অবিলম্বে জামাত-শিবির নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া শুরুর দাবীতে মশাল মিছিল

ধর্ম ধর্ম করিস না, ধর্ম তোদের বাপের না।
আমার সোনার বাংলাদেশ, জামাত শিবির করলো শেষ।
জামাত শিবির রাজাকার, এই মুহুর্তে বাংলা ছাড়।

গত ৪২ বছর ধরেই বিষাক্ত এই কীটকে পুষে-পেলে একটি ভাইরাস তৈরী করেছি আমরা। শান্তির পতাকার নিচে ওদের জায়গা করে দিলেও ওরা আমাদের দুর্বল ভেবে বারবার আঘাত করে রক্তাক্ত করেছে। অনেক হয়েছে আর না। ৭১ এ যারা যুদ্ধ করেছেন, প্রাণ দিয়েছেন, সম্মান হারিয়েছেন তাদেরই রক্ত আমাদের শরীরে। এখন সময় সেই রক্তকে আবার শাণিত করার, আবার জাগিয়ে তোলার।
আলটিমেটাম ২৬শে মার্চ। শুরু করতে হবে জামাত শিবির নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া।

ধর্ম ধর্ম করিস না, ধর্ম তোদের বাপের না।
আমার সোনার বাংলাদেশ, জামাত শিবির করলো শেষ।
জামাত শিবির রাজাকার, এই মুহুর্তে বাংলা ছাড়।

গত ৪২ বছর ধরেই বিষাক্ত এই কীটকে পুষে-পেলে একটি ভাইরাস তৈরী করেছি আমরা। শান্তির পতাকার নিচে ওদের জায়গা করে দিলেও ওরা আমাদের দুর্বল ভেবে বারবার আঘাত করে রক্তাক্ত করেছে। অনেক হয়েছে আর না। ৭১ এ যারা যুদ্ধ করেছেন, প্রাণ দিয়েছেন, সম্মান হারিয়েছেন তাদেরই রক্ত আমাদের শরীরে। এখন সময় সেই রক্তকে আবার শাণিত করার, আবার জাগিয়ে তোলার।
আলটিমেটাম ২৬শে মার্চ। শুরু করতে হবে জামাত শিবির নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া।
আপনার পুর্বপুরুষরা ৭১ এ তাদের কাজ করে গেছেন, দিয়ে গেছেন স্বাধীনতা। এবার আমাদের পালা এই স্বাধীনতাকে রক্ষা করার।
কাল, ২৪ তারিখ, সন্ধ্যা ৬টায় জাদুঘরের সামনে অবিলম্বে জামাত-শিবির নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া শুরুর দাবীতে মশাল মিছিল এ যোগ দিন। নিয়ে আসুন আপনাদের বন্ধু-বান্ধবসহ সবাইকে।

জোর গলায় স্লোগান তুলুন…

পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা,
পাকিস্তানে ফেরত যা।
জামাতে ইসলাম…
মেড ইন ফাকিস্তান।
একাত্তুরে হয়নি সাজা…
মুক্তিযুদ্ধ হয়নি শেষ।
গর্জে ওঠো বীর বাঙালী…
গর্জে ওঠো বাংলাদেশ।
লাখো শহীদ ডাক পাঠালো সব সাথীদের খবর দে…
সারা বাংলা ঘেরাও করে জামাত-শিবির কবর দে।

১০ thoughts on “অবিলম্বে জামাত-শিবির নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া শুরুর দাবীতে মশাল মিছিল

  1. লাখো শহীদ ডাক পাঠালো সব
    লাখো শহীদ ডাক পাঠালো সব সাথীদের খবর দে…
    সারা বাংলা ঘেরাও করে জামাত-শিবির কবর দে।

  2. সবাই পোস্টটি শেয়ার করুন। নিজে
    সবাই পোস্টটি শেয়ার করুন। নিজে উপস্থিত হতে না পারলেও আপনার শেয়ারের কারনে একজনও যদি যোগ দেন সেটাই অনেক।

  3. ঢাকায় থাকলে অবশ্যই অংশ নিতাম।
    ঢাকায় থাকলে অবশ্যই অংশ নিতাম। ঢাকায় অবস্থান করছেন এমন সবাইকে যথা সময়ে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানাইলাম। পোস্ট শেয়ার দিলাম।

  4. জয় বাংলা শ্লোগানটা কি স্থান
    জয় বাংলা শ্লোগানটা কি স্থান পাইলো না? আফসোস হইতেছে ভীষণ কেননা আমরা বর্তমান সময়ে মুক্তিযুদ্ধের বিষয় নিয়া আন্দোলন করতাছি অথচ মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধাদের শ্লোগান দিতাছি না, সেল্যুকাস মাইরি।

    1. আসলেই মির্জা আব্বাস, কি
      আসলেই মির্জা আব্বাস, কি সেল্যুকাস। সবকিছুতেই আঙ্গুল দেয়াও মানুষের অভ্যাস হৈয়া দাড়াইছে।

        1. এই যে ১০/১২ লাইনের একটা ছোট্ট
          এই যে ১০/১২ লাইনের একটা ছোট্ট পোস্ট পইড়া আর কিছু না পাইয়া, খুইজা বাইর করছেন খুত। এইটারে তো আঙ্গুল দেয়াই কয়। আর এই যে জয় বাংলা জয় বাংলা করেন এতো, এইটা কোথায় লেখা হৈলো আর লেখা হৈলো না তার দেখার টেন্ডার নিশ্চই আপনারে দেয়া হয় নাই। আর এইখানে জয় বাংলা না লেখায় হয়তো আমার লেখার মান কইমা গ্যাছে কিন্তু তাতে জয় বাংলা স্লোগান এর মান বিন্দুমাত্র কমে নাই কিন্তু আপনি এইটা নিয়া সেল্যুকাস জাতীয় শব্দ ব্যাভার করাতেই বরঞ্চ একটা ঝামেলা হইলো।

          1. এই যে ১০/১২ লাইনের একটা ছোট্ট

            এই যে ১০/১২ লাইনের একটা ছোট্ট পোস্ট পইড়া আর কিছু না পাইয়া, খুইজা বাইর করছেন খুত।

            খুঁত বলে মাইনাই নিছেন যখন তহন আবার সেই খুতরে সহীহ করবার কি আছে?
            আর এইবারের আন্দোলনে আমি এই জিনিসটা লইয়াই বেশি কথা কইতাছি, এটা আমার চ্যালেঞ্জ এই বাংলায় “জয় বাংলা” “জয় বঙ্গবন্ধু” সাধারন জনগনের শ্লোগান হিসেবে পরিণত করুম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *