নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাজ্জাদুল হক
  • শঙ্খচিলের ডানা
  • তাকি অলিক
  • ইকরামুল শামীম

নতুন যাত্রী

  • মোমিত হাসান
  • সাম্যবাদ
  • জোসেফ স্ট্যালিন
  • স্ট্যালিন সৌরভ
  • রঘু নাথ
  • জহিরুল ইসলাম
  • কেপি ইমন
  • ধ্রুব নয়ন
  • সংগ্রাম
  • তানুজ পাল

আপনি এখানে

সমালোচনা

ফোর জি সেবা যেন নামেমাত্র না হয়



আমি ফোরজি নেটওয়ার্কে ডাটা ইউজ করতে থ্রিজির থেকে দশগুণ স্পিড চাই না। লাইসেন্স দেরীতে হলেও দিচ্ছে, বা এইদেশে সব ভাল দেরিতে হয় সেটাও মানা গেল। কিন্তু ভাল হবে নাম দিয়ে আসবার পর মোবাইলে ইউটিউব ভিডিও চালাইলে আমার মোবাইল স্কিনে যেন গোল্লা চাক্কা ঘুরতে না থাকে অনির্দিষ্ট সময়ব্যাপী।

বাঙালি, একটি বাংলাদেশ এবং আমি


মাত্র গুটি কয়েকদিন হলো দেশের বাইরে এসেছি। নতুন দেশ, নতুন পরিবেশ, নতুন সংস্কৃতিতে নতুন করে চলা। নতুন একটা জায়গায় নিজেকে গুছিয়ে নিতে পারবো কি না এই ভয়ের মধ্যেও আশাবাদী ছিলাম দেশের বাইরে হলেও নিজের পাশের দেশেই এসেছি। ভারত বিশ্ব অর্থনীতিতে অনেকটা এগিয়ে গেলেও তাদের আর আমাদের সংস্কৃতির মধ্যে খুব একটা ফারাক এখনো দেখা যায় নি। তাই একটু হলেও নিজেকে সান্ত্বনা দিতে পেরেছিলাম খুব একটা পরিবর্তন পরিলক্ষিত হবে না তাই নিজেকে খুব সহজেই এখানে মানিয়ে নিতে পারবো।

নাস্তিকরা কেন ইসলাম নিয়ে বেশি লেখে ?


বিভিন্ন নাস্তিক বনাম আস্তিক ফেসবুক গ্রুপে বা ব্লগে ইসলামধর্মকে কটাক্ষ করে লিখলে, মুমিন-মুসলিমরা প্রায়ই এই অভিযোগ তোলেন যে,
নাস্তিকেরা শুধু ইসলামকেই কেন আক্রমণ করেন, নাস্তিকতা মানেই কি শুধু ইসলামবিরোধিতা, পৃথিবীর আরো হাজারটা ধর্ম নিয়ে কেনো আলোচনা করা হয় না, শুধু ইসলামকে কেন অাক্রমনের লক্ষ্যবস্তু করা হবে, অনেকে এও বলেন গ্রুপের নাম বদলে নাস্তিকতা বনাম ইসলাম রাখা হোক ইত্যাদি ইত্যাদি।
এ প্রসঙ্গেই কিছু কথা।

শাহজাহান ও তাজমহল এক অন্য নাটক


মানুষ তার ভালোবাসার প্রকাশ করে তাজমহল দিয়ে।তাজমহলকে ‘ভালোবাসার’ প্রতীক হিসেবে ধরা হয়। মুঘল সম্রাট শাহাজাহন তাঁর প্রিয় স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার নির্দশন হিসেবে তাজমহল তৈরি করেছিলেন। এই তাজমহল, সম্রাট শাহজাহানকে নিয়ে রয়েছে নানান তথ্য। তাজমহল তৈরির কাজ শুরু করা হয় ১৬৩২ সালে এবং তা শেষ হয় ১৬৫৩ সালে। প্রায় ২২ বছর সময় লেগেছিল তাজমহল তৈরি করতে।তাজমহলটি তৈরিতে খরচ হয়েছিল প্রায় এক মিলিয়ন ডলার।শুধু তাজমহল নয় সম্রাট শাহাজানের রয়েছে নানান অজানা তথ্য।যে গুলো হল।

হাসিনাকে নোবেল দিন, সাথে জুতার বাড়িও দিন..!


কাকে শান্তিতে নোবেল দেয়ার দাবি করছেন,হাসিনাকে...???
ওহ মাই ফাকিং গড..!!!

প্রথম দিকে রোহিঙ্গাদের জায়গা দিতে অস্বীকার করা, পরবর্তীতে ধর্মীয় জাতীয়তাবাদী বিষাক্ত জাতি গোষ্ঠীর টোপের মুখে পড়ে রোহিঙ্গাদের জায়গা দেয়া, পরবর্তীতে মহান মানবতাবাদী হয়ে ওঠা এই মেরুদণ্ডহীন নারীটিকে নোবেলই দিন, উনিই একমাত্র শান্তিতে নোবেল পাওয়ার যোগ্য, সাথে জুতা দিয়ে দুই গালে দুইটা বাড়িও দিন এই মহান বদমাশ, মেরুদণ্ডহীন নারীটিকে।

দিন দিন, তাকেই নোবেল দিন..! নিজের দলের লোকদের লাগিয়ে দিয়ে নাসিরনগরে হিন্দু নিধনের আর হিন্দুদের বাড়ি ঘর দখলের জন্য তাকে শান্তিতে নোবেল দিন...!

দারিদ্রতার গ্রাসে শিশুশ্রম


শিশু শ্রম,শিশু নির্যাতন কেন জানি আমাদের সমাজের এক শ্রেনীর মানুষের নিত্য দিনের রুটিন হয়ে দাড়িয়েছে।প্রতিদিন খবরের কাগজ খুল্লেই যার যথেষ্ঠ প্রমান পাওয়া যায়। হারিয়ে যাচ্ছে মানবতা, সহানুভূতি কেমন যেন দুষ্পাপ্য হয়ে যাচ্ছে।নিজ স্বার্থ রক্ষায় এক শ্রেনীর মানুষ এই পাশবিক কাজগুলো করছে। তারা কি তাদের সন্তানের কথা একবারও ভাবে না।তাদের সন্তানের প্রতি যদি একই আচরন করা হয় তাদের কেমন লাগবে?

মানবতাবোধ কি বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়ালো?



“আসুন, অসহায় মুসলিম ভাই-বোনদের পাশে দাঁড়াই। ওদের কেউ নাই আমরা ছাড়া।”- ব্যানারগুলা দেখেছি খুব বেশিদিন হলো। মানবতার বুলি আওড়াতে আওড়াতে গলার পানি শুকিয়ে গেছে অনেকের। এত মানবতাবাদী দেখে একদিকে খুশিও লাগছিল, আবার আফসোসও হচ্ছিলো। এতো মানবতাবাদী আছে বিষয়টা যেমন খুশির ঠিক তেমনি আফসোসের বিষয় হলো এতো মানবতাবাদী থাকার পরও কিভাবে দেশে এত সমস্যা থাকে!

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘একরাত্রি’ গল্পের নায়ক ভাঙ্গা-স্কুলের সেকেন্ড মাস্টার


একজন স্বপ্নাতুর তরুণের কাহিনী এখানে করুণভাবে বিধৃত হয়েছে। একেবারেই গ্রামের ছেলে সে। কিন্তু তার স্বপ্ন ছিল বড়। সে কালেক্টর সাহেবের নাজির হতে চেয়েছিলো, সেরেস্তাদার হতে চেয়েছিলো, আর তা না পারলে সে আদালতের হেডক্লার্ক হতে চেয়েছিলো। একসময় সে ইতালির জাতির জনক মাটসিনি গারিবালডির মতো নেতাও হতে চেয়েছিলো। কিন্তু সে কিছুই হতে পারেনি। সবশেষে, সে হয়েছে একটা ভাঙ্গা-স্কুলের সেকেন্ড মাস্টার। আর এইখানে এসেই তার জীবনের মোড় ঘুরে গেছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর