ভবনতান্ত্রিক আন্দোলন

খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক আস্তানা এখন যেন কমেডির এক পুর্ণদৈর্ঘ্য খোয়াড় ! গত পরশু দিন পত্রিকায় দেখলাম, এক লুঙ্গী পরিহিত বিদেশীনি বসন্ত আর ভালবাসা দিবসের যুগল মাস্তির শিহরনে খালেদার কার্যালয়ের সামনে গিয়ে লুঙ্গি ড্যান্স শুরু করলেন- অল দ্যা খালেদা’স ফ্যান, ডোণ্ট মিস দ্যা চ্যান্স !


খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক আস্তানা এখন যেন কমেডির এক পুর্ণদৈর্ঘ্য খোয়াড় ! গত পরশু দিন পত্রিকায় দেখলাম, এক লুঙ্গী পরিহিত বিদেশীনি বসন্ত আর ভালবাসা দিবসের যুগল মাস্তির শিহরনে খালেদার কার্যালয়ের সামনে গিয়ে লুঙ্গি ড্যান্স শুরু করলেন- অল দ্যা খালেদা’স ফ্যান, ডোণ্ট মিস দ্যা চ্যান্স !

গতকাল পত্রিকায় দেখলাম, রিমিক্স হিট “ঘুম ভাঙ্গাইয়া গেল গো মরার কোকিল” খ্যাত বেবি নাজনীন খালেদার সাথে দেখা করতে গিয়ে কট ! পরে অবশ্য ছাড়ছে । কিন্তু ততক্ষনে যা ঘটার ঘটে গেছে , এই গানের কথা ভাবতেই কেমন যেন উদাস হয়ে গেলেন নৌমন্ত্রী ! আচমকা কি যেন মনে পড়ে গেল, অতঃপর তিনি “মরার কোকিলের” ভুমিকা নিয়ে বিপুল পরিমান সাঙ্গপাঙ্গ সাথে নিয়ে প্রঃআঃ’র ভাষায় “খালেদার ঘুম ভাঙ্গাতে” গুলশানে চলে গেলেন !!!

প্রতিদিনকার নিত্য নতুন আজগুবি ঘটনার আতুড়ঘর এই গুলশান কার্যালয় !! ভবন কেন্দ্রিক রাজনীতির “বেহাল কর্ণধার” বিম্পি ক্ষমতায় থাকার সময় “হাওয়া ভবন”কেই ‘হোয়াইট হাউজ’ বানিয়ে ছেড়েছিল, হাওয়া ভবন একাই একাধারে গণভবন, মন্ত্রণালয় , সচিবালয় এবং সংসদ ভবনের ভুমিকা পালন করছিল ! আর এখন গুলশান কার্যালয় একাধারে- খালেদার বাসস্থান, রাজনৈতিক কার্যালয়, জঙ্গী সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য , মানুষ হত্যার গবেষনাগার, বঙ্গদেশীয় দালাল ধান্দাবাজ কুবুদ্ধিজীবিদের খোয়াড় – সব মিলিয়ে পুরাই রঙ্গশালা !!

ম্যাডাম জিয়া আগে ভর করছিলেন ক্যাণ্টনম্যাণ্টে , সেখান থেকে সমুলে উৎপাটন করায় কান্নাকাটি করে দুয়েকদিন হরতাল ও ডেকেছিলেন !! কাজ না হওয়ায় শেষমেষ আর্মিদের ঘাড় থেকে নেমে তিনি এবার বিদেশী কুটনৈতিকদেরঘাড়ে সওয়ার হলেন- তাদের এলাকা গুলশানে দলীয় কার্যালয় বানিয়ে !! কিন্তু ক্যাণ্টন্মেণ্টে থেকেও যেমন শেষ রক্ষা হয় নাই, ঠিক তেমনি কুটনৈতিক এলাকায় গিয়েও শেষ রক্ষা হল না ! হবেও না কখনো !!

ম্যাডাম জিয়া কে বোঝাবে যে, বাসাবাড়িতে একপাল পঙ্গপাল সাথে নিয়ে পিকনিক হয়, তবে কখনোই সফল আন্দোলন হয় না !

আন্দোলন করতে হয় রাজপথে ! পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোন গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ঘটনা ঘটে নাই, যা রাজ প্রাসাদে বসেই সফল হৈছিল !
আমি জানি, পাল্টা প্রশ্ন আসবে- সরকার কি বিম্পিকে রাস্তায় নামতে দিচ্ছে !? কাপুরুষ রাজনৈতিক দলের কাপুরুষ সমর্থকদের মুখেই কেবল এসব কথাবার্তা মানায় !! এদেশের কোন ক্ষ্মতাসীন রাজনৈতিক দল বিরোধী দল কে আন্দোলন করার সুযোগ দিছিল ।
২০০৬ সালে আওয়ালীগের লংমার্চের সময় কেবল ঢাকাতেই এক দিনে ৮০০০ কর্মী কে গ্রেফতার হৈছিল ! রাজপথে তোফায়েল মতিয়া সাহারা খাতুন দের কিভাবে পিটাইছিল বিম্পির পুলিস , তা এখনো চোখে ভাসে !! তারপর ও ত তারা রাজপথ থেকে সরে বাসা বা অজ্ঞাতস্থান থেকে বিবৃতি পাঠিয়ে বলেন নাই যে – বিম্পি আমাদের রাজপথে নামতে দিচ্ছে না !! কিংবা বিদেশী দের কাছে গিয়ে কান্নাকাটি ও করে নাই ! তাই আওয়ামীলীগ তাদের আন্দোলন সফল করতে পারছিল , কিন্তু বিম্পি নামক এ কাপুরুষ জঙ্গী দল দাবি আদায়ে কখনোই সফল হতে পারবে না !!

কারণ ঘি মাখন খেয়ে ,৩৭ জন ব্যাক্তিগত বিউটিশয়ান কে সাথে রেখে সফল নাটক সিনেমা হয়ত বানানো সম্ভব কিন্তু সফল আন্দোলন কখনোই সম্ভব না !

প্লিজ ম্যাডাম , আপাতত আমাদের ঘাড় থেকে নেমে আমাদের মুক্তি দেন , জাতির অধিকার আদায় নিয়ে আপনাকে ভাবতে হবে না ! জাতি নিজের টা নিজেই বুঝবে, এই বোমাতঙ্ক আর প্রাণে সয় না ! আর কত !!? ছেড়ে দে মা কেদে বাচি ……

২ thoughts on “ভবনতান্ত্রিক আন্দোলন

  1. আন্দোলন করতে হয় রাজপথে !

    আন্দোলন করতে হয় রাজপথে ! পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোন গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ঘটনা ঘটে নাই, যা রাজ প্রাসাদে বসেই সফল হৈছিল !
    আমি জানি, পাল্টা প্রশ্ন আসবে- সরকার কি বিম্পিকে রাস্তায় নামতে দিচ্ছে !? কাপুরুষ রাজনৈতিক দলের কাপুরুষ সমর্থকদের মুখেই কেবল এসব কথাবার্তা মানায় !! এদেশের কোন ক্ষ্মতাসীন রাজনৈতিক দল বিরোধী দল কে আন্দোলন করার সুযোগ দিছিল ?

    ভাল্লাগছে। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *