বিজয় উল্লাস ( রাজাকার তত্ব,আস্তিক তত্ব, এবং নাস্তিক তত্ব)

আজকের ১৬ ডিসেম্বর দিন টা উল্লেখ করার মত, মনে করে দিবার মত কোন কারন দেখি না। তবে স্বাধীনতার স্বাধটা যেমন মধুর কিন্তু এর অভিজ্ঞতা ততটাই তিক্ত। একবার করে মনে হয়নি আজকের ঐ দিন কি হয়ে ছিল। দেশের পরিস্থিতি কেমন ছিল। মনে হয়নি কেমন পটভূমি কেমন ছিল তা একবার মনে হয়নি। আজ থেকে দীর্ঘ ৪৩ বছর পূর্বে কথা কারই বা মনে থাকবে। থাকার কথা নয় কারন যা গেছে শেষ হয়ে গেছে। স্বাধীনতা স্বাদ কি? তা বাঙ্গাল জাতির জন্য নয় ইতিহাস পরিক্রমা থেকে জানতে পারছি বেইমান জাতির গর্ব এবং লজ্জা দুইটাই প্রকট এবং অনুভূতি এতটাই বেশী যে কঠিন সত্য মেনে নিতে নারাজ, সবচেয়ে অাশ্চর্য বিষয় তখনই দুর্নীতি যখন চ্যাম্পিয়ন তখন ও চুপ হত্যাকারী হাতে পতাকা তখন ও চুপ। আজব দুনিয়ার বাসিন্দা, আজকের এই সংগ্রামর নায়ক গুলো কোথায় নেই, হয়ত পেটের দায় মরছে হয়ত লজ্জা করছে বলতে হয়তবা নিরব দর্শক। বিজের উল্লাস নামক লাল সবুজ শাড়ি পড়া, টি শার্ট পড়ে মডেল হওয়া বরই অদ্ভুদ। ধর্ম নিয়ে লাফানো ঝাপানো এর মধ্য ও দেশ প্রেম আছে বলে শুনেছি এটা বড় ধরনের মজা করা আর মোল্লাদের টু পাইস কামানোর চিন্তা ছাড়া কিছুই নয়। এর একটা লম্বা কারণ ও অাছে যেহেতু ১৯৭১ সালে যতভাগ নিহত হয়েছে তার বেশির ভাগ ই হিন্দু ছিল। ইসলাম ধর্ম মতে ভিন্ন ধর্ম অনুসারী কে জাহান্নাম এর দোয়া বলা হয় তাহলে আজ কেন এই ধৃষ্টতা। নিশ্চয় বলবেন যারা মুসলিম ছিল তাদের জন্য। কিন্তু আশ্চর্য বিষয় হচ্ছে যারা হত্যা করে ছিল তারা কোন দেশের ছিল পাকিস্তানের তাই নয়কি। মুসলিম হয়ে মুসমান কে হত্যা জায়েজ এটা কি করে হয়, একে বারে ঘেটে ঘ হয়ে গেল না। আজকের যারা ইসলামের সৈনিক বলে জাহির করেন, একবার ঠান্ডা মগজে চিন্তা করেন দেখি মানুষ হিসেবে কতটা ভালো কাজ করছেন। দেশ প্রমিক কে??? আপনি আমি নাকি সে….? দেশের ভালোবাসা বলতে কি বুঝায়। উপলব্ধি করুন এক পা হেঁটে দেখুন পাশের ঝোপে লুকানো দেশ পাওয়া যাবে। রাস্তায় থুতু না ফেলে অন্য কে ধাক্কা নাদদিয়ে দেখুন দেশ প্রেম কাকে বলে। সারা বছর বিদেশী পন্য ব্যাবহার না করে দেশীয় ভালো পন্য ব্যবহার করুন খুজে পাওয়া যারে দেশ প্রেম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *