ব্লগার অভিজিৎ​ রায়কে কুপিয়ে হত্যা!


(প্রথম আলো থেকে নেয়া)


(প্রথম আলো থেকে নেয়া)
ব্লগার ও লেখক অভিজিৎ​ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। আজ বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রাত সোয়া নয়টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পাশে সন্ত্রাসীরা অভিজিৎ​ রায় ও তাঁর স্ত্রী নাফিজা আহমেদকে কুপিয়ে জখম করে। আহত অবস্থায় তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান অভিজিৎ​। হাসপাতালের চিকিৎসক রেজা তাঁর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।অভিজিৎ​ ও তাঁর স্ত্রী দুজনই আমেরিকাপ্রবাসী। তিনি মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও লেখক। তাঁর লেখা নয়টির বেশি বই রয়েছে। অভিজিৎ​ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অজয় রায়ের ছেলে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী পিনাক রায় জানান, ধারালো অস্ত্রধারী দু-তিনজন সন্ত্রাসী অভিজিৎ​ ও তাঁর স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম করে। গুরুতর অবস্থায় তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এম আমজাদ আলী বলেন, বহিরাগত সন্ত্রাসীরা তাঁদের কুপিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আমার মতামত:(পূণঃসম্পাদিত)
ব্যক্তিগত জীবনে আমি তার অনেক সমালোচনা করেছি ধর্ম নিয়ে লেখা লেখির কারনে।
ভাবতেই কষ্ট হয় যাকে কটাক্ষ করে কয়েক দিন আগেও এই লেখাটি লিখেছিলাম :
http://www.sajalsfm.blogspot.in/2015/02/blog-post.html?m=1
আজ সেই লোকটা সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত ।তার মতের সাথে আমার মতের ১০০% অমিল ছিল ,তার কত সমালোচনা করেছি ,গালি গালাজ করেছি ভাবতেই মনে হয় কার সমালোচনা করে অনলাইনে লিখব ?
মতের অমিল থাকলেই তাকে হত্যার নির্দেশ আমার ধর্ম দেয়না কাজেই তাকে হত্যার তীব্র প্রতিবাদ জানাই ।লেখনির জবাব অস্ত্র নয় লিখনি দিয়ে দিতে হয় এটা ধর্মাজ্ঞ এই সন্ত্রাসীদের জানা নেই।
অভিজিত্‍ রায়ের হত্যাকারীদের অচিরেই গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতাধীন আনা হোক ।

১৮ thoughts on “ব্লগার অভিজিৎ​ রায়কে কুপিয়ে হত্যা!

    1. সহমত !
      ভাবতেই কষ্ট হয় যাকে

      সহমত !
      ভাবতেই কষ্ট হয় যাকে কটাক্ষ করে কয়েক দিন আগেও এই লেখাটি লিখেছিলাম :
      http://www.sajalsfm.blogspot.in/2015/02/blog-post.html?m=1
      আজ সেই লোকটা সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত ।তার মতের সাথে আমার মতের ১০০% অমিল ছিল ,তার কত সমালোচনা করেছি ,গালি গালাজ করেছি ভাবতেই মনে হয় কার সমালোচনা করে অনলাইনে লিখব ?
      মতের অমিল থাকলেই তাকে হত্যার নির্দেশ আমার ধর্ম দেয়না কাজেই তাকে হত্যার তীব্র প্রতিবাদ জানাই ।অভিজিত্‍ রায়ের হত্যাকারীদের অচিরেই গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতাধীন আনা হোক ।

  1. অভিজিৎ রায়ের মৃত্যুর দায়
    অভিজিৎ রায়ের মৃত্যুর দায় এদেশের সকল ধর্মান্ধদের। এই দায় তারা এড়াতে পারবেন না। পাশাপাশি অবশ্যই সরকারের। ধর্মান্ধদের অভয়রাণ্য হয়ে গেছে এদেশ। এটি এখন পাকিস্তানের মত অকার্যকর রাষ্ট্র।

    1. না সকলের নয়।পুত্রের দোষে পিতা
      না সকলের নয়।পুত্রের দোষে পিতা কখনো আইনের চোখে দোষী হবেনা কাজেই সন্ত্রাসীদেরই এ হত্যার দায় নিতে হবে।সন্ত্রাসীদের এহেন কর্মকাণ্ডে আজ আমরা ধার্ম পালনকারীরা লজ্জিত।

  2. এ এই এক পিকুলার কথা —
    এ এই এক পিকুলার কথা — প্রমান নাই তদন্তের আগেই ধারণা এবং অনুমানের ভিত্তিতে প্রমাণ ছাড়া অনেকেই তীর ছুঁড়ছেন ইসলামপন্থি উগ্রবাদীদের দিকে। ইসলামিক উগ্রবাদীরা তার উপর হামলা করতে পারেন আবার নাও করতে পারেন। যদি ধর্মীয় উগ্রবাদীরা এই হামলা করে তাহলে এর চেয়ে অধর্মীয় কাজ হয় না। ভিন্ন মতের জন্য কাউরে হত্যা করার কোন অধিকার কারো নাই। ভিন্নমতের প্রতি শ্রদ্ধা না থাকুক এট লিস্ট ভিন্ন মতাবলম্বীর বেঁচে থাকার রাইট তো স্বীকার করতে হবে।

    1. ওহে ধর্মীয় গর্দভ, মারার
      ওহে ধর্মীয় গর্দভ, মারার পদ্ধতি দেখলেই কি বুঝা যায় না ইহা কোরানসম্মতভাবে সহীহ ইসলামপালনকারীদের কাজ। একমাত্র কোরান ও ইসলামই এধরনের অমানবিক হত্যাযজ্ঞ সমর্থন করে।

    2. আপনি তো চিন্তা ভাবনা আকাশ
      আপনি তো চিন্তা ভাবনা আকাশ পাতাল কৈরা ফেলাইতেচেন!

      নীচে এক খানা ফেসবুক কমেন্টের স্ক্রিনশর্ট দেয়েচি, দ্যাকচেন তো?

    1. ফারাবী এবার গেল !
      অতিরিক্ত

      ফারাবী এবার গেল !
      অতিরিক্ত কিছুই যে মঙ্গলের নয় এবার ফারাবীর বোঝা হয়ে যাবে।আন্তর্জাতিক মিডিয়াও এবার ক্ষেপেছে এই হত্যাকান্ডের বিপক্ষে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *