নির্ভীক রুমীরা

শহীদ রুমী স্কোয়াডের অনশনের ৬২ ঘন্টা পার হল । এই ৬২ ঘন্টার মধ্যে আমরা অনেক অনেক বাধার সম্মুখিন হয়েছি ,হচ্ছি। আমাদের নিয়ে চালানো হচ্ছে নানা রকম অপপ্রচার , আমাদের অনশন মুল্যহীন , আমরা নিজেদের দল দার করানোর জন্য এমন অনশন করছি , আমাদের ভেতর রয়েছে বঙ্গবন্ধুর খুনীর ছেলে ,আমাদের খবর এখনো কোন নিউজে হেডলাইন হয়ে আসে নাই ইত্যাদি ইত্যাদি ।
আমাদের অনশনকে প্রত্যাহার করার জন্যও বিভিন্ন মহল থেকে বলা হয়েছে । কিন্তু আমাদের দলের রুমীরা নির্ভিক । তারা সকল বাধাকে উপেক্ষা করে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছে ।

শহীদ রুমী স্কোয়াডের অনশনের ৬২ ঘন্টা পার হল । এই ৬২ ঘন্টার মধ্যে আমরা অনেক অনেক বাধার সম্মুখিন হয়েছি ,হচ্ছি। আমাদের নিয়ে চালানো হচ্ছে নানা রকম অপপ্রচার , আমাদের অনশন মুল্যহীন , আমরা নিজেদের দল দার করানোর জন্য এমন অনশন করছি , আমাদের ভেতর রয়েছে বঙ্গবন্ধুর খুনীর ছেলে ,আমাদের খবর এখনো কোন নিউজে হেডলাইন হয়ে আসে নাই ইত্যাদি ইত্যাদি ।
আমাদের অনশনকে প্রত্যাহার করার জন্যও বিভিন্ন মহল থেকে বলা হয়েছে । কিন্তু আমাদের দলের রুমীরা নির্ভিক । তারা সকল বাধাকে উপেক্ষা করে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছে ।
অহিংসভাবে সর্বোচ্চ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে ১৭ জন রুমী । গত ২৬শে মার্চ ছিল জামায়াত -শিবিরের রাজনীতি আইন করে নিষিদ্ধ করার আল্টিমেটামের শেষ দিন । ২৫শে মার্চ সকাল বেলাতেই আমরা সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখে ছিলাম যদি ২৬ তারিখে গণজাগরণ মঞ্চ থেকে আশানুরূপ কর্মসূচী না আসে আমরা নিজেরাই নিজেদের মৃত্যু হাতে তুলে নিব ।
মাথার উপরে সূর্যের প্রখর রোদ , ভ্যাপসা গরম , ভলান্টিয়ারের সঙ্কট , তার উপর সাংবাদিক দের সাথে কথা বলা । সবই করছি আমরা নিজেরা ।
দেশের প্রতি যত টুকু ভালোবাসা নিয়ে মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করতে গিয়েছিল একাত্তরে ;যার পুরস্কার হিসেবে ছিল কেবল স্বাধীনতা । আজকে আমাদের রুমীরাও দেশের প্রতি সেই তীব্র ভালোবাসা অনুভব করে নিজেদের জীবনকে বিপন্ন করে , ভার্চুয়াল ভালোবাসাকে পিছনে ফেলে এসে , ভবিষ্যতের চিন্তা না করে , নিতসার্থ ভাবে আমরণ অণশণে বসেছেন ।
দীর্ঘ তিন মাস যাবত গণজাগরন মঞ্চের প্রতিটি ডাকে আমরা এক থেকেছি এখনো আছি । খেয়ে না খেয়ে আমরা গত ৫ ফেব্রুয়ারী থেকে আমরা সংগ্রাম করে আসছি , শ্লোগান দিয়ে আসছি , বিভিন্ন স্থানে জনমত গড়তে অনেক অনেক ছুটে বেরিয়েছি । তাই আমাদের শরীরের অবস্থা কেমন তা যে কেউ আন্দাজ করতে পারেন । সেই ভেঙ্গে পরা শরীর নিয়েই ২৭ তারিখ রাত সারে ১০ টা থেকে আবার অনশন শুরু করে দেয় রুমী স্কোয়াডের সাত তরুণ যোদ্ধা ।
আমরা ধীরে ধীরে মৃত্যুর দুয়ারে এগিয়ে যাচ্ছি । জানিনা আমাদের দাবী কবে মেনে নিবে সরকার পক্ষের লোকেরা । এখন পর্যন্ত আমাদের সাথে সরকার পক্ষের কোন প্রতিনিধি আসে নাই দেখা করতে । কিন্তু আমরা আমাদের লক্ষ্যে অনড় । আমাদের কাবু করতে পারবে না কোন অশুভ শক্তি । ভেঙ্গে পরা শরীর নিয়ে অনশনে বসে যেতে আমরা পিছপা হইনি । তেমনি ভাবে এখন যেমন আমাদের অনশনকারীরা হাসপাতালের বেডে জায়গা করে নিচ্ছেন তাতেও আমরা ভয় পাচ্ছি না ।
“কোন দেশই জীবিত যোদ্ধা চায় না ” শহীদ রুমী’র এই কথা মাথায় রেখেই আমরা এই যুদ্ধে নেমেছি ।
আমাদের ভেতর কয়েকজনের অবস্থা খুব বেগতিক । মানিক সুত্রধর ইতোমধ্যে বার্ডেম হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগে ভর্তি হয়েছেন । বাকি ছেলে গুলোও ইতিমধ্যে নেতিয়ে পরেছে ।
আমাদের শরীরের শক্তি ধীরে ধীরে কমে আসছে আর মনের শক্তি কেবল বেরেই চলেছে । আমাদের সাথে সংহতি প্রকাশ করছে অনেক অনেক সাধারণ মানুষ আর অনেক অনেক সংগঠন । আজ রাত ১২টা থেকে কাল রাত ১২টা পর্যন্ত ২৮টি সংগঠন একত্রিত ভাবে আমাদের সাথে অনশনে যোগদেবেন বলে কথা দিয়েছেন ।

৬ thoughts on “নির্ভীক রুমীরা

  1. আপনাদের অনশন কর্মসুচীকে
    আপনাদের অনশন কর্মসুচীকে চট্টগ্রাম অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম থেকে নৈতিকভাবে সমর্থন দেওয়া হইল। আমি ইস্টিশন কর্তৃপক্ষকেও প্রজন্মের এই কর্মসুচীকে নৈতিক সমর্থন দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাইলাম।

    জয় আমাদের হবেই হবে।
    জয় বাংলা।

  2. ইন্টারমিডিয়েট ফার্স্ট ইয়ারের
    ইন্টারমিডিয়েট ফার্স্ট ইয়ারের শিক্ষার্থী আনন্দ,দ্বীপদের মুখের হাসিই বলে দেয় কত শক্ত তাদের মনোবল।আমি তাদের দেখে অবাক হই।কতই তাদের বয়স!! অনেকেই এ অনশনকে বলছেন বালসুলভ আবেগ।একটু স্মরণ করুন তো শহীদ ক্ষুদিরামকে।তার ভূমিকাকেও তো অনেকে বলেছেন আবেগ সর্বস্ব বালসুলভ আচরন।এই আবেগই যুগে যুগে নতুন চেতনার জন্ম দিয়েছে,পথহারার দিশা হয়েছে।

  3. রুমি স্কোয়াড আন্দোলনকে আরও
    রুমি স্কোয়াড আন্দোলনকে আরও বেগবান করবে বলেই আমার বিশ্বাস। লজ্জা লাগে এই বিষয়ে কিছু বলতে। কারন ওদের মতন সাহসী হতে পারলাম না এখনও।
    তবে আমাদের সবার উচিৎ এই ব্যাপারে সরকারের উপর জোর চাপ সৃষ্টি করা, যেন অবিলম্বে সরকারী পর্যায় থেকে ওদের আশ্বস্ত করে মৃত্যুর হাত থেকে এতগুলো দেশপ্রেমিক তাজা প্রাণ রক্ষা করার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

Leave a Reply to মিতু ভিঞ্চি Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *