বিনপির অর্থহীন রাজনীতি

ছোট থেকেই দেখি মানুষ রাজনীতি করে । কেউ টাকার জন্য করে , কেউ ক্ষমতার জন্য করে , কেউ আবার জনমানুষের জন্য করে । কিন্তু এই মুহূর্তে বিনপি কিসের জন্য রাজনীতি করছে তা খুবই অস্পষ্ট ।
প্রথমত , সরকারের প্রথম ৪ বছর বিনপি ” কুইচা মুরগীর” মত ঝিম পারা ছাড়া আর কোন কাজ করে নাই । না দল গুছিয়েছে , না আন্দোলন করছে । ইলিয়াস ইস্যু নিয়া ১ সপ্তাহ ফাল পারল তারপর নাই । বিরোধীদলের কোন বৈশিষ্ট্য অথবা ভাবই নাই ।

ছোট থেকেই দেখি মানুষ রাজনীতি করে । কেউ টাকার জন্য করে , কেউ ক্ষমতার জন্য করে , কেউ আবার জনমানুষের জন্য করে । কিন্তু এই মুহূর্তে বিনপি কিসের জন্য রাজনীতি করছে তা খুবই অস্পষ্ট ।
প্রথমত , সরকারের প্রথম ৪ বছর বিনপি ” কুইচা মুরগীর” মত ঝিম পারা ছাড়া আর কোন কাজ করে নাই । না দল গুছিয়েছে , না আন্দোলন করছে । ইলিয়াস ইস্যু নিয়া ১ সপ্তাহ ফাল পারল তারপর নাই । বিরোধীদলের কোন বৈশিষ্ট্য অথবা ভাবই নাই ।
দ্বিতীয়ত, তাদের দলীয় কাঠামো খুবই এলোমেলো এবং অস্পষ্ট । ৩ বার কাউন্সিল পিছানো হল । জেলা পর্যায়ে তো দূরে থাক , কেন্দ্রীয় ভাবেই কমিটির কোন ঝাটাটাই নাই । ফখা একাই খালি খক খক করে । রাজধানীতে স্বেচ্ছাসেবক দলের দুই একটা ২০-৩০ জনের মিছিল ছাড়া আর কোন কার্যক্রম দেখা যায় না । আর ছাত্রদলকে তো রূপকথার রাজকুমার মনে হয় ।
তৃতীয়ত, দলীয় নেত্রী হিসেবে খালেদা জিয়া বিকাল পর্যন্ত ঘুম পারা ছাড়া আর কোন কাজ করেন কিনা সন্দেহ । বেশিরভাগ সংবাদ সম্মেলনে তিনি নাই । দলীয় কার্যালয়ে পুলিশের তল্লাশি হল , তিনি সময় টিভিতে বসে বসে দেখছেন । কার্যালয় দেখতে আসছেন ২ দিন পরে ।
ডেটল দিয়া ধোঁয়ার পর। মাঠ পর্যায়ে কর্মীদের অনুৎসাহিত করার জন্য ঘুম পারাই যথেষ্ট ।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় , শাহবাগ ইস্যুতে বিনপির হিজড়া মার্কা সিদ্ধান্ত । প্রথম কিছুদিন চুপ , ২ দিন পরে সাধুবাদ জানাইল । ৪ দিন পরে জামাতরে বলল , ” বুখে আয় বাবুল ” । তারপরে দেশের আপামর তরুণ সমাজের সমর্থনকারিদের নাস্তিক নষ্ট বইলা দুনিয়া উদ্ধার করলেন ।
আগে মানুষ বলত খালেদা জিয়া ৮ পাশ , আমি আগে বিশ্বাস করতাম না । এত বড় দলের নেত্রী কখনও ৮ পাশ হয় ? কিন্তু এখনতো মনে হয় উনি ৫ পাশ ও না ।
পুরান ট্রেন্ড আবার শুরু হইছে , “হরতাল দেওয়া ” । গত দুইটা হরতাল তো কোন কারন ছাড়াই দিল । শুক্রবারে স্বপ্নে দেখতাছে আর রবি থেকে হরতাল শুরু কইরা দিতাছে । এমন হরতাল দেখতে হাসি পায় । ছাত্রদল মিছিল করে কিন্তু ব্যানার ধরার লোক হয় না । দুইয়া ককটেল ফাটাইয়াই দৌড় তাউওগুলা নাকি ভাড়া করা পাবলিক!!!!
আর্মিদের নিয়া একটা বেফাঁস কথা বলল , ভারতের মত একটা শক্তিশালী দেশের সাথে সম্পর্ক খারাপ করল । সারা বছর বইসা থাইকা পরীক্ষার সময় আন্দোলনের কুরকুরি উঠছে ।
সবমিলিয়ে ওদের অবস্থান “” না ক্ষমতায় যাওয়ার মত , না বিরোধীদল হওয়ার মত”””
খুব খিয়াল কইরা , ” বাংলার মানুষ দুর্নীতিবাজ দেখতে পারে কিন্তু রাজাকার দেখতে পারে না । ”

৫ thoughts on “বিনপির অর্থহীন রাজনীতি

  1. বাংলার মানুষ দুর্নীতিবাজ

    বাংলার মানুষ দুর্নীতিবাজ দেখতে পারে কিন্তু রাজাকার দেখতে পারে না

    :মানেকি: :ভাবতেছি:

  2. বিনপি একটি রাজনৈতিক দল এটা
    বিনপি একটি রাজনৈতিক দল এটা ভাবলেন কি করে? রাজনৈতিক দলের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য থাকে। তাদের তো কিছু আছে বলে মনে হয় না। তারা সব সময় ক্ষমতায় আসীন হতে চায়। কিন্তু রাজনৈতিক দল সেটাই, যেটা কখনও ক্ষমতায় থাকবে আবার কখনও বিরোধী দলে থেকে গণতান্ত্রিক উপায়ে তাদের দাবী দাওয়া উপস্থাপন করবে। সেটা অবশ্যই জনস্বার্থে হতে হবে। তাদের দাবী দাওয়ার পন্থা কি জনস্বার্থে হচ্ছে? বিরোদী দল যে একটি ছায়া সরকার এটা বুঝার ক্ষমতাই বোধ করি বিনপি’র নাই……..তাহলে বিনপি রাজনৈতিক দল হয় কি করে ?

Leave a Reply to ডাঃ আতিক Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *