ভেগাবন্ডের এক রাত !!!

এ বার শীতে এখনও ঘন কুয়াশার দেখাই মিলল না। আজ ই এ বছরের শীতের প্রথম আভা লাগছে। এখন রাত ২.৩০। বছরের প্রথম শীত উদযাপন করব। তাই চাদর মুড়ি দিয়ে বেড়িয়ে পড়লাম। গন্তব্য কাওরানবাজার।

উদ্দেশ্য একটা অবশ্য আছে কিন্তু পাবলিক প্লেসে বলা যাবে না। রাতের ঢাকা সত্যি অনেক সুন্দর। সোডিয়াম লাইট এর আলো কালো পিচের উপর এক অনবদ্য মায়া তৈরি করে। তাই হয়ত হিমু সাহেব এই মায়া ছাড়তে পারেন নি। আমি আমার যাত্রা শুরু করলাম মিরপুর ১নং থেকে ১০ নং পর্যন্ত হেঁটে যাচ্ছি। তারপর বাসে করে যাব কাওরান বাজার। জনমানব শুন্য এই রাজপথে আমার সঙ্গী বলতে মাত্র একটি কুকুর।


এ বার শীতে এখনও ঘন কুয়াশার দেখাই মিলল না। আজ ই এ বছরের শীতের প্রথম আভা লাগছে। এখন রাত ২.৩০। বছরের প্রথম শীত উদযাপন করব। তাই চাদর মুড়ি দিয়ে বেড়িয়ে পড়লাম। গন্তব্য কাওরানবাজার।

উদ্দেশ্য একটা অবশ্য আছে কিন্তু পাবলিক প্লেসে বলা যাবে না। রাতের ঢাকা সত্যি অনেক সুন্দর। সোডিয়াম লাইট এর আলো কালো পিচের উপর এক অনবদ্য মায়া তৈরি করে। তাই হয়ত হিমু সাহেব এই মায়া ছাড়তে পারেন নি। আমি আমার যাত্রা শুরু করলাম মিরপুর ১নং থেকে ১০ নং পর্যন্ত হেঁটে যাচ্ছি। তারপর বাসে করে যাব কাওরান বাজার। জনমানব শুন্য এই রাজপথে আমার সঙ্গী বলতে মাত্র একটি কুকুর।

২নং থানা পেরিয়ে স্টেডিয়াম রোডে কতিপয় কিছু ছিনতাইকারীর সম্মুখে দাঁড়িয়ে আমি অসহায় একটি মানুষ । সংখ্যায় তারা চার জন। একজন আমার কাছে এসে বলল
এই যে ভাই এত রাতে এখানে কি?
হাঁটছি।
সে ই হয়ত ছিনতাইকারী দলের লিডার। ভয় যে পাচ্ছি না তা না। পাশ থেকে একজন বলে উঠল পকেটে কি? আমি বললাম পঞ্চাশ টাকা আছে চলেন আমরা পাঁচজন এই টাকা দিয়ে চা সিগারেট খাই। তবে মুরগী পেলে ভাগাভাগি তে আমি পঞ্চাশ টাকা বেশী নিব। ছেলেগুলোর চোখে মুখে বিস্ময় দেখার মত। তারা অপলক দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে আছে।

আমি কারো সাথে কোন কথা না বলে আবার হাঁটা শুরু করলাম যেন আমি অনন্ত কাল ধরে হাঁটছি। নিজেকে আজ ভেগাবন্ড ভেগাবন্ড লাগছে। ভাবতে ভাল লাগছে এই জাদুর শহরের আমিও একটি অংশ।

উৎসর্গঃ এই যে হিমু?
হ্যাঁ ……
তোমাকে।

৮ thoughts on “ভেগাবন্ডের এক রাত !!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *