অভিজিৎ রায়ের কাঠগড়ায় মুক্তমনারা

মুক্তমনা’ ধর্মের গুরুজী অভিজিৎ রায়ের কাঠগড়ায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন

১. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? – আমার নাম অ্যারিয়েল শ্যারন। ধর্মের নাম জুদাইজম।

অভিজিৎ: উরি বাবা! আপনি তো আমার প্রভু। আমি আবার আপনার কী বিচার করমু! আপনি তো কোনো অপরাধই করতে পারেন না, আর করলেও আপনার ধর্মের সাথে তার কোন সম্পর্ক নাই।

২. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? – আমার নাম জর্জ বুশ। ধর্মের নাম খ্রীষ্টিয়ানিটি।


মুক্তমনা’ ধর্মের গুরুজী অভিজিৎ রায়ের কাঠগড়ায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন

১. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? – আমার নাম অ্যারিয়েল শ্যারন। ধর্মের নাম জুদাইজম।

অভিজিৎ: উরি বাবা! আপনি তো আমার প্রভু। আমি আবার আপনার কী বিচার করমু! আপনি তো কোনো অপরাধই করতে পারেন না, আর করলেও আপনার ধর্মের সাথে তার কোন সম্পর্ক নাই।

২. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? – আমার নাম জর্জ বুশ। ধর্মের নাম খ্রীষ্টিয়ানিটি।

অভিজিৎ: খাইছে রে! আপনি আমার গুরু। তাছাড়া আপনার দেশে আমাকে আশ্রয় দিয়েছে। কাজেই আপনিও কোনো অপরাধ করতে পারেন না, আর করলেও আপনার ধর্মের সাথে তার কোনই সম্পর্ক নাই।

৩. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? – আমার নাম নরেন্দ্র মোদি। ধর্মের নাম সনাতন

অভিজিৎ: ও আমাগো প্রিয় মোদিজী! আপনার ধর্মে যে টুকটাক ভুল গুলি ছিল তা তো অনেক আগেই সংস্কার করা হয়ে গেছে। আপনার ধর্মে আর কোনো সমস্যা নাই। কাজেই আপনি কোনো অপরাধ করে থাকলেও তার জন্য আপনার ধর্ম দায়ী নয়। আর গুজরাটে আপনি শ্রীকৃষ্ণের ন্যায় কুরুক্ষেত্রের ভূমিকা নিয়েছিলেন। তাই ২০০২ সালের ঘটনায় আপনার কোন দোষ নাই।

৪. অভিজিৎ : তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? অপরাধী: আমার নাম পল পট। আমি একজন নাস্তিক।

অভিজিৎ: আপনি তো দেখি আমার ধর্মের ভাই। আপনার জন্য সাত খুন মাফ। আর আপনি যে লক্ষ লক্ষ মানুষ হত্যা করেছেন তার সাথে সহি নাস্তিকতার কোনোই সম্পর্ক নাই।

৫. অভিজিৎ: তোমার নাম ও ধর্মীয় পরিচয়? অপরাধী: আমার নাম তিতুমীর। ধর্মের নাম ইসলাম।

অভিজিৎ: তুমি হিন্দু জমিদার ও ব্রিটিশ সৈন্যদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছ, তাই না? তুমি একজন জিহাদী ওরফে সন্ত্রাসী ওরফে ছাগু। তোমাকে ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেওয়া হলো।

বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ অভিজিৎ বিদ্যায়।
বরং বিক্ষত হও প্রশ্নের পাথরে।
বরং বুদ্ধির নখে শান দাও, প্রতিবাদ করো।

অন্তত আর যাই করো, অভিজিৎ এর সমস্ত কথায়
অনায়াসে সম্মতি দিও না।
কেননা, অভিজিৎ এর সমস্ত কথা যারা অনায়াসে মেনে নেয়,
তারা আর কিছুই করে না,
তারা আত্মবিনাশের পথ
পরিস্কার করে।”

এই লেখাটা এস এম রায়হান ভাইয়ের একটা status থেকে নেওয়া হয়েছে

২০ thoughts on “অভিজিৎ রায়ের কাঠগড়ায় মুক্তমনারা

  1. ফাত্রামীর নমুনা সেকেলে। তোমার
    ফাত্রামীর নমুনা সেকেলে। তোমার এই বা্্মার্কা লেখা দিয়া অভিজিতের একটাও হিন্দি চুল খসবে না। যুক্তির জবাব যুক্তি দিয়া দিতে অপারগ হয়ে ছোট ছেলের মত আচরণ করা দেখে হাসি পাচ্ছে। একটা আত্মস্বীকৃত জঙ্গিকে যারা সমর্থন দিচ্ছে তাদের চিনে রাখলাম। ব্লগ কর্তপক্ষের এসব জঙ্গি সমর্থকদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

    1. মুক্তমনা ধর্ম গুরুর শিষ্য
      মুক্তমনা ধর্ম গুরুর শিষ্য হাজিরা দিয়ে গেলো নাকি? কারো একটা লেখা ভালো লাগা মানেই কি সে তাকে সবকাজে সাপোর্ট দিচ্ছে? এমন বোকামী কথা শোনলে বোকাও লজ্জা পাবে। 😀 😀

      1. ফারাবীর আগের পোস্টে যারা
        ফারাবীর আগের পোস্টে যারা ফারাবীকে সমর্থন করে মন্তব্য করেছে তাদের মন্তব্যের স্ক্রিনশট নিয়ে রাখলাম। জায়গামত পাঠিয়ে দিলাম। জঙ্গিবাদকে সমর্থনের শাস্তি রাষ্ট্রই দেবে।

        1. ফারাবীর আগের পোস্টে যারা

          ফারাবীর আগের পোস্টে যারা ফারাবীকে সমর্থন করে মন্তব্য করেছে তাদের মন্তব্যের স্ক্রিনশট নিয়ে রাখলাম। জায়গামত পাঠিয়ে দিলাম। জঙ্গিবাদকে সমর্থনের শাস্তি রাষ্ট্রই দেবে।

          এটা কিন্তু ইকারাস বেশী বেশী হইয়া যাচ্ছে। আপনারে জঙ্গি সাইজ করার আইনগত ও রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব দিলো কে? আপনি এইরকম করলে তো অনেকেই আপনার নামে ৫৭ ধারায় ধর্ম অবমাননার কেস দেবার জন্য উঠেপড়ে লাগবে। এভাবে যদি আপনার পুলিশী ভূমিকা পালন করার ইচ্ছা থাকে, তাহলে এই ব্লগের সম্মানীত মডারেটরকে আপনার পুলিশে ধরিয়ে দেয়া উচিত; কারণ, আপনার কথা ঠিক হলে, সে ফারাবীকে এখানে ব্লগিং করার সুযোগ দিয়ে জঙ্গীবাদকে উস্কে দিয়েছে, তাই নয় কি?

          তাই বলছি, জঙ্গি পুন্দানোর নাম কইরা নিজেই উগ্রবাদী আর জঙ্গি হইয়েন না !

  2. বাংলা ব্লগের এই আকালের দিনে
    বাংলা ব্লগের এই আকালের দিনে ফারাবীর মত ফাতরামী করা কাউকে সুযোগ করে দিলে ব্লগকে হয়ত একটু তর্ক-বিতর্ক করে জমানো যায়।

  3. নিচু জাতের হিন্দু গুলাই
    নিচু জাতের হিন্দু গুলাই সারাদিন অভিজিৎ রায়ের পা চাটে। পিনাকীর মত উচ্চ বর্ণের হিন্দুরা অভিজিৎ কে গনাতেও ধরে না।

    1. নিচু জাতের হিন্দু গুলাই

      নিচু জাতের হিন্দু গুলাই সারাদিন অভিজিৎ রায়ের পা চাটে। পিনাকীর মত উচ্চ বর্ণের হিন্দুরা অভিজিৎ কে গনাতেও ধরে না।

      একটু উল্টিয়ে বললে কেমন হয়?
      নিচু জাতের ধর্মান্ধরাই অভিজিতের গুয়া’য় বাঁশ দ্যায় আর উন্নত প্রজাতির ছাগলে’রা পিনাকীর মতো বলদের পাছা চাটে।

  4. বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ

    বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ অভিজিৎ বিদ্যায়।
    বরং বিক্ষত হও প্রশ্নের পাথরে।
    বরং বুদ্ধির নখে শান দাও, প্রতিবাদ করো।
    অন্তত আর যাই করো, অভিজিৎ এর সমস্ত কথায়
    অনায়াসে সম্মতি দিও না।
    কেননা, অভিজিৎ এর সমস্ত কথা যারা অনায়াসে মেনে নেয়,
    তারা আর কিছুই করে না,
    তারা আত্মবিনাশের পথ
    পরিস্কার করে।”

    😀

  5. বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ

    বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখ অভিজিৎ বিদ্যায়।
    বরং বিক্ষত হও প্রশ্নের পাথরে।
    বরং বুদ্ধির নখে শান দাও, প্রতিবাদ করো।
    অন্তত আর যাই করো, অভিজিৎ এর সমস্ত কথায়
    অনায়াসে সম্মতি দিও না।
    কেননা, অভিজিৎ এর সমস্ত কথা যারা অনায়াসে মেনে নেয়,
    তারা আর কিছুই করে না,
    তারা আত্মবিনাশের পথ
    পরিস্কার করে।”

    😀

  6. ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা
    ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা মারহাবা ইঞ্জিঃ রায়হান শরীফ ভাই চমত্‍কার লিখসে!
    ফাকিং কাওয়ার্ড অভিজিত্‍ রায়ের কাঠগড়া বেপুক পক্ষপাতির কাঠগড়া ।

  7. ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা
    ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা মারহাবা ইঞ্জিঃ রায়হান শরীফ ভাই চমত্‍কার লিখসে!
    ফাকিং কাওয়ার্ড অভিজিত্‍ রায়ের কাঠগড়া বেপুক পক্ষপাতির কাঠগড়া ।

  8. ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা
    ফারাবী চমত্‍কার হৈসে মারহাবা মারহাবা ইঞ্জিঃ রায়হান শরীফ ভাই চমত্‍কার লিখসে!
    ফাকিং কাওয়ার্ড অভিজিত্‍ রায়ের কাঠগড়া বেপুক পক্ষপাতির কাঠগড়া ।

  9. ফালতু পোস্ট। এই লেখা যদি
    ফালতু পোস্ট। এই লেখা যদি স্যাটায়ার হয় তো বাকিদের উচিৎ স্যাটায়ার লেখা বন্ধ করে দেয়া। তোমার মতো উজবুক অভিজিৎ রায়ের মর্ম বুঝবে না এটাই সত্য।

  10. ”মুসলিম শুটার হইলে তোমরা
    ”মুসলিম শুটার হইলে তোমরা ইসলামকে দায়ী কর।
    ব্ল্যাক শুটার হইলে তোমরা সমগ্র ব্ল্যাক রেসকে দায়ী কর।
    আর সাদা শুটার হইলে তোমরা কেবল উক্ত ব্যাক্তিকে দায়ী কর।
    বাট হুয়াই?”

    মাথায় ঘিলু থাকলে অবশ্যই বুঝতেন এই হুয়াই এর মানে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *