কবিতাঃ স্বাধীনতার নয় মাস

করেনি তারা আমাদেরকাছে ক্ষমতা হস্তান্তর,
তাই জুয়ার এসেছিল এক থেকে অন্য প্রান্তর।

৭ই মার্চে শেখ মুজিব আমাদের দিয়েছিলেন ডাক,
বলেছেন প্রতিরুদ্ধ গড়ে তুল বিরুদ্ধে পাক।

তার ডাকে সারা দিয়ে নিজেকে করেছিলাম প্রস্তুত,
কিন্তু থেমে থাকেনি পাকবাহিনীর রাক্ষুসে ঠোট।

হঠাৎ আমাদের উপর তারা আক্রমন চালায়,
কেউ ছুটাছুটি আবার কেউ নি:স্ব হয়ে পালায়।

শুরু হয়ে যাই তখন স্বাধীনতা অর্জনের যুদ্ধ,
ঠিক সেই সময়েই বঙবন্ধু চিলেন অবরুদ্ধ।

মার কথা চিন্তা করে হাতে তুলে নিয়েছি অস্ত্র,
সে সময় আমার নিরীহ, নেই খাওয়া নেই বস্ত্র।

দেশপ্রেমে অনুপ্রানিত হয়ে অনেকে যুদ্ধে পরে ঝাপিয়ে,

করেনি তারা আমাদেরকাছে ক্ষমতা হস্তান্তর,
তাই জুয়ার এসেছিল এক থেকে অন্য প্রান্তর।

৭ই মার্চে শেখ মুজিব আমাদের দিয়েছিলেন ডাক,
বলেছেন প্রতিরুদ্ধ গড়ে তুল বিরুদ্ধে পাক।

তার ডাকে সারা দিয়ে নিজেকে করেছিলাম প্রস্তুত,
কিন্তু থেমে থাকেনি পাকবাহিনীর রাক্ষুসে ঠোট।

হঠাৎ আমাদের উপর তারা আক্রমন চালায়,
কেউ ছুটাছুটি আবার কেউ নি:স্ব হয়ে পালায়।

শুরু হয়ে যাই তখন স্বাধীনতা অর্জনের যুদ্ধ,
ঠিক সেই সময়েই বঙবন্ধু চিলেন অবরুদ্ধ।

মার কথা চিন্তা করে হাতে তুলে নিয়েছি অস্ত্র,
সে সময় আমার নিরীহ, নেই খাওয়া নেই বস্ত্র।

দেশপ্রেমে অনুপ্রানিত হয়ে অনেকে যুদ্ধে পরে ঝাপিয়ে,
শপথ শুধু একটাই, দেশ আমরা আনবো চিনিয়ে।

চলে আমাদের স্বাধীনতার যুদ্ধ দীর্ঘ নয় মাস,
হাতের মুঠ স্বপ্ন নিয়ে বলেছিলাম, ” মা একবার হাস “।

অবশেষে পেলাম স্বাধীনতা, হারালাম অনেককে,
এখনও সেই আক্রমন ভেসে উঠে আমার চোখে।

কষ্টের সাথে বলছি অনেকে ভুলে গেছে মায়ের কান্নার আওয়াজ,
তাই বলি এই দেশে যোদ্ধাপরাধী কিভাবে থাকে আজ।

৬ thoughts on “কবিতাঃ স্বাধীনতার নয় মাস

  1. বাহ! খুব সুন্দর ভাবে
    বাহ! খুব সুন্দর ভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ফুটে উঠলো আপনার কবিতায়। ভালো লাগলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *