর পায়ের
নিচে স্ত্রীর বেহেস্ত।
সে স্ত্রী কে বেহেস্তে টানিয়া আনিয়া চুলের
মুঠি ধরিয়া পিটাইতে লাগিল-
মুখে ত্যানা গুজিয়া দিয়া।

আর শূকর-
সে জানালা দিয়া এই মজা দেখিয়া-ঘোঁত
ঘোঁত করিয়া সেই যে হাসিতে লাগিল
তা আজো থামে নাই ।।

courtesy : সংখ্যালঘু সৌমেন।

[সুব্রত শুভ, হালকা পাতলা ছেলে টা।
লম্বা চাওড়া প্রকান্ড বিপ্লব ভাই।
ডটু রাসেল যারে দেখলে আমার আজম
চাচা’র কথা মনে পড়ে। তারা দেশের
জন্য হুমকি, কিন্তু দিনের পর দিন
প্রকাশিত বানোয়াট উষ্কানীমূলক
আমার দেশের কেউ রাষ্ট্রের জন্য
হুমকি না। জয় হোক উপর তালার
ক্ষমতাবান দের। আপনাদের
বিবেচনাবোধের
প্রশংসা না করে পারলাম না।
তবে একটা কথা, বাতাস যেদিন আপনাদের
বিপরীতে বইছিলো, তখন ওপরে তিন জন
কিন্তু আপনাদের পক্ষেই
দাড়িয়েছিলো।]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *