নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • আকাশ লীনা
  • নুর নবী দুলাল
  • সীমান্ত মল্লিক

নতুন যাত্রী

  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম
  • মোঃ মনজুরুল ইসলাম
  • এলিজা আকবর
  • বাপ্পার কাব্য

আপনি এখানে

প্রবন্ধ

নাস্তিকের লেখালেখি


ঘটনা এক

এপিসোড এক :
ধরা যাক আমি বেশ দরিদ্র একজন মানুষ, গ্রামে বসবাস। ভোট দিই বটে তবে কোন দলের সাথে, গ্রামের নেতা গোছের কারো সাথে আমার কোন খাতির নেই। কোন এক সময় গ্রামের একজন প্রভাবশালী নেতা এবং তার সহচরদের দ্বারা আমি আক্রান্ত, অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ এবং শারিরীকভাবে নিগৃহীত হলাম।

এপিসোড :দুই
আমি গেলাম থানায়। পুলিশ মামলা নিল না। উল্টো আমাকেই ধমকালো। আবার সেই নিপীড়নকারী নেতার হাতে আমি দ্বিতীয় দফা নিগৃহীত হলাম।

ধার্মিক ও অসাম্প্রদায়িক : পারষ্পরিক সম্পর্ক


ধার্মিকতা এবং অসাম্প্রদায়িকতা একসাথে যায়না। এই থিসিসটা শুনতে খারাপ এবং ভাবতে নির্বোধের মতো মনে হয় অনেকের কাছে। তবুও একবার ভেবে দেখা যাক।

তার আগে একটা কথা বলে রাখি।কলহপ্রিয় মানুষেরা বলেন যে ধর্ম বলতে বোঝায় কোন কিছুর অর্ন্তগত বৈশিষ্ট্য। যেমন আগুনের ধর্ম উত্তাপ, বাতাসের ধর্ম প্রবাহমানতা ইত্যাদি ইত্যাদি। তাদের জন্য জ্ঞাতব্য হচ্ছে পদার্থের বৈশিষ্ট্য (Properties) আর মানুষ কর্তৃক মান্য সর্বশক্তিমান সৃষ্টিকর্তাকেন্দ্রিক ধর্ম (religion) - এ দুটোকে একসাথে গোলাবেন না। যদি না গোলান তাহলে পরের কথায় আসি।

ইসলাম অবমাননার নামে টিটু রায়কে গ্রেপ্তারঃ এটা সরকার-প্রশাসনের নির্লজ্জতাই ফুটে উঠে!


আওয়ামিলীগ সরকার (ও তার প্রশাসন) মুসলমানের সমর্থনের জন্য এতোটা নগ্ন ও নির্লজ্জ হয়েছে যে, তাদের এই নির্লজ্জতা ঠিক কোন ভাষায়, কোন শব্দ দিয়ে ব্যাখ্যা করবো, সেইটুকু ভাষা ও শব্দ আমার জ্ঞাণ ভাণ্ডারে নেই। রংপুরের ঠাকুর পাড়ার টিটু রায়কে ঠিক কোন অপরাধে গ্রেপ্তার করলো আওয়ামিলীগ সরকারের প্রশাসন? আমি বুঝে উঠতে পারছি না টিটু রায়ের অপরাধটা কি? যে ছেলেটা ফেইসবুকের 'ফ' ও বুঝেনা, সেই ছেলে কি করে ইসলাম ও নবী অবমাননা করবে?

সিকি শতাব্দী পেরিয়ে ৯০'র গণআন্দোলন, প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি, নিখাদ সন্ধ্যা ছাড়া আর কি?


তারুণ্যের একটা ভাষা আছে। আছে আলাদা একটা মাত্রা। কিন্তু সেই ভাষা ও মাত্রাও সব তারুণ্য ধারন করে না। অনেকে করে। আমাকে-আমাদের করেছিল। সেই তারুণ্য সন্ধি ও আত্মসমর্পনের ছিল না, ছিল আপোষহীন ও বেপরোয়া। ছিল দারুণ দূর্বার, তুমুল তুখোর! ছিল চোখে আগুন, বুকে বারুদ আর মুঠে প্রচন্ড ঘৃনা ও প্রতিবাদ। যে স্পর্দ্ধিত তারুণ্য লড়েছিল নিরস্ত্র এক বিশ্ব ব্যহায়া সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে! সে এক রক্ত হিম করা গল্প! সিকি শতাব্দী পার হয় যে গল্পের! সেকি কেবলি গল্প নাকি এক দুস্বপ্নের রুপকথা?

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক এবং নৈতিকতাঃ অন্তরঙ্গতা নাকি যৌন হয়রানি!


প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি শিরোনামটির জন্য। শিক্ষকতা পেশাকে সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এবং আদর্শ পেশা হিসেবে গণ্য করা হয়। শিক্ষকতা পেশার সাথে জড়িত কাউকে দেখলেই যেকোন মানুষ ‘স্যার’ সম্বোধন করে যথাসাধ্য সম্মানটুকু দেয়ার চেষ্টা করে। এটি এমন একটি পেশা যার প্রতি সকল স্তরের মানুষের সমীহ আছে। কিন্তু সকল শিক্ষক কি শ্রদ্ধার জায়গাটুকু সমুন্নত রাখতে পারছেন? হয়তোবা যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি সেটির জন্য কতিপয় শিক্ষক দায়ি কিন্তু সেই দায়টুকু কি বাকি শিক্ষকদের ঘাড়েও পড়ে না? যে শিক্ষকরা নিজের সহকর্মীদের অনৈতিক, অসুস্থ এবং বিকৃত মানসিকতার কাজকর্মগুলোকে দেখে দেখে এড়িয়ে যাচ্ছেন তাদের কি কোন দায় নেই? অসুস্থ এবং বিকৃত মানসিকতার কাজকর্মগুলোর বিপক্ষে দাঁড়ানোর মতো নৈতিকতা কি তাদের নেই? বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের নৈতিকতা কি এই ক্ষেত্রে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে না? যেখানে আমরা নীতিজ্ঞান লাভ করতে আসি, পাশবিক অস্তিত্বকে বশ করে মানুষ হবার জ্ঞান অর্জন করতে আসি সেখানকার কর্ণধারদের অবস্থা যদি এমন নৈতিকতা বিবর্জিত হয় তাহলে জ্ঞান লাভ করব কাদের কাছে? কতিপয় নৈতিকতা বিবর্জিত শিক্ষকদের জন্য আপনারা আপনাদের শ্রদ্ধার জায়গাটুকু প্রশ্নবিদ্ধ করবেন? কতিপয় শিক্ষকের এমন হীন কাজের জন্য আপনারা আপনাদের অবস্থান নামিয়ে ফেলবেন নাকি সেই অসুস্থ এবং বিকৃত মানসিকতাগুলোর বিপক্ষে কথা বলবেন সেটা আপনাদের বিবেচ্য বিষয়।

কথা বলাই সমাধান


একবার এক বন্ধু আমাকে মিথ্যে বলেছিল। যেহেতু সে আমার জীবনে ঘনিষ্ঠ একজন, সেহেতু আমার ধরে ফেলতে খুব একটা কষ্ট হয় নি। আমি অবাক হচ্ছিলাম এটা ভেবে, যে মিথ্যে বলার প্রয়োজন কী ছিল! যে আমাকে সব সময় বলত, কথা বলাই সমাধান।

ছোটকাল থেকে মানুষকে পড়া ছিল আমার নেশা। তারপর মনোবিজ্ঞানের আনাচকানাচ নিয়ে বেশ ভালো রকম পড়াশোনা করেছি। দু'একবার বাদে মানুষ চিনতে ভুল হয় নি কখনোই।

চাকমাদের আলাদা জাতির পিতা ও আলাদা শোক দিবসের কথা


বাংলাদেশ ভূখন্ডে চাকমারাই আলাদা এক জনগোষ্ঠী যারা ১৫ আগস্টকে জাতীয় শোক দিবসের পরিবর্তে, ১০ই নভেম্বরে পালন করে চাকমা বা জুম্মজাতির "শোক দিবস"। কারণ এইদিন তাদের অবিসংবাদিত নেতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা (এমএন লারমা) নিহত (শহীদ) হন। আমাদের সকলের জাতির পিতা "বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব" হলেও, চাকমাদের জাতির পিতা হচ্ছেন এই মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা। আপনি বাঙালি হিসেবে জানেন কি কে এই "মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা"?

১৯৭১ সালে পাকিস্তানে সংগঠিত গৃহযুদ্ধে নিহতের সংখ্যা কতে?



বাংলাদেশে জন্মানো এবং বড় হওয়ার একটি বড় সুবিধে হচ্ছে যে আপনি চোখের সামনে অনেক মিথ জন্মাতে দেখবেন। আমি প্রচুর মিথ জন্মাতে দেখেছি। বাংলদেশের মানুষের মাঝে কোন মিথের জন্ম দেয়া সাধারন বিষয়। এইত মাত্র কয়েকদিন পৃর্বে ব্লু হোয়েল গেমর্সটি নিয়ে কতো মিথ জন্মাতে দেখলাম।
সায়েদীকে চাঁদে পাঠোনো হলো, ইস যদি কাজটি ৫৫/৬০ বছর আগে করা যেতো তাহলে চাঁদে যাওয়া প্রর্থম ব্যক্তিটি ততকালিন পূর্বপাকিস্তান ( বর্তমান বাংলাদেশ ) হত।

জনগণের স্বাস্থ্যঃ সোভিয়েতের সম্পদ( ২য় পর্ব)


জনগণের জীবনমান উন্নয়নে সোভিয়েত ইউনিয়নে চিকিৎসা কেবল রোগ নিরাময় প্রতিষেধক কিংবা সেবা হিসেবে থাকে নি।বরং আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান হিসেবেও সোভিয়েত তার বিশেষত্ব অর্জন করে। ভবিষ্যত উন্নত সমাজ ও দক্ষ আধুনিক জনগোষ্ঠী তৈরীতে গবেষণা, পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও রাষ্ট্রীয় পৃষ্টপোষকতায় সোভিয়েত চিকিৎসাবিজ্ঞান বিশ্বের শীর্ষস্থানে উঠে আসে।মহাকাশ বিজ্ঞান, ভৌত, পদার্থ,রসায়ন সহ আধুনিক গবেষণায় চিকিৎসা বিজ্ঞানে ও সে সবাইকে ছাড়িয়ে যায়।

৪৭, ৭১, ও আমি দ্বিতীয় পর্ব



রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে পাথমিক আলচনা শেষে ১৬ মে কেবিনেট মিশন তাদের প্রস্তাব পেশ করলো।ক্যাবিনেট মিশনের করা প্রধান প্রস্তাব গুলো হল,,

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর