মেঘে ঢাঁকা তারা….(জীবনটা এত নিষ্ঠুর..:পর্ব-২)

রাতের আকাশটা কত সুন্দর..এই বলে নিশাদ বারির ছাদে প্রবেশ করলো..তারপর ছাদের এক কোণে বসলো যেখান থেকে তার তারাকে খুব ভালোভাবে দেখা যায়..বসার পর আকাশের দিকে তাকালো..কিন্তু পেলো না.!! কোথায় তারা ? নিশ্চই লুকিয়ে আছে..তার সাথে ইয়ার্কি করছে..নিশাদ বলে উঠলো এই তারা ভালো হচ্ছে না কিন্তু..সামনে আসো ..কিন্তু তারা তাও আসলো না..মেঘেরা আজ তার তারাকে কোথায় লুকিয়ে রেখেছে..তার সাথে যোগাযোগ করতে দিচ্ছে না..নিশাদ জানে তারা নিজেও চাইছে তার সাথে দেখা করতে..।মোবাইলের গ্যালারিতে গেলো নিশাদ,তারার কিছু ছবি আছে..সেগুলো দেখে যদি মনের দুঃখটা কমানো যায় ।এক একটি ছবিতে কত স্মৃতি মিশে আছে..আজ তারাকে ছারা ৩০ দিন মানে ১ মাস পূর্ণ হলো..হায়রে জীবন,যেখানে ১ দিন তার সাথে কথা না হলে চলতো না,ভালো লাগতো না কিন্তু এখন সেটা হয়ে গেছে কি!! আছিস কেমন ? ভালো তো ? তোর খবর তো নিতে পারি না..কি করবো বল ।একদিন হঠাত্‍ করে আমার সামনে চলে আই না..তোকে যে বড্ড দেখতে ইচ্ছে হচ্ছে,মানুষের কতদিন ধৈর্য থাকে বল ? নিশাদের কথাগুলো কি শুনতে পেলো তারা ?? তাও সে বলতেই থাকে,ফিরে আয় না প্লিজ সেই আগের মতো করে,তোর হাঁতটি ধরে আবারো একসাথে হাঁটতে চায়..বলতে বলতে কখন যে তার হাতের সিগারেট টা শেষ হয়ে গেলো তা সে খেয়াল ই করে নি..সে উঠলো আর যাবার সময় আকাশের দিক তাকিয়ে বল্লো,শুনছোকি তারা তুমি আমাকে ? যাবে কোথায় রেখে আমায় ? এই পথচলায় তোমাকেই চায় …আমার হাত থেকে তোমাকে কেউ নিয়ে যেতে পারবে না..কারন তুমি যে আমারই আর আমার জিনিস আমার থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে যেতে কেউ পারেনা..॥

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *