মানবতা এবং আমরা

ছোটবেলায় মানবতার যে সংজ্ঞা শিখেছিলাম বড়বেলায় এসে তা কেন জানি মিলছে না।
আচ্ছা মানবতার সংজ্ঞা কি প্রতিনিয়ত চেঞ্জ হয়?

সাম্প্রতিক কিছু ঘটনা দেখার পর মানবতার প্রতি অভিজ্ঞতা তিক্ত থেকে তিক্ততর হয়ে যাচ্ছে।

১.প্রথমে আসি যুদ্ধাপরাধী ইস্যুতে,১৯৭১ সালে ৩০ লাখ শহীদ আর ২ লাখ বীরাঙ্গনার জন্য পেয়েছি এই বাংলাদেশ।
যারা বাংলাদেশ চায়নি, চেয়েছিল পূর্ব পাকিস্তান তারাইতো মেতে উঠলো এক নষ্ট নেশায়।এ দেশের নারীদের ভোগের পন্যে পরিনত করে দিল কিছু নরপশু। আমাদের মা বোনদের উপর চালালো অমানবিক নির্যাতন। আমরা হারালাম কিছু মেধাবী সন্তান।দেশকে পরিনত করতে চেয়েছিল বুদ্ধিজীবী হীন এক দূর্বল রাষ্ট্রে।

ছোটবেলায় মানবতার যে সংজ্ঞা শিখেছিলাম বড়বেলায় এসে তা কেন জানি মিলছে না।
আচ্ছা মানবতার সংজ্ঞা কি প্রতিনিয়ত চেঞ্জ হয়?

সাম্প্রতিক কিছু ঘটনা দেখার পর মানবতার প্রতি অভিজ্ঞতা তিক্ত থেকে তিক্ততর হয়ে যাচ্ছে।

১.প্রথমে আসি যুদ্ধাপরাধী ইস্যুতে,১৯৭১ সালে ৩০ লাখ শহীদ আর ২ লাখ বীরাঙ্গনার জন্য পেয়েছি এই বাংলাদেশ।
যারা বাংলাদেশ চায়নি, চেয়েছিল পূর্ব পাকিস্তান তারাইতো মেতে উঠলো এক নষ্ট নেশায়।এ দেশের নারীদের ভোগের পন্যে পরিনত করে দিল কিছু নরপশু। আমাদের মা বোনদের উপর চালালো অমানবিক নির্যাতন। আমরা হারালাম কিছু মেধাবী সন্তান।দেশকে পরিনত করতে চেয়েছিল বুদ্ধিজীবী হীন এক দূর্বল রাষ্ট্রে।
ত্রিশ লাখ শহীদ রক্ত দিল বাংলাদেশ নামক সূর্য উদিত করার জন্য।
কিন্তু কিভাবে?
একটা অপরিচিত জনপদ,ভিন্ন আবহাওয়ায় পাক হানাদারদের জন্য কাজটা কি খুব সহজ ছিল?
না,এজন্যই এগিয়ে এলো এদেশেরই কিছু কুলাঙ্গার। প্রতিটি জনপদ প্রতিটি জেলা,প্রতিটি রিজিওন কে হাতে ধরে দেখিয়ে দিল।মা বোনদের জোর করে তুলে দিল গনিমতের মাল হিসেবে।অস্ত্র চালালো আমার দেশের ভাইদের উপর।
কোথায় ছিল মানবতা যখন ত্রিশ লাখ মানুষ প্রান দিয়েছিল? কোথায় ছিল মানবতা যখন ২লাখ নারী বীরাঙ্গনা হলো?
কিন্তু মজার ব্যাপার, যখন সেইসব যুদ্ধাপরাধী দের বিচারের আওতায় আনলো সরকার তখনই মানবতা জেগে উঠলো।
যুদ্ধাপরাধীদের বিচার মানবতার লঙ্ঘন, মানবতার চরম বিপর্যয় ব্লা ব্লা বলতে শুরু করলো এক শ্রেনীর মানুষ, ইভেন জাতিসংঘ!

তাহলে মানবতার সংজ্ঞা কি পরিবর্তিত হয়ে গেল?

২.দেশে টানা অবরোধ চলছে অনেক দিন হলো।বিএনপি জামায়েতের ডাকা অবরোধে প্রতিনিয়তই পুরে চলছে রক্ত মাংসের শরীর। এইতো দুদিন আগেও রংপুরে জীবন্ত শিশু পুড়ে ছাই হয়ে গেল।কোথায় ছিল মানবতা?
কিন্তু যখন বিজিবি প্রধান বললো হামলাকারীদের দেখা মাত্র গুলি করা হবে তখনই মানবতা উতলাই উঠলো এক শ্রেনীর মানুষের।
এটাই কি মানবতার আসল সংজ্ঞা?

৩.গতকাল মৎস ভবনের সামনে পুলিশের উপর চালানো হলো অমানবিক হামলা।হাসপাতালে ধুকছে পুলিশ। একের পর একক পুলিশের উপর হামলা চলছেই।
লাস্ট বছরে কত পুলিশকে জীবন দিতে হলো জামাত শিবির আর বিএনপির ডাকা হরতালে।
এ নিয়ে কারো কিছু আসে যায় না।পুলিশদের আর জীবন?!
জীবনতো হামলাকারীদের!

মানবতা প্রায়ই ঘুমায় যখন শিশু পুড়ে ছাই হয়,পুলিশ রাস্তায় মরে পড়ে রয়। কিন্তু জেগে উঠে হামলাকারীদের উপর গুলির নির্দেশ এলে!

আসলেই মানবতার সংজ্ঞা বদলে গেছে….

১ thought on “মানবতা এবং আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *