বাংলাদেশটা ভালো নেই!

ক্ষমতার লোভে শূয়োরগুলো হিংস্র জানোয়ারের রূপ ধারণ করেছে!
হিংসার আগুনে জ্বলে জ্বলে উচ্ছৃঙ্খল হয়ে উঠছে দিন দিন,
পাগলা কুত্তার মতো যার তার পায়ে কামড় বসিয়ে দিচ্ছে যখন তখন,
পবিত্রজনের দিকে ছুড়ে দিচ্ছে স্থানভেদে অবৈধ শব্দ সহযোগে অশালীন মন্তব্য!
স্রষ্টাকে ভ্রষ্টা অনিয়মকে নিয়ম শয়তানকে দেবতার স্থানে বসিয়ে নীতিমালার নামে অনৈতিক ভাবনা সাজিয়ে গনতান্ত্রিকভাবে দেশ চালানোর অধিকার চায় তারা,
অথচ দেশ’টার বুকে অজস্র মা বোনের ইজ্জত আর আত্মত্যাগে ত্রিশলক্ষ শহীদের রক্তে খোদাই করা একটা স্বাধীন দেশের নাম, বাংলার দেশ বাঙালির দেশ- বাংলাদেশ।

ক্ষমতার লোভে শূয়োরগুলো হিংস্র জানোয়ারের রূপ ধারণ করেছে!
হিংসার আগুনে জ্বলে জ্বলে উচ্ছৃঙ্খল হয়ে উঠছে দিন দিন,
পাগলা কুত্তার মতো যার তার পায়ে কামড় বসিয়ে দিচ্ছে যখন তখন,
পবিত্রজনের দিকে ছুড়ে দিচ্ছে স্থানভেদে অবৈধ শব্দ সহযোগে অশালীন মন্তব্য!
স্রষ্টাকে ভ্রষ্টা অনিয়মকে নিয়ম শয়তানকে দেবতার স্থানে বসিয়ে নীতিমালার নামে অনৈতিক ভাবনা সাজিয়ে গনতান্ত্রিকভাবে দেশ চালানোর অধিকার চায় তারা,
অথচ দেশ’টার বুকে অজস্র মা বোনের ইজ্জত আর আত্মত্যাগে ত্রিশলক্ষ শহীদের রক্তে খোদাই করা একটা স্বাধীন দেশের নাম, বাংলার দেশ বাঙালির দেশ- বাংলাদেশ।
একটি দেশের জন্মপূর্ববর্তী ভ্রণ সৃষ্টি লগ্ন থেকে যার আত্মত্যাগের মহিমা জড়িত বাঙালি জাতির সেই অগ্রনায়ক জাতির পিতাকে দিয়ে দিচ্ছে দেশদ্রোহের অপবাদ,
বঙ্গশত্রু উপাধি দিয়ে বঙ্গবন্ধুকে বানিয়ে দিচ্ছে পাকপ্রেমী রাজাকার!
জন সাধারণের মৌলিক শান্তি কেড়ে নিচ্ছেতো বটেই উপরন্তু মানুষকে আতঙ্কের মুখে দাঁড় করিয়ে রেখে বলে “বাংলাদেশের জনগন আমাদের সাথে আছে” যেন জনগন তাদের টাকায় কেনা তিনি পুরুষের গোলাম!
দিনেদুপুরে যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়ে সাধারণ পথচারী পুড়িয়ে মেরে বলছে জনতা নাকি তাদের আন্দোলনে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সারা দিচ্ছে!
এক একটি পেট্রোলবোমের মাঝে যেনো তাদের গণতন্ত্র লুকানো।
একবারের জন্য ভাবেনা যে নিরপরাধ মানুষগুলো মারা গেছে তাদের বেশির ভাগই ঘর থেকে বেরিয়েছিলো নিজের জন্য নিজের পরিবারের জন্য দু’মুঠো খাবার যোগান দিতে।
পাকিদের হয়ে একাত্তরে যারা নিরীহ বাঙালির বাড়িঘর লুট গণহত্যা ধর্ষণ অগ্নিসংসযোগে সরাসরি ভূমিকা রেখেছিলো সেই সব চিহ্নিত কুলাঙ্গারদের সাথে সহবাস শেষে এসে বাণী দেয়, “আমারা স্বাধীনতার স্বপক্ষের দল, আমরাও যোদ্ধাপরাধীর বিচার চাই!”
ঊনিশ থেকে বিশ হলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর জ্বালায়ে দিয়ে মন্দিরে মূর্তি ভেঙ্গে এসে বলে, “আমরা অসাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসী!”
আমরা ঘুমাচ্ছি আগুন খেয়ে লাথি খেয়েও ঘুমাচ্ছি হায়েনাদের থাবা খেয়ে শরীর গুটিয়ে ঘুমাচ্ছি অথচ!
আমার দেশটা ভাল নেই, আমার মায়ের দেশটা ভাল নেই-
আমার জন্মভূমির সহজসাধারণ মানুষ গুলো ভালো নেই! বাংলাদেশটা ভালো নেই!
—————————

বাংলাদেশটা ভালো নেই! ।। নিবিড় রৌদ্র।
তারিখ- ১৬।০১।১৫ ইং
বিকেল- ০৪. ২২ মিনিট।

১ thought on “বাংলাদেশটা ভালো নেই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *